| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
   * ফরিদপুরের নগরকান্দায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে অনুষ্ঠিত   * নগরকান্দা-সালথা ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ পালিত   * পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা তৈরি করলে ব্যবস্থা   * নাটোরের বড়াইগ্রামে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালিত   * পুলিশ পাহারায় পালিয়ে গেলেন ভিসি নাসিরউদ্দীন   * রেমিট্যান্স পাঠানোয় ঘোপলা প্রবাসীদের ব্যাংকে   * ফরিদপুরে পৃথক তিনটি সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১০, আহত ২৫   * রাজবাড়ী থেকে মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার   * রাজবাড়ীতে নতুন ৮ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি   * গোয়ালন্দে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় বাস চালকের মৃত্যু  

   উপ-সম্পাদকীয়
  ভালোবাসাহীন সমাজ ও আমাদের তারুণ্য
  24, October, 2017, 3:38:15:PM
আজকাল পত্রিকা খুললেই যেসব খবর দেখি তাতে মন খারাপ ছাড়া ভালো হবার কিছু থাকে না। একটা সময় ছিল যখন আমরা মানুষের মায়া আর ভালোবাসার উজ্জ্তলতায় বড় হয়েছি। একথা বলি না এখন ভালোবাসা নাই। এখনো ভালোবাসা আছে বলেই ১৬ কোটি মানুষের গিজ গিজ করা দেশে কারো জন্মগ্রহণের মতো আনন্দ সংবাদ আর কিছু নাই। এখনো মানুষ সন্তান হবার আনন্দে বিভোর। মা হবার স্বপ্নে বড় হয়ে ওঠা আমাদের কন্যারা ভাবতেও পারবে না উন্নত দেশ নামে পরিচিত এই দেশগুলোতে মেয়েরা সন্তান নিতেই চায় না। আমার দেখা অষ্ট্রেলিয়ার অন্যতম সেরা রাজনীতিবিদ ছিলেন কিম বিজলী নামের এক ভদ্রলোক। তখন লেবার দল গদিতে ছিল না। তিনি ছিলেন বিরোধী দলের নেতা। জনপ্রিয়তা ও বাগ্মিতায় শীর্ষে থাকা এই মানুষটি আর কোনোদিনও এ দেশের প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না। কারণ যখন হবার কথা তখন দুটো সাংঘাতিক বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন তিনি। যার একটি মেধাভিত্তিক সমাজ, আরেকটি বিবাহবন্ধনের ওপর গুরুত্ব আরোপ। তিনি বলেছিলেন, এ দেশে আরো অনেক মেধার দরকার। ভারতের কাছে অঙ্ক বা কম্পিউটার, চীনের কাছে বাণিজ্য, আমেরিকার কাছে শক্তি বন্ধক দিয়ে কোনো জাতি স্বাবলম্বী হতে পারে না। ব্যস। এ দেশের ভোটাররা আমাদের মতো হইচই করে না, ব্যানার ফেস্টুন বা মাইকিং নাই এ দেশে। জনসভা? নৈব নৈব চ। ফলে নীরব ভোটে তারা জানিয়ে দিয়েছিল— তারা আয়েশি সুখের জীবন ছেড়ে অতশত পড়াশুনায় রাজি না। আর একটি কারণ তিনি তারুণ্যকে বলেছিলেন দায়িত্ব নিতে। তাঁর মতে, এই লিভ টুগেদার আর যৌনতা উপভোগের বন্ধনহীন জীবন কোনো জাতিকে মজবুত করে না। বিয়ে করে সংসারী না হওয়া বা সন্তান হলে দায়দায়িত্ব না নেওয়ার জন্য একা থাকা মূলত একটি উপসর্গ। তার এই কথা তারুণ্যের হয়তো মনে ধরেনি এবং তিনিও আর কোনোদিন এ দেশের প্রধানমন্ত্রী হতে পারেননি।

 

এদিক থেকে আমাদের সমাজ ও দেশ অনেক মায়াবী। এখনো ফেসবুক জুড়ে বা মিডিয়ায় বিয়ের চোখ জুড়ানো ছবি আর ঘটা দেখে বোঝা যায় মেয়েদের অন্তরে সংসার কতটা প্রোথিত। ছেলেরাও চায় সুখি হতে। বাদ সাধছে কে? তার আগে বলি, আমি নিজে যেহেতু যন্ত্র ও আবিষ্কারে বিশ্বাসী তাই ঢালাওভাবে কোনো সামাজিক মিডিয়াকে দোষ দেব না। কিন্তু মানতে হবে আমরা যা বা যে বিষয়ে প্রস্তুত না সেটা হঠাত্ খুলে গেলে অসুবিধা হবেই। আমাদের যৌবনে এমনকি সেদিনও ছবি দেখে পাত্রী পছন্দ করে বিয়ে হতো। ছবিতে কত দোষ কত ত্রুটি চাপা পড়ে যায়, তবু মানুষ সেটাই বিশ্বাস করে জীবনসঙ্গী বেছে নিতো। অথচ সে সময়কার বিয়েগুলো ছিলো অটুট ও দীর্ঘমেয়াদি। অবাধ মেলামেশা বা বন্ধুত্ব এক বিষয় আর সেখান থেকে সবকিছু পাবার পর কাউকে জীবনসঙ্গী করে নিলে অচিরেই গাইতে হয়, পুরনো জানিয়া চেয়ো না আমারে আধেক আঁখির কোণে...। বলছিলাম, এই অবাধ অবাধ খেলায় বাংলাদেশ যতটা এগিয়ে আছে সিডনি ততটা না। আমাদের ধারণা শ্বেতাঙ্গ নারী মানেই খোলামেলা। এ যে কত বড় ভুল এদেশে না এলে আমি জানতামই না। ধরুন যখন আমরা চিঠি লিখতাম, কত ধৈর্য আর কত কত দিন পর একেকটি চিঠির উত্তর আসতো। সে স্বপ্ন আর প্রহরের ভেতরেই তারুণ্যের জীবনে আসতো কবিতা নামক গান বা শিল্পবোধ। এখন যখন চটজলদি পাওয়া আর পেয়ে হারানোর রেইস বা দৌড় সেখানে কোথা থেকে ভালো শিল্পের জন্ম হবে? যে কারণে ভালোবাসার নাম এখন দৌড় প্রতিযোগিতা।

 

মানুষের জীবনে ভালোবাসা কেবল নারী-পুরুষে সীমাবদ্ধ হলে আমাদের সমাজ এতটা এগুতে পারতো? যারা এ দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছিলেন তাদের ভেতর প্রচণ্ড ভালোবাসা বোধ ছিল। সামান্য একটু মারামারি দেখলে আমরা পালিয়ে ভাগি। আর এরা নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে গুলির মুখে বুক পেতে দিয়েছিল কিভাবে? দেশের জন্য মাটির জন্য ভালোবাসা ছিল বলে। আজ সে ভালোবাসা কোথায়? আগামী দিনের কাণ্ডারি হিসেবে দেশ ও সমাজের সামনে যাদের তুলে ধরা হচ্ছে তাদের কেউই দেশে থাকে না। আরে মাটি যদি পায়ে না লাগে আকাশ যদি সকালে ঘুম না ভাঙায় হাওয়া যদি এসে স্পর্শ না করে সে মানুষ সে মাটি সে দেশের নেতা হবেন কী করে? ভালোবাসার আরেকটা রূপ ছিল মায়া। এমন মায়ার সংসার ও সমাজ আর কোথাও নাই। এখনো মায়েরা সন্তানের জন্য না খেয়ে থাকেন। এখনো বাবার জুতোর তলা ছিঁড়ে যায় কন্যার বিয়ের টাকা জোগাড় করতে। এমন দেশের মানুষ কী করে একজন আরেকজনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করে? এই বোধহীন সমাজের দায় শুধু রাজনীতির ওপর চাপালে চলবে না।

 

প্রায়ই দেখি সমস্যা আর সমস্যার চাপে মুখ থুবড়ে পড়া মিডিয়ায় কিছু মানুষ বকছেন। কী বলছেন কেন বলছেন কেউ জানে না। আপনারা এক লাখ কথা বলে একজন রোহিঙ্গাকে ফেরত নেয়াতে পারবেন? আপনাদের মুখ গোমড়া কঠিন ভাষা কি সু চি বা মিয়ানমার বোঝে? আপনারা মাঠে যান। আমাদের তারুণ্যকে গড়ে তুলুন যাতে তারা নিজের দেশ ও সমাজকে ভালোবাসতে জানে। সবাই মিলে তাদের কাঁধে-পিঠে ভারী পুস্তকের বোঝা আর জিপিএ পাবার লোভ তুলে দিলে তারা সমাজ ও দেশকে ভালোবাসবে কিভাবে?

 

ভালোবাসার বিকল্প নাই আজ। কেবল ফেব্রুয়ারি মাসের এক বিশেষ দিনে ভালোবাসা হবে আর বাদবাকি সব সময় আমরা ঝগড়া-কলহে থাকবো? তাই অন্তত একটি লেখা একটি কথা একটি কাজে প্রতিদিন আমরা যেন আমাদের দেশ, তারুণ্য ও মানুষকে ভালোবাসার কথা জানাই। ভালোবাসা ফিরে আসলে অনেক সমস্যা এমনিতেই কমে যাবে।


       
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     উপ-সম্পাদকীয়
কোটা পদ্ধতি ছাত্রলীগ কী ভুল পথে হাটছে !
.............................................................................................
যাত্রীস্বার্থ সংরক্ষণে ব্যবস্থা নিন
.............................................................................................
দীপ জ্বালানোর নেই কোনো প্রহরী!
.............................................................................................
আমরা করব জয় এক দিন
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও আমাদের ভূমিকা
.............................................................................................
তারুণ্য কেন বিপথগামী সাবরিনা শুভ্রা
.............................................................................................
ট্রাম্পের অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
তোপের মুখে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
কোচিং বাণিজ্য এবং...
.............................................................................................
আমাদের চিত্র-চরিত্র এবং...
.............................................................................................
মধ্যপ্রাচ্যে ইরান ও সৌদি আরব
.............................................................................................
গান্ধীর গুপ্তহত্যার জট কেন খোলে না?
.............................................................................................
সরকারের নজরদারি
.............................................................................................
হুমকির মুখে অস্তিত্ব
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও মেধাহীন প্রজন্ম
.............................................................................................
শহীদ নূর হোসেন দিবস : গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দিন
.............................................................................................
ঢেউ গুনতেও অর্থের সন্ধান!
.............................................................................................
অসহায় সন্তান বনাম অভিভাবক
.............................................................................................
প্রয়োজন বহুমুখী বৈশ্বিক অবরোধ
.............................................................................................
শীত অনুভূত হবে
.............................................................................................
বদলে যাচ্ছে ইউরোপীয় রাজনীতি
.............................................................................................
ভালোবাসাহীন সমাজ ও আমাদের তারুণ্য
.............................................................................................
‘ডুব’ নিয়ে ব্যস্ত তিশা
.............................................................................................
চাঁদে সুড়ঙ্গের হদিস, হতে পারে মানববসতি
.............................................................................................
পুলিশ আমাদের লজ্জা এবং
.............................................................................................
বোবা কান্নায় ভারী হচ্ছে দেশ
.............................................................................................
মোবাইল কোম্পানির প্রতারণা
.............................................................................................
প্রাথমিক শিক্ষার বেহাল দশা
.............................................................................................
চলমান সন্ত্রাস এবং আইএস প্রসঙ্গ
.............................................................................................
পথশিশু হোক ভবিষ্যৎ নির্মাণের অংশীদার
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের পাশে চীন যে স্বার্থে
.............................................................................................
বাড়ছে মানুষ কমছে জমি
.............................................................................................
বিদায় হজ ও রোহিঙ্গা শিশুদের কান্না
.............................................................................................
মানুষ যখন নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত
.............................................................................................
জুতো-বৃত্তান্ত
.............................................................................................
আসলেই কি যুদ্ধ হবে কোরিয়া উপদ্বীপে?
.............................................................................................
ক্রিকেটের ধারাবাহিক উন্নতিতেই আমরা সন্তুষ্ট
.............................................................................................
এ কেমন বর্বরতা
.............................................................................................
কবি শহীদ কাদরীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা
.............................................................................................
আসুন, সবাই মিলে ঢাকাকে বাসযোগ্য করি
.............................................................................................
দেশের সর্বত্র আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ জরুরি
.............................................................................................
২১ আগস্ট হামলা : সংসদের শোক প্রস্তাবে ছিল না নিহতদের নাম
.............................................................................................
প্রকল্পের গতি বাড়াতে নজরদারি
.............................................................................................
শিশুদের বন্ধু হন
.............................................................................................
প্রকৃতির বিপক্ষে গেলেই বিপদ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক : জাকির এইচ. তালুকদার ।     [সম্পাদক মন্ডলী ]
সম্পাদক কর্তৃক ২ আরকে মিশন রোড থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ০১৭১৩৫৯২৬৯৬ , ই-মেইল: dtvbanglahr@gmail.com
   All Right Reserved By www.dtvbangla.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]