| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
   * সুযোগ আছে বিএসসি অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে   * উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গী ....ড. এফ এইচ আনসারী   * সবার মতামত নিয়েই গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ব্যবস্থা :প্রধানমন্ত্রী   * ডুবোচরে আটকে আছে ১৫টি মালবাহী জাহাজ   * নিম্নকক্ষে নিয়ন্ত্রণ হারালেন ট্রাম্প   * শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব ---ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা   * আমার সংসার টিকে আছে এইতো বেশি   * গোপালগঞ্জে মোবাইলে প্রেমের ফাঁদ চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার   * সাটুরিয়ায় দলিল হাতে ঘুরছে ভূমিহীন ২০ পরিবার   * এ্যরোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পেশায় আসতে চাইলে  

   আইন শৃংখলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
এবারের ঈদে বড় ধরনের অপরাধ হয়নি : ডিএমপি কমিশনার

অনলাইন ডেস্ক:  ডিএমপি কমিশনার নগরীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত ভালো ও কঠোর ছিল উল্লেখ করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, এবারের ঈদে পুলিশের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার ফলে রাজধানীতে উল্লেখযোগ্য কোন বড় অপরাধ সংঘটিত হয়নি। 

রবিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দপ্তরে আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ, নিরাপদ ও উৎসবমূখর পরিবেশে ঈদ উদযাপনের ব্যবস্থা করেছি। আমরা নিজেরা ঈদের ছুটিতে না গিয়ে সাধারণ মানুষের নামাজের নিরাপত্তা দিয়েছি। পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে ঈদে নগরীর আইন শৃংখলা রক্ষা করেছে।’
সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, শুধু ঢাকা সিটিতে না, সারাদেশে উল্লেখযোগ্য কোন বড় অপরাধ সংঘটিত হয়নি। ঢাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত ভালো ও কঠোর ছিল।
তিনি বলেন, ঈদের আগে নগরবাসী নিরাপদে গভীর রাত পর্যন্ত শপিং করে বাড়ি ফিরেছেন। আমরা বাস, ট্রেন ও লঞ্চ টার্মিনালে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলাম। ফলে নগরবাসী নিরাপদে উৎসবমূখর পরিবেশে নিজ নিজ গৌন্তব্যে ঢাকা ছেড়েছেন।

এবারের ঈদে বড় ধরনের অপরাধ হয়নি : ডিএমপি কমিশনার
                                  

অনলাইন ডেস্ক:  ডিএমপি কমিশনার নগরীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত ভালো ও কঠোর ছিল উল্লেখ করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, এবারের ঈদে পুলিশের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার ফলে রাজধানীতে উল্লেখযোগ্য কোন বড় অপরাধ সংঘটিত হয়নি। 

রবিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দপ্তরে আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ, নিরাপদ ও উৎসবমূখর পরিবেশে ঈদ উদযাপনের ব্যবস্থা করেছি। আমরা নিজেরা ঈদের ছুটিতে না গিয়ে সাধারণ মানুষের নামাজের নিরাপত্তা দিয়েছি। পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে ঈদে নগরীর আইন শৃংখলা রক্ষা করেছে।’
সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, শুধু ঢাকা সিটিতে না, সারাদেশে উল্লেখযোগ্য কোন বড় অপরাধ সংঘটিত হয়নি। ঢাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত ভালো ও কঠোর ছিল।
তিনি বলেন, ঈদের আগে নগরবাসী নিরাপদে গভীর রাত পর্যন্ত শপিং করে বাড়ি ফিরেছেন। আমরা বাস, ট্রেন ও লঞ্চ টার্মিনালে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলাম। ফলে নগরবাসী নিরাপদে উৎসবমূখর পরিবেশে নিজ নিজ গৌন্তব্যে ঢাকা ছেড়েছেন।

কারাগারে ইফতারে শূকরের মাংস না দেয়ার নির্দেশ
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা অঙ্গরাজ্যের অধীনে থাকা সব কারাগারে ইফতারের সময় বন্দীদের শূকরের মাংস দিতে নিষেধ করেছেন দেশটির আদালত। গত বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন আদালত। আদেশে বিচারক মুসলিম বন্দীদের পবিত্র রমজান মাস জুড়ে ইফতারের সময় শূকরের মাংসমুক্ত ও পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার সরবরাহ করার কথা বলেন।
মার্কিন মুসলমানদের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কাউন্সিল অন আমেরিকান মুসলিম রিলেশন্সের (কেয়ার) পক্ষ থেকে আদালতে এক আবেদনের প্রেক্ষিতেই আদালত এ আদেশ দেন।
কেয়ারের ন্যাশনাল লিটিগেশন ডিরেক্টর লিনা মাশ্রি জানান, এখন থেকে মুসলমান বন্দীরা আর শূকরের মাংস খেতে বাধ্য থাকবেন না। বিশেষ করে রমজান মাসে তাদের হালাল খাদ্যই সরবরাহ করতে হবে।
উল্লেখ্য, আলাস্কার অ্যাঙ্করেজ কারেকশনাল কমপ্লেক্সে মূলত শূকরের মাংস ও চর্বি দিয়ে রান্না করা খাবার বন্দিদের মাঝে সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

কক্সবাজারে সোয়া ৩ কোটি টাকার ইয়াবাসহ ১০ শুটিং সদস্য আটক
                                  
  
চঞ্চল দাশগুপ্ত,কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ
এবার দেশের চলচ্চিত্র জগতকেও গ্রাস করেছে ভয়ঙ্কর মাদক ইয়াবা।পর্যটন শহর কক্সবাজার যেকোন চলচ্চিত্র ও নাটক নির্মাণ বা আউটডোর শুটিংয়ের জন্য প্রথম পছন্দের স্থান। আর দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজারে শুটিংয়ের আড়ালে কিছু অসাধু চক্র ইয়াবা ব্যবসায় জাল বিস্তার করেছে।এভাবে রাজধানীর বিভিন্ন আন্ডারগ্রাউন্ড প্রোডাকশন হাউস কক্সবাজারে শুটিং করার নামে ইয়াবা পাচার করে যাচ্ছে।এরই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজারস্থ র‌্যাব-৭ দীর্ঘদিন অনুসন্ধানের পর একটি চক্রকে সনাক্ত করতে সক্ষম হয়।র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, ২৩মে বুধবার দুপুরে কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনখ্যাত কলাতলী থেকে ৩ কোটি ২৪ লক্ষ টাকার ১ লক্ষ ৮ হাজার পিচ ইয়াবা সহ ‘সরকার প্রোডাকশন হাউস’ নামে একটি শুটিং টিমের ১০ সদস্যকে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা।বুধবার এক ক্ষুদে বার্তায় কক্সবাজারস্থ র‌্যাব-৭ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর রুহুল আমিন জানান,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরের কলাতলী থেকে মিউজিক ভিডিও নির্মাণ সংস্থা ‘সরকার প্রোডাকশন হাউস’র শুটিং টিমের ১০জনের একটি ভয়ংকর চক্রকে ইয়াবা সহ আটক করা হয়।এসময় তাদের কাছ থেকে ১ লক্ষ ৮ হাজার পিচ ইয়াবা ও একটি মাইক্রোবাস জব্ধ করা হয়।যার বাজার মূল্য ৩ কোটি ২৪ লক্ষ টাকা। এছাড়া আটক করা হয় রাজশাহী ভিত্তিক মাদক চক্রের প্রধান আসলাম সরকার (৪০), তার শুটিং টিমের আরো আট সদস্য এবং ড্রাইভার মাসুদ রানাকে (৩২)।তিনি আরও জানান,প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিভিন্ন সময়ে শুটিং করার নাম করে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা পাচার করত।তিনি আটকৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর সংশ্লিষ্ঠ ধারায় মামলা করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় সোপর্দ করা হবে বলে জানান।

 

নন্দনসারে অসহায় বিধবার বসত ভিটে দখলের পায়তারা করছে মামলাবাজ ওহাব চোকদার
                                  

আহমেদ রকিশরীয়তপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
নড়িয়া উপজেলা ঘরিসার ইউনিয়ন নন্দনসার গ্রামে নজরুল ইসলাম হাওলাদারের ৪৫বছর দখলক্রিত বসত বাড়িভিটে তার মৃত্যুর পরে দখলের জন্য একাধিক মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে পাশের বাড়ির মামলাবাজ ওহাব চোকদার। ঘটনার সুত্রে মৃত্যৃ নজরুল ইসলামের ভাই এসকান্দর হাওলাদার বলেন আমার ভাই ওয়ারিশ ও ক্রয় সুত্রে ১০৯ নন্দন সার মৌজারএস এ ২৫/৬৭৭নং দাগ বি আরএস ২১৬নং খতিয়ানের ১১৯৫ নং দাগের ০.১২০০ একর জমি ৪৫বছর ভোগ দথলে। নজরুল ইসলাম হাওলাদরের হঠাৎ মৃতুর পরে পাশের সিমানার ওহাব চোকদার জোর পূর্বক বাস গাছ কেটে নিয়ে যায় ও জমি তার বলে দাবি করে, বাধা দিতে গেলে একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানী করেন বলে দাবী করেন তিনি। অসহায় বিধাব রুনু বেগম( ৫০) বলেন. মামলাবাজ ওহাব চোকদারের মামলার কারণে আমি ছোট ছেলে মেয়ে নিয়ে বাড়িতে থাকতে পারছিনা অসহায় আমাকে দেখার কেউ নেই। এ বিষয়ে জানতে চাইলেওহাব চোকদার বলেন আমি ৬৮ তে পাকিস্তানের আর্মী ছিলাম দেশে না থাকার কারণে আমার ৪৮শতাংশ জমিজমা নজরুল ইসলাম হাওলাদার নিজের নামে রেকর্ড করে দখলে নেন। পরে আমি মামলা করলে ৩৬ শতাংশ জমি ফেরত দেন বাকি ১২শতাংশ জমি ফেরত দিবে বলে দিচ্ছে না জোর করে দখলে আছে তাই আমি মামলা করেছি ।

নড়িয়ায় গাজাকাদির গ্রেুফতার
                                  

রকিআহমেদ শরীয়তপুর ঃ
২২ মে রাত ১২টা ৩০মিঃ নড়িয়া পৌরসভার কুক্ষাত গাজা বিক্রেতা কাদির( ৫৫) কে গোপন তথ্য সুত্রে আটক করেন নড়িয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আইজিপি পদকপ্রাপ্ত ওসি আসলামউদ্দিন। তিনি বলেন মাদক নিয়ন্ত্রন অভিযান চলছে কাদির দীর্ঘ দিন যাবত বিভিন্ন মাদক দ্রব গাজা ক্রয় বিক্রয় করে আসছে। নড়িয়া উপজেলা এপর্যন্ত অনেক মাদক ইয়াবা সম্রাটদের আমরা নড়িয়া থানা পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়েছি এবং এ অভিযান মাদক র্নিমূল না হওয়া পর্যন্ত চলবে।

স্বর্ণের দোকান ডাকাতিতে আসামিরা ধরা ছোয়ার বাহিরে
                                  

ক্রাইম রিপোর্টার,  পটুয়াখালী :

পটুয়াখালীর গলাচিপায় কর্মকার পট্টিতে‘মা স্বর্ণ শিল্পালয় এ্যান্ড জুয়েলারী’ নামের স্বর্ণের দোকানে চাঞ্চল্যকর ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকা শীর্ষ ডাকাত নান্নু সিকদারকে (৩৫) গ্রেফতার করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হুমায়ুন কবীর। নান্নু সিকদার ওই গ্রামের মুনসুর সিকদারের ছেলে। গত (২৩মার্চ) রাতে ঝালকাঠি জেলার  রাজাপুর উপজেলার নৈকাঠি গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে। শনিবার বিকালে গলাচিপা থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এসআই হুমায়ুন কবীর জানান, গ্রেফতার হওয়া দুই ডাকাত মোঃ কিবরিয়া ও কামরুল ইসলাম ওরফে কামালের দেয়া স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে নান্নু সিকদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে স্বর্ণ দোকান লুট/ ডাকাতি হওয়া কোন স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা যায়নি । তবে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এখন পর্যন্ত থানা পুলিশ তিনজন ডাকাত গ্রেফতার হয়েছে। উল্লেখ্য, গত ১৭ ফ্রেব্রুয়ারী শনিবার রাত সাড়ে ৭:৩০ টার দিকে ৭/৮ জন ডাকাত হাতবোমা ফাটিয়ে হামলা করে এবং এসিড ও রামদার কোপে দোকানের মালিকসহ আরও ১০ জন আহত হন। এ সময় জনতার সহযোগীতায় দুইজন ডাকাতকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দোকান মালিক নির্মল কর্মকার ৬ জন ডাকাতের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৩১ লাখ টাকার স্বর্ণালঙ্কার লুটের অভিযোগ করা হয়। অনুসন্ধানে আরও জানা যায়, ডাকাতদের মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে এবং মোটর সাইকেল যার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছিল। কিন্তু ৭/৮ ঘন্টা পরে প্রভাবশালীদের ফোনে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়্ । জনপদে এখন প্রশ্ন একটাই ছেড়ে দেওয়ার কারণে মনে হয় ডাকাতি মামলার ডাকাতদের চিহ্নিত করতে পারবে না পুলিশ। 

গোপালগঞ্জে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার ৩৮
                                  

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে বিশেষ অভিযানে ৩৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাত থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়।
গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার ইনচার্জরা জানান, জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী অভিযান চালানো হয়। এ সময় গোপালগঞ্জ সদর থানায় ১২ জন, কাশিয়ানী থানায় ৬ জন, কোটালীপাড়া থানায় ৮ জন, মুকসুদপুর থানায় ৭ জন ও টুঙ্গিপাড়া থানায় ১ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
গ্রেফতারদের মধ্যে মাদক, নিয়মিতসহ বিভিন্ন মামলা ও ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামি রয়েছে। সোমবার এদেরকে আদালতে হাজির করা হয় বলে সংশ্লিষ্ট থানার ওসিরা জানিয়েছেন।

৯ বছরে কোনও অগণতান্ত্রিক আইন পাস করেনি সরকার : তথ্যমন্ত্রী
                                  

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, সরকার গত ৯ বছরে কোনও অগণতান্ত্রিক আইন তৈরি করেনি, বরং গণতন্ত্রকে প্রসারিত করার জন্য গণমাধ্যম, টিভি চ্যানেল, কমিউনিটি রেডিও, এফএম রেডিও উন্মুক্ত করে দিয়েছে। বরং
বিএনপি দেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিনষ্টে কাজ করছে বলে অভিযোগ করেন তথ্যমন্ত্রী।

রোববার ‘ভিজিট বাংলাদেশ প্রোগ্রাম’ এর আওতায় বাংলাদেশ সফররত ২৫ জন বিদেশি সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি দেশের সর্বোচ্চ দুর্নীতিগ্রস্ত দল মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বললেন, এ কারণে মানুষ তাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। এই দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নিজের দুর্নীতির কারণেই সাজা ভোগ করছেন।

তথ্যমন্ত্রী মনে করেন, ২০১৮ সালে সরকারের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে গ্রহণযোগ্য ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করা।

হাসানুল হক ইনু বলেন, বাংলাদেশ জঙ্গি দমনে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে। গত ৯ বছরে সরকার যে উন্নয়ন করেছে তারই ফসল হিসেবে স্বল্পোন্নত দেশের গণ্ডি পেরিয়ে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ।

আপনারা বারবার আসলে আমাদের লজ্জা লাগে : প্রধান বিচারপতি
                                  

ভবন ভাঙতে বারবার সময় চাওয়ায় বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) আইনজীবীর উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আপনারা তো বারবার আসেন। আপনার নিজেরাও তো বিষয়টি নিয়ে আদালতে দাঁড়াতে দ্বিধা হওয়ার কথা। আমাদের লজ্জা লাগে।

ইউ আর প্লেয়িং উইথ কোর্ট অর্ডার (আপনারা আদালতের আদেশ নিয়ে খেলছেন)। এটা সো আনফরচনেট (এটা খুবই অপ্রত্যাশিত) বলেও জানান আদালত।

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হয়। শুনানির শুরুতে প্রধান বিচারপতি এ কথা বলেন।

এরপর বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে এক বছর সময় চাওয়ায় তাদের মুচলেকা জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে মুচলেকা পেলে বিজিএমইএ ভাবন ভাঙতে সময় দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

আদালতে বিজিএমইএ’র পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী কামরুল হক সিদ্দিকী। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী ইমতিয়াজ মইনুল ইসলাম। এছাড়া রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকের (রাজউক) পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে ২৫ মার্চ বিজিএমইএ’র পক্ষ থেকে ভবন ভাঙতে এক বছর সময় চেয়ে আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়। সেই আবেদনের শুনানি নিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ বিজিএমইএ’র আবেদনের ওপর আদেশের জন্য মঙ্গলবার (২৭ মার্চ) দিন নির্ধারণ করেছিলেন।

গত বছরের ৫ মার্চ আপিল বিভাগ বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে (রিভিউ) করা আবেদন খারিজ করে দেন। তখন ভবন ভাঙতে কত দিন সময় লাগবে, তা জানিয়ে আবেদন করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত। পরে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ ভবন সরাতে তিন বছর সময় চেয়ে আবেদন করেন।

ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে ২০১৭ সালের ৮ এপ্রিল বিজিএমইএ ভবনটি ভাঙতে কর্তৃপক্ষকে সাত মাস সময় দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।

এরপরও বিজিএমইএ ফের আবেদন করায় পুনরায় ছয় মাস সময় দেন আপিল বিভাগ। গত বছরের ৩ ডিসেম্বর আদালত এ আদেশ দেন। আদালতের ওই সময় মঞ্জুরের পর চলতি বছরের ২৫ মার্চ পুনরায় এক বছর সময় চেয়ে আবেদন করেন ভবন কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ৩ এপ্রিল হাইকোর্টের রায়ে বিজিএমইএ ভবন ভাঙার নির্দেশ দেওয়া হয়।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ভোটগ্রহণ চলছে
                                  
পেশাজীবীদের সবচেয়ে বৃহত্তর সংগঠন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দুদিনব্যাপী নির্বাচন আজ বুধবার শুরু হয়েছে। সকাল ১০টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এক ঘণ্টার বিরতিসহ ভোট গ্রহণ চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। সভাপতি ও সম্পাদকসহ সমিতির ১৪টি পদে ৩৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবারের নির্বাচনে ভোটার রয়েছেন ৬ হাজার ১২৫ জন। 
 
নির্বাচনে সরকার সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ (সাদা প্যানেল) থেকে সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট শেখ মো. মোরশেদ এবং বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য (নীল) প্যানেল থেকে সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও সম্পাদক পদে ব্যারিস্টার এম মাহবুবউদ্দিন খোকন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মূলত এই দুই প্যানেলের মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। 
 
এই দুটি প্যানেলের বাইরে গিয়ে সভাপতি পদে শাহ মো. খসরুজ্জামান ও ইউনুস আলী আকন্দ, সম্পাদক পদে মোহাম্মদ আবুল বাসার ও সদস্য পদে তাপস কুমার দাস নির্বাচনে লড়ছেন। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান হলেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট এওয়াই মশিউজ্জামান। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে এ ভোট উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
তনু হত্যার ২ বছরেও মামলার চার্জশিট জমা হয়নি
                                  

কুমিল্লার বহুল আলোচিত সোহাগী জাহান তনু হত্যার ২ বছর পূর্ণ হয়েছে আজ মঙ্গলবার।

২০১৬ সালের ২০ মার্চ সন্ধ্যায় কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরে খুন হয় তনু। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের ছাত্রী তনুর চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার দুই বছরেও আদালতে চার্জশিট জমা দিতে পানি মামলার তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি। দীর্ঘ ২ বছরেও শনাক্ত হয়নি তনুর খুনিরা। ঠিক কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে এ ব্যাপারটিও স্পষ্ট হয়নি আজও। পর দিন ২১ মার্চ তার বাবা ইয়ার হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে কোতয়ালী মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি কুমিল্লা কোতয়ালী থানা পুলিশ তদন্ত করে। পরে পুলিশ জেলা গোয়েন্দ বিভাগের (ডিবি’র) কাছে হস্তান্তর করে মামলাটি। এরপর ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ সন্ধ্যায় জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) থেকে মামলাটি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে মামলাটি তারাই তদন্ত করছে। ঘটনা তদন্তে র‌্যাব ও পুলিশসহ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা মাঠে নামে।

তনুর দুই দফা ময়নাতদন্তেও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফরেনসিক বিভাগ মৃত্যুর সুস্পষ্ট কারণ উল্লেখ করতে পারেনি। শেষ ভরসা ছিল ডিএনএ রিপোর্ট।

২০১৭ সালের মে মাসে সিআইডি তনুর জামা-কাপড় থেকে নমুনা নমুনা সংগ্রহ করে এর ডিএনএ পরীক্ষা করে। এতে ৩ জন পুরুষের শুক্রানু পাওয়ার কথা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিল। পরে সন্দেহভাজনদের ডিএনএ ম্যাচিং করার কথা থাকলেও তা করা হয়েছে কিনা- এ নিয়েও গণমাধ্যমের কাছে মুখ খুলেনি সিআইডি।

তনু হত্যা মামলার তদন্তের স্বার্থে ২০১৬ সালের ৯ এপ্রিল দ্বিতীয় ধাপে তৃতীয়বারের মতো ক্যান্টনম্যান্ট বোর্ডের এক্সিকিউটিভ সিইও মনিরুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এরপর আরো দু’একজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তনু হত্যা মামলা তদন্ত সহায়ক দলের প্রধান সিআইডি ঢাকার বিশেষ পুলিশ সুপার আব্দুল কাহার আকন্দ পিপিএম এর নেতত্বাধীন তদন্ত দল।

এদিকে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর ঢাকা সিআইডি কার্যালয়ে তনুর বাবা ইয়ার হোসেন, মা আনোয়ারা বেগম, চাচাতো বোন লাইজু ও চাচাতো ভাই মিনহাজকে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিআইডির কর্মকর্তারা।

সর্বশেষ গতকাল ১৯ মার্চ সোমবার তদন্তকারী সংস্থা সিআইডির কুমিল্লা কার্যালয়ে গেলে মামলার বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি কেউ।

এদিকে মামলার অগ্রগতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবী বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির সদস্য অ্যাডভোকেট আয়েশা বেগম শিরিন এবং কুমিল্লা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের একটি জঙ্গল থেকে তনুর লাশ পাওয়া যায়। তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। ২১ মার্চ তনুর হত্যার খবর ছড়িয়ে পড়লে তার সহপাঠী থেকে শুরু করে কুমিল্লার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এবং সংগঠন বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। পরবর্তীতে সারা দেশব্যাপী আন্দোলনে রূপ নেয় এটি। এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় দোষীদের শাস্তির দাবিতে সারাদেশে চলে বিক্ষোভ।

এদিকে, হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় হওয়াতে বেশি স্পর্শকাতর হয়ে পড়েছে। তবে সপ্তাহখানেক পরে সেনা সদরদপ্তর থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, তারাও তনুর ঘটনায় অত্যন্ত মর্মাহত। এ ব্যাপারে দায়িত্বপ্রাপ্তদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করারও আশ্বাস দেয়া হয়।

পুলিশ প্রাথমিকভাবে এটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে অনুমান করলেও তনুর ময়নাতদন্ত কিংবা ডিএনএ রিপোর্টে ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।

রায় প্রত্যাশিত, মামলা নিয়ে রাজনীতি করবেন না : অ্যাটর্নি জেনারেল
                                  

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আপিল বিভাগের রায় প্রত্যাশিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেছেন, আগামী নির্বাচনে বেগম জিয়া অংশ নিতে পারবেন কি না তা নির্ভর করছে আপিল নিষ্পত্তির উপর। এ সময় বেগম জিয়ার আপিলের বিষয়টি নিয়ে তার আইনজীবীদের রাজনীতি না করার আহ্বান জানান তিনি।

আজ সোমবার নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মলনে তিনি এসব কথা বলেন।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে সকল সুযোগ-সুবিধা দিয়ে, তার সমস্ত বক্তব্য শুনে আদালত এ দণ্ড প্রদান করেছেন। সেই দণ্ড প্রদানের ক্ষেত্রেও আদালত যে কতটা মহানুভবতার প্রমাণ দিয়েছেন এবং ন্যায়ের প্রতি তার নিষ্ঠার পরিচয় দিয়েছেন সেটাতেই প্রমাণ পায়। তার সামাজিক মর্যাদা, তার বয়স ইত্যাদি বিবেচনা করেই আদালত তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন, যদিও অন্যদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, আপিল বিভাগের চারজন বিচারপতি সর্বসম্মতিক্রমে এই মামলাটি শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন এবং লিভ গ্রান্ট করেছেন। সেই সঙ্গে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে আপিলের সার সংক্ষেপ আদালতে জমা দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন। তার দুই সপ্তাহ পরে আসামিপক্ষকে তার সার সংক্ষেপ জমা দাখিল করার আদেশ দিয়েছেন।

মাহবুবে আলম বলেন, আদালত এই আপিলের শুনানি প্রথমে ২২ মে ধার্য করেছিলেন। পরবর্তীতে বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে ৮ মে তারিখে নির্ধারণ করেছেন।

আদেশ কিছুটা নজিরবিহীন: মওদুদ
                                  
বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, আপিল বিভাগের আদেশ কিছুটা নজিরবিহীন। এ ধরনের আদেশ কখনো শুনিনি, প্রত্যাশাও করিনি।
 
তিনি বলেন, সর্বোচ্চ আদালত আদেশ  দিয়েছে এখন আইনি লড়াই ছাড়া বিকল্প নেই। আরেকটি হচ্ছে রাজপথের আন্দোলন। সেটি তো সুপ্রিম কোর্টে করতে পারব না। তবে আমরা যারা আইনজীবী আছি তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো তার কারামুক্তি করাতে।
 
আজ সোমবার আপিল বিভাগের আদেশর পর মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদেরকে এসব কথা বলেন।
সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ বহাল, রিট খারিজ
                                  
নিজ দলের বিপক্ষে ভোটদান করলে সংসদ সদস্য পদ শূন্য সংক্রান্ত সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়েরকৃত রিট আবেদন খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্ট। বিচারপতি আবু তাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমানের একক বেঞ্চ আজ রবিবার এ রায় দেন।
 
এর আগে হাইকোর্টের একটি ডিভিশন ৭০ অনুচ্ছেদের বৈধতার প্রশ্নে দ্বিধাবিভক্ত আদেশ দিয়েছিলেন। বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের প্রশ্নে রুল জারি করে করেন। আর কনিষ্ঠ বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল রিটটি সরাসরি খারিজ করে দেন। এরপর প্রধান বিচারপতি মামলাটি নিষ্পত্তির জন্য হাইকোর্টের একক বেঞ্চে পাঠান। আজ আদালত ওই রিট আবেদনের উপর কোনো রুল জারি না করেই খারিজ করে দেন।
 
আবেদন করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ।
৪ মাসের জামিন পেলেন খালেদা জিয়া
                                  
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট। বয়স ও শারীরিক অসুস্থতার বিষয়টি বিবেচনা নিয়ে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করে।   
 
আজ সোমবার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। একইসঙ্গে আপিল শুনানির জন্য মামলার পেপারবুক প্রস্তুত করতে হাইকোর্টের সংশ্লিস্ট শাখাকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 
 
গতকাল রবিবার খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আদেশ দেয়ার দিন ধার্য ছিল। তবে নির্ধারিত সময়ে নথি না আসায় আদালত আদেশের জন্য আজকের দিন ধার্য করে।
 
গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালতে খালেদা জিয়ার সাজার রায় হয়। দুর্নীতির দায়ে সাবেক খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয় নিম্ন আদালত।
 
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।
 
জাফর ইকবালের নিরাপত্তায় ত্রুটি ছিল না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

রোববার রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের নাজনীন স্কুল অ্যান্ড কলেজে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ দাবি করেন।

মন্ত্রী বলেন, ঘটনাস্থলে নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না। ত্রুটি থাকলে হামলাকারী ধরা পড়তো না। হামলাকারী ধরা পড়েছে, তার কাছে হামলার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারব।

ছাত্র না হওয়ার পরও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে কিভাবে হামলাকারী ঘটনাস্থলে প্রবেশ করেছে- এ বিষেয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘বিষয়টি তদন্তাধীন, আমরা তদন্ত করে দেখছি। তারপর বিস্তারিত জানা যাবে।’

কোনো উগ্রবাদী গোষ্ঠী হামলা চালিয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ জন্য আপনাদের আরেকটু অপেক্ষা করতে হবে। তার জবানবন্দিটা নিয়ে নেই। কেন বা কারা এই হামলা করেছে জানতে পারব।

হামলাকারী সম্পর্কে তিনি বলেন, যতোটুকু জানতে পেরেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই তার একটা কম্পিউটারের দোকান ছিল। সে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে, তার কাছে হামলার উদ্দেশ্য জানতে পারব।

শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শাবি ক্যাম্পাসে ওই বিশ্ববিদ্যালয়েরই অধ্যাপক জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত করে ফয়জুর রহমান ফজলু নামে এক যুবক। ঘটনার পর রক্তাক্ত অবস্থায় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) আনা হয় তাকে।

শনিবার রাত ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মুরশেদ আহমেদ জানান, জাফর ইকবাল শঙ্কামুক্ত। হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. ডি এ হাসান চৌধুরী জানিয়েছেন, জাফর ইকবালের মাথা, বাম হাত ও পিঠে ৩৮টি সেলাই দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে তার মাথায় ২৬টি, বাম হাতে ৬টি এবং পিঠের বাম পাশে আরও ৬টি সেলাই দেয়া হয়েছে।


   Page 1 of 10
     আইন শৃংখলা
এবারের ঈদে বড় ধরনের অপরাধ হয়নি : ডিএমপি কমিশনার
.............................................................................................
কারাগারে ইফতারে শূকরের মাংস না দেয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
কক্সবাজারে সোয়া ৩ কোটি টাকার ইয়াবাসহ ১০ শুটিং সদস্য আটক
.............................................................................................
নন্দনসারে অসহায় বিধবার বসত ভিটে দখলের পায়তারা করছে মামলাবাজ ওহাব চোকদার
.............................................................................................
নড়িয়ায় গাজাকাদির গ্রেুফতার
.............................................................................................
স্বর্ণের দোকান ডাকাতিতে আসামিরা ধরা ছোয়ার বাহিরে
.............................................................................................
গোপালগঞ্জে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার ৩৮
.............................................................................................
৯ বছরে কোনও অগণতান্ত্রিক আইন পাস করেনি সরকার : তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
আপনারা বারবার আসলে আমাদের লজ্জা লাগে : প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ভোটগ্রহণ চলছে
.............................................................................................
তনু হত্যার ২ বছরেও মামলার চার্জশিট জমা হয়নি
.............................................................................................
রায় প্রত্যাশিত, মামলা নিয়ে রাজনীতি করবেন না : অ্যাটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
আদেশ কিছুটা নজিরবিহীন: মওদুদ
.............................................................................................
সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ বহাল, রিট খারিজ
.............................................................................................
৪ মাসের জামিন পেলেন খালেদা জিয়া
.............................................................................................
জাফর ইকবালের নিরাপত্তায় ত্রুটি ছিল না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
আপিল নিয়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের বৈঠক
.............................................................................................
ভুলে গুলি ছুটে এপিবিএন সদস্য আহত
.............................................................................................
খালেদা জিয়াকে ২৫ মার্চ আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে হাইকোর্টের রুল
.............................................................................................
রায়ের পরে বেগম জিয়ার জনসমর্থন শতভাগে পৌঁছেছে
.............................................................................................
আদালতের পথে খালেদা জিয়া, গাড়ি বহরে শত শত নেতাকর্মী
.............................................................................................
দেশের বিভিন্ন স্থানে বিজিবি মোতায়েন
.............................................................................................
সাজা হলে খালেদাকে নেওয়া হতে পারে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে
.............................................................................................
এসি শ্যামপুর ,পদন্নতি পেয়ে ওয়ারী ডিভিসন এর এডিসি
.............................................................................................
‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগেই নিখোঁজ ৩ জন গ্রেফতার’
.............................................................................................
হুমকি বিবেচনায় ইজতেমায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় র‌্যাব
.............................................................................................
রংপুরে কমছে না শীতের দাপট
.............................................................................................
সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৩
.............................................................................................
নিরাপত্তার স্বার্থেই খালেদা জিয়ার মামলা স্থানান্তর: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
আটপাড়ায় হত্যা মামলার আসামি গাঁজাসহ চারজন আটক
.............................................................................................
‘সময়মতো উকিল নোটিশের জবাব দেওয়া হবে’
.............................................................................................
আইনজীবীকে সাজা দেয়ার ব্যাখ্যা দিতে হাইকোর্টে হাজির এসিল্যান্ড
.............................................................................................
নেত্রকোনায় ইয়াবাসহ বৃদ্ধা আটক
.............................................................................................
আদালতে খালেদা জিয়া
.............................................................................................
পেটে গজ রেখে সেলাই: ক্ষতিগ্রস্ত মাকসুদা ৯ লাখ টাকা পাবেন
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের থেকে অতিরিক্ত টাকা নেয়া যাবে না : হাইকোর্ট
.............................................................................................
বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি : গেজেট নিয়ে আদেশ ২ জানুয়ারি
.............................................................................................
বন্ধুর হাতে খুন : ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড, দু’জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
আইন করে বিএনপিকে নির্বাচনে আনার প্রশ্নই ওঠে না: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
শৃঙ্খলাবিধির গেজেটে আরও ৩ দিন সময়
.............................................................................................
যুদ্ধাপরাধের ৩০তম রায়ের অপেক্ষা, আপিলে ৩ মামলা শুনানির কার্যতালিকায়
.............................................................................................
লেকহেড স্কুলের কয়েকজন সিরিয়ায় আইএস’র সঙ্গে যুক্ত: অ্যাটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
জামিনের জন্য আত্মসমর্পন করবেন খালেদা জিয়া: আইনজীবী
.............................................................................................
বিচারকদের শৃংখলাবিধি : গেজেট প্রকাশে ফের সময়
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল, গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
তারা আপিল করতে পারবেন
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ৫ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
পিলখানা হত্যা মামলা : রায় পড়া চলছে
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর ভাষণের স্বীকৃতিতে আনন্দ শোভাযাত্রা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক : জাকির এইচ. তালুকদার ,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এস এইচ শিবলী ,
    [সম্পাদক মন্ডলী ]
সম্পাদক কর্তৃক ২ আরকে মিশন রোড থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ০১৫৫৮০১১২৭৫, ই-মেইল:dailybortomandin@gmail.com
   All Right Reserved By www.dtvbangla.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]