| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
   * সুযোগ আছে বিএসসি অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে   * উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গী ....ড. এফ এইচ আনসারী   * সবার মতামত নিয়েই গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ব্যবস্থা :প্রধানমন্ত্রী   * ডুবোচরে আটকে আছে ১৫টি মালবাহী জাহাজ   * নিম্নকক্ষে নিয়ন্ত্রণ হারালেন ট্রাম্প   * শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব ---ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা   * আমার সংসার টিকে আছে এইতো বেশি   * গোপালগঞ্জে মোবাইলে প্রেমের ফাঁদ চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার   * সাটুরিয়ায় দলিল হাতে ঘুরছে ভূমিহীন ২০ পরিবার   * এ্যরোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পেশায় আসতে চাইলে  

   বিশেষ খবর -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নাটোরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহতের ঘটনায় মামলা

অনলাইন ডেস্ক:
নাটোরের লালপুরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় মামলা হয়েছে। রবিবার সকালে বনপাড়া হাইওয়ে থানার সহকারী উপপরিদর্শক ইউছুফ আলী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।
মামলায় সাতজনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিরা হলেন- দুর্ঘটনা কবলিত লেগুনার মালিক, চালক, সহকারী, লেগুনা মালিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং বাসের চালক ও মালিককে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে লেগুনা চালক ও তার সহকারী দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।
প্রসঙ্গত, নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় বাস ও লেগুনার সংঘর্ষে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ২০ জন। শনিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার ক্লিক মোড়ে নাটোর-পাবনা মহাসড়কে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী।

নাটোরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহতের ঘটনায় মামলা
                                  

অনলাইন ডেস্ক:
নাটোরের লালপুরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় মামলা হয়েছে। রবিবার সকালে বনপাড়া হাইওয়ে থানার সহকারী উপপরিদর্শক ইউছুফ আলী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।
মামলায় সাতজনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিরা হলেন- দুর্ঘটনা কবলিত লেগুনার মালিক, চালক, সহকারী, লেগুনা মালিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং বাসের চালক ও মালিককে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে লেগুনা চালক ও তার সহকারী দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।
প্রসঙ্গত, নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় বাস ও লেগুনার সংঘর্ষে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ২০ জন। শনিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার ক্লিক মোড়ে নাটোর-পাবনা মহাসড়কে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী।

ডাকাতি রোধে মহাসড়কের জঙ্গল পরিষ্কার করলো এলাকাবাসী
                                  
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি:
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় ডাকাতি রোধে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের দুই পাশের জঙ্গল স্বেচ্ছায় পরিষ্কার অভিযান শুরু হয়েছে। মুকসুদপুর উপজেলার কানুরিয়া পল্লীমঙ্গল ক্লাবের উদ্যোগে পরিষ্কার অভিযান শুরু করা হয়। ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মুকসুদপুর উপজেলার রাঘদী থেকে দিগনগর পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটারে প্রতিনিয়তই ডাকাতি, ছিনতাই ও খুনের ঘটনা ঘটে। রবিবার দুপুরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের দুই পাশের জঙ্গল স্বেচ্ছায় পরিষ্কার অভিযানে মুকসুদপুরের সিন্দিয়াঘাট পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক আলমগীর হোসেন, দিগনগর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মোহাম্মদ আলী, রাঘদী ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, এএসআই ইসলাম সরদার, কানুরিয়া পল্লীমঙ্গল ক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেনসহ ক্লাবের সদস্যরা ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন। এলাকাবাসী জানায়, ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের দুই পাশের ফাঁকা জায়গা বন-জঙ্গলে ঘেরা থাকায় ডাকাতরা বিভিন্ন যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের উপর হামলা করে মূল্যবান সম্পদ ডাকাতি করে আসছে। সড়কের দুই পাশের জঙ্গল পরিষ্কার করলে ডাকাতিরোধ করা সসম্ভব হবে। তাই এলাকাবাসী পরিষ্কার অভিযানে অংশ নিয়েছে। কানুরিয়া পল্লীমঙ্গল ক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেন জানান, বিগত এক বছরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের রাঘদী থেকে দিগনগর পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার এলাকা ফাঁকা ও বন-জঙ্গল ঘেরা। ডাকাতরা ডাকাতির আগে সড়কের পাশের জঙ্গলের মধ্যে লুকিয়ে থাকে। পরে সুযোগ পেয়ে পথচারী, বাস, ট্রাক চালকদের উপর হামলা চালায়। ফলে এখানে প্রায় সময় ডাকাতি, ছিনতাই ও খুনের ঘটনা ঘটে। তাই ডাকাতিরোধে মহাসড়কের দুই পাশের জঙ্গল স্বেচ্ছায় পরিষ্কার অভিযানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সিন্দিয়াঘাট পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক আলমগীর হোসেন জানান, কানুরিয়া পল্লীমঙ্গল ক্লাব যে উদ্যোগ নিয়েছে, তা প্রসংশনীয়। পুলিশ তাদের সঙ্গে থেকে অভিযান সফলের চেষ্টা করছে।

 

এইচএসসির ফল জানা যাবে যেভাবে
                                  

প্রতিবারের মতো এবারও শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি মোবাইল ফোনেও জানা যাবে এই ফল।

শিক্ষার্থীরা নিজ স্কুল, মোবাইল এসএমএস ও ওয়েবসাইটের (www.educationboardresults.gov.bd) মাধ্যমে ফল জানতে পারবে।

আটটি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডের এইসএসসি পরীক্ষার্থী মোবাইলের মাধ্যমে ফল পেতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানা যাবে।

মাদ্রাসা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে MAD স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে।

কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে TEC লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানা যাবে।

আজ সকাল ১০টার পর গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

মাদ্রাসা, কারিগরিসহ ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীন উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার পাসের হার ৬৬ দশমিক ৬৪। মোট জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৯ হাজার ২৬২ জন শিক্ষার্থী।

মেক্সিকোর নতুন প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন বামপন্থী লোপেজ অবরাদোর
                                  

মেক্সিকোতে রবিবার অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন বামপন্থী প্রার্থী আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ অবরাদোর। বুথ ফেরত ভোটের জরিপ থেকে এ তথ্য জানা যায়। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

খবরে বলা হয়, মেক্সিকো সিটির সাবেক মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন অবরাদোর। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট তিনটি প্রতিষ্ঠান তার জয়লাভের কথা জানিয়েছে।

সংবাদপত্র এল ফিনানসিরোর বুথ ফেরত জরিপে বলা হয়, অবরাদোর ৪৯ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে রক্ষণশীল দলের প্রার্থী রিকার্ডো আনায়া ২৭ শতাংশ এবং ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী জোসে অ্যান্তোনিও মিয়াদে মাত্র ১৮ শতাংশ ভোট পেয়েছেন।

নির্বাচন সংস্থা মিতোফস্কি ও স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশন ক্যাবিনেট বুথ ফেরত ভোটের জরিপে প্রায় একই ধরনের ফলাফল জানিয়েছে। সকল প্রতিষ্ঠানই তাদের জরিপে এ প্রথম দফার নির্বাচনে ৪০ শতাংশের বেশী ভোট পেয়ে লোপেজ অবরাদোর বিজয়রে কথা জানিয়েছে।

মুসলিম দেশের ওপর ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সুপ্রিম কোর্টে বহাল
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দেওয়া ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল মঙ্গলবার এক রায়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, এই নিষেধাজ্ঞা ধর্মের ভিত্তিতে করা হয়নি। কয়েকটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এই রায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য এক বিরাট জয় বলে মনে করা হচ্ছে। খবর সিএনএন ও রয়টার্সের

মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে ৯ জন বিচারপতি আছেন। এদের মধ্যে প্রধান বিচারপতি জন রবার্টসহ ৫ জন রক্ষণশীল বিচারপতি নিষেধাজ্ঞার পক্ষে এবং উদারপন্থী ৪ জন বিপক্ষে রায় দেন। গত বছরের সেপ্টেম্বরে তৃতীয়বারের মতো সাতটি মুসলিম দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তালিকায় আছে- ইরান, উত্তর কোরিয়া, সিরিয়া, লিবিয়া, ইয়েমেন, সোমালিয়া এবং ভেনিজুয়েলা। প্রথমে চাঁদও নিষেধাজ্ঞার আওতাভুক্ত ছিল। পরে দেশটির নাম বাদ দেওয়া হয়।
প্রধান বিচারপতি রবার্টস লিখেছেন, প্রেসিডেন্ট তার ক্ষমতাবলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রশংসা করেছেন। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে এই বার্তা পাওয়া গেল যে, অভিবাসন আইন অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অনেক কিছু করার ক্ষমতা আছে। হাওয়াই রাজ্য এবং অন্যান্যরা ধর্মীয় বিদ্বেষের যে কথা বলেছিলেন তাও নাকচ করে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

বাদীরা নিষেধাজ্ঞাকে প্রেসিডেন্টের কর্তৃত্ব বহির্ভূত এবং মার্কিন সংবিধানের লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছিলেন। কিন্তু প্রধান বিচারপতি বলেছেন, এটা ঠিক নয়। তবে চার বিচারপতি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে সংবিধান বহির্ভূত বলে উল্লেখ করেছেন।

জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাহার
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক পরিষদ (ইউএনএইচআরসি) থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। জাতিসংঘের শীর্ষ মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থাটির বিরুদ্ধে ‘রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের’ অভিযোগ এনে এমন ঘোষণা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো ও বিশ্ব নেতারা। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।
খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি ইউএনএইচআরসি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বের হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান। সংস্থাটির ১২ বছরের ইতিহাসে এমন ঘটনা এটাই প্রথম।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা এই পদক্ষেপ নিচ্ছি, কেননা, আমাদের প্রতিশ্রুতি আমাদেরকে এমন ভণ্ডামীপূর্ণ ও স্বার্থপর সংগঠনের থাকার অনুমোদন দেয়না। এসময় তিনি বলেন, ইউএনএইচআরসি মানবাধিকার নিয়ে উপহাস করছে।
হ্যালির ঘোষণা দেয়ার কয়েক মিনিট পরেই জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই-কমিশনার জেইদ রাদ আল হুসেইন, ট্রাম্প প্রশাসনের এই ঘোষণাটিকে ‘অবাক করা না হলেও, হতাশাজনক’ বলে বর্ণনা করেন।
তিনি বলেন, বর্তমান দুনিয়ায় মানবাধিকার পরিস্থিতি বিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্রের উচিত এদিকে এগিয়ে আসা, পেছনে যাওয়া নয়।
ইউরোপীয় দেশগুলোর জোট ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন(ইইউ) বলেছে, এই পদক্ষেপ, বিশ্বমঞ্চে, গণতন্ত্রের সমর্থক ও ‘চ্যাম্পিয়ন’ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা খর্ব করার ঝুঁকি সৃষ্টি করেছে।
ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী, মার্কিন পদক্ষেপটিকে ‘অনুশোচনীয়’ বলে বর্ণনা করেছেন।
তবে যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপটির প্রশংসা করেছে ইসরাইল। তারা ওয়াশিংটনের, ইউএনএইচআরসি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়াকে একটি ‘সাহসী’ পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করেছে।
ইউএনএইচআরসি, অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনিদের হত্যা বিষয়ে তদন্তের পক্ষে ভোট দেয়ার এক মাসের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সংস্থাটি ছেড়ে যাওয়ার ঘোষণা দিল। হ্যালি বিষয়টি নিয়ে বলেন, এই পদক্ষেপের মানে এই না যে, আমরা আমাদের মানবাধিকার বিষয়ক প্রতিশ্রুতিগুলো থেকেও সরে যাচ্ছি। তিনি পরিষদটিকে ‘মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের রক্ষক’ ও রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের একটি মলকুণ্ড’ বলে আখ্যায়িত করেন।
ভেনেজুয়েলা, চীন, কিউবা ও ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গোর প্রসঙ্গ টেনে হ্যালি বলেন, এই পরিষদের সদস্যদের দিকে তাকালেই একেবারে মৌলিক অধিকারগুলোর প্রতি একটি আতঙ্কজনক অসম্মান দেখা যায়।
গত বছর এ পরিষদকে চরম ইসরাইল-বিরোধী বলে আখ্যায়িত করে কড়া সমালোচনা করেছিলেন হ্যালি। বলেছিলেন, এ পরিষদে যুক্তরাষ্ট্রের সদস্যপদ থাকা না থাকার বিষয় পর্যালোচনা করা হচ্ছে।
ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকে এরকম বেশ কয়েকটি বড় ধরণের সংস্থা বা চুক্তি থেকে নিজদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যে রয়েছে, প্যারিস জলবায়ু চুক্তি, ইরানের সঙ্গে পারমাণবিক চুক্তি, ইউনেস্কো, ইত্যাদি। এর মধ্যে ইউনেস্কো থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময়, সংস্থাটিকে ইসরাইল-বিরোধী বলে অভিযোগ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।
জেনেভা-ভিত্তিক ইউএনএইচআরসি গঠিত হয় ২০০৬ সালে। যেসব দেশের মানবাধিকার ইস্যুতে গুরুত্বর রেকর্ড আছে তাদের সদস্যপদ দেয়ার কারণে এ পরিষদের সমালোচনা আছে। কিন্তু সমালোচনা যতই থাক, যুক্তরাষ্ট্র এখন যে অবস্থান নিয়েছে তাতে সারা বিশ্বে যেভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে সে ইস্যুগুলোতে নজরদারি করা ও চিহ্নিত করা খুব কঠিন হয়ে উঠতে পারে।

বিহারে বজ্রপাতে ২৭ জনের মৃত্যু
                                  
ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য বিহারের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে অন্তত ২৭ জনের প্রাণহানি ও আরো অন্তত ৩৪ জন আহত হয়েছে। ভারতের কর্মকর্তারা শনিবার একথা জানান। রাজ্যের সাহারসা, উত্তর দ্বারভাঙ্গা, পূর্ব চম্পারন ও সমস্তিপুর জেলায় এইসব হতাহতের ঘটনা ঘটে। খবর বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র।
পাটনার এক কর্মকর্তা বলেন, ‘বিহারে বজ্রপাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৭ জনে দাঁড়িয়েছে। সাহারসা জেলায় সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এখানে ৮ জন মারা গেছে।’
অল-ইন্ডিয়া রেডিও’র খবরে জানায়, স্থানীয় সরকার নিহতদের পরিবারের সদস্যদের প্রত্যেককে ৫ হাজার ৯২৩ মার্কিন ডলার করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। খবরে বলা হয়েছে, ঝড়ে আম, লিচু ও ভুট্টাসহ অন্যান্য ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সিনহুয়া।
‘বঙ্গবন্ধু-২’-এর প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১-এর ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটেলাইট তৈরির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আজ বুধবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান। আরেক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সাগরের তলদেশ থেকে মহাকাশ পর্যন্ত আমরা বাংলাদেশের মর্যাদাকে উন্নত করেছি। অগ্রযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে, এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই।’
স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
স্বতন্ত্র সাংসদ রুস্তম আলী ফরাজীর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, স্যাটেলাইটের আয়ুষ্কাল ১৫ বছর। একটি স্যাটেলাইট তৈরি করতে পাঁচ-ছয় বছর লেগে যায়। সে জন্য বঙ্গবন্ধু-২ তৈরি করতে এখন থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। দ্বিতীয়টির সময় শেষ হয়ে এলে বঙ্গবন্ধু-৩, এভাবে পর্যায়ক্রমে ধারাবাহিকতা চলবে।
সম্পূরক প্রশ্নে সংরক্ষিত আসনের আওয়ামী লীগদলীয় সদস্য ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পি বিএনপির বক্তব্য তুলে ধরে জানতে চান, ‘স্যাটেলাইটের মালিকানা কার? বিএনপি বলেছে, দুজন ব্যক্তি এই স্যাটেলাইটের মালিক’—জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে দেশে-বিদেশে সব বাঙালি খুশিতে উদ্বেলিত। সব মানুষ যখন এত খুশি, বিএনপির কেন দুঃখ।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্যাটেলাইটের মালিকানা অবশ্যই বাংলাদেশের। সরকার যেভাবে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মালিকানা হয়, সেভাবে বাংলাদেশ সরকারই এর মালিক। তবে এটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে যারা যতটুকু ভাড়া নেবে, তারা ততটুকু মালিক হবে। দুটি ব্যক্তি তো এর মালিক হতে পারে না। এ ধরনের মন্তব্য করাটাও লজ্জাজনক।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু-১-এর ৪০টি ট্রান্সপন্ডার আছে। এর মধ্যে বাংলাদেশের প্রয়োজন হবে ২০টি। বাকি ২০টি সার্কভুক্ত দেশসহ আশপাশের বিভিন্ন দেশের কাছে ভাড়া দেওয়া যাবে। কোনো মানুষের দেশ ও দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা থাকলে এবং স্বাধীনতায় বিশ্বাস করলে ওই ধরনের মন্তব্য করতে পারে না। স্যাটেলাইটের ডিটিএইচ (ডাইরেক্ট টেলিভিশন টু হোম) টেকনোলজি ব্যবহারের জন্য বোধ হয় দুজন ব্যক্তিকে ভাড়া দেওয়া হয়েছে। বিএনপি দুজন মালিক বলতে সেটাকে বুঝছে কি না বোধগম্য নয়। এই ধরনের অর্বাচীনের মতো কথা বলা জাতির কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।...এরা দেশ চালিয়েছে, দেশের উন্নতি হবে কী করে? এরা চালালে দেশ ‍উন্নত হবে না।’
বিএনপির প্রযুক্তি সম্পর্কে কোনো ধারণাই নেই মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘তাদের চিন্তাভাবনা এত সংকীর্ণ যে এই অঞ্চলে যখন সাবমেরিন কেব্‌ল আসে, তখন বিনা পয়সায় দেওয়া হলেও বিএনপি সরকার তথ্য পাচার হবে বলে তা নেয়নি। এই কথা বলে বাংলাদেশকে বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছিল।’
জাতীয় পার্টির সাংসদ ফখরুল ইমামের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্যাটেলাইট ইতিমধ্যে কক্ষপথে পৌঁছে গেছে। সিগনাল দিতে শুরু করেছে। একবার যখন কাজ শুরু করে দেবে, তখন কোনো সমস্যা হবে না। কোনো সন্দেহ করার কিছু নেই। এটা নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তার দরকার নেই।

রায়গঞ্জে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান সংঘর্ষে নিহত ৩
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জের সলঙ্গায় ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে টিনবোঝাই ট্রাক খাদে পড়ে তিন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো তিনজন। আজ রবিবার সকালে সলঙ্গার দাদপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
সলঙ্গা থানা ফায়ার সার্ভিসের ডিএডি আব্দুল হামিদ বলেন, সকালে ঢাকা থেকে বগুড়াগামী টিনবোঝাই একটি ট্রাক সলঙ্গার দাদপুরে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা কাভার্ড ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় টিনবোঝাই ট্রাকটি মহাসড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ট্রাকের উপর থাকা ছয় শ্রমিক টিনের নিচে চাপা পড়েন।
খবর পেয়ে সিরাজগঞ্জ ও রায়গঞ্জ ফায়ার সাভিসের কর্মীরা উদ্ধারে নেমে তিনজনকে জীবিত উদ্ধার করেন। পরে ট্রিনের নিচে চাপা পড়ে থাকা অপর তিন শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করা হয়।
দুর্ঘটনাকবলিত দুই যানবাহনের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। হতাহতদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

ট্রেনের টিকিট কাটতে কমলাপুরের যুদ্ধ
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
ঈদের সময় যত কাছাকাছি আসছে, নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার আকাঙ্ক্ষা তত বাড়ছে। এর সঙ্গে বাড়ছে টিকিটকে হাতের মুঠোয় নিয়ে আসার চেষ্টা। আজ শনিবার সকালে রাজধানী ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে গিয়ে ট্রেনের টিকিটের জন্য যুদ্ধ করতে দেখা গেছে মানুষকে।
আজ দেওয়া হচ্ছে ১১ জুনের টিকিট। ২৬টি কাউন্টারে টিকিটপ্রত্যাশীদের দীর্ঘ সারি আরও দূর পর্যন্ত চলে গেছে। ১১ জুনের টিকিট পেতে মধ্যরাত থেকে কাউন্টারগুলোতে জড়ো হয়েছে মানুষ। ভিড় এতটাই বেশি যে, অনেকটা হিমশিম খেতে হচ্ছে নিরাপত্তারক্ষায় নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে।
সকাল আটটায় টিকিট বিক্রি শুরু হওয়ার ঢাকা রেলওয়ে থানার উপপরিদর্শক ইয়াসিন ফারুক প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভাই ঝামেলায় আছি। আজ অনেক বেশি ভিড়। এত লোক।’
১১ জুনের টিকিটের জন্য এত বেশি ভিড়ের কারণ জানাতে গিয়ে অনেকে বলেন, এবার ঈদে ছুটি বেশ কম। শনিবার ও রোববার ঈদের ছুটির মধ্যে চলে গেছে। ৩০ রোজা হলে রোববার ঈদ। তাহলে একদিন ছুটি হয়তো বাড়তে পারে। তবে সেই ঝুঁকি নিতে চান না টিকিটপ্রত্যাশীরা। এ জন্য ২৭ রমজান শবে কদরের ছুটিকে কাজে লাগাতে চান ঘরমুখী মানুষেরা।
ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি চলবে ৬ জুন পর্যন্ত। কাল রোববার ৩ জুন ১২ জুনের টিকিটের জন্য ভিড় আরও বেশি হবে বলে ধারণা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের। এ ছাড়া ৪ জুন ১৩ জুনের, ৫ জুন ১৪ জুনের ও ৬ জুন ১৫ জুনের টিকিট দেওয়া হবে। ফিরতি টিকিট ১০ জুন থেকে ছাড়া হবে।
রেল কর্তৃপক্ষ জানায়, একজন যাত্রীকে একসঙ্গে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট দেওয়া হবে। এই টিকিট ফেরত নেওয়া হবে না।
ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে ২৬টি কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি চলছে। এর মধ্যে দুটি কাউন্টার নারীদের জন্য সংরক্ষিত। কাউন্টারে ভ্যাপসা গরম থাকায় নারীদের দুর্ভোগ বেড়েছে।
মোট টিকিটের ৭৫ শতাংশ কাউন্টারে, আর বাকি ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করা হবে।
১১ জুন থেকে আন্তনগর ট্রেনগুলো সাপ্তাহিক ছুটিতেও চলাচল করবে।

আইএলওর শুনানির তালিকা থেকে বাংলাদেশ বাদ
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
ট্রেড ইউনিয়ন গঠনে শ্রমিকদের অংশগ্রহণের ন্যূনতম হার কমানো এবং রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকায় শ্রমিক অধিকার সুরক্ষার পদক্ষেপ নেওয়ায় আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) শুনানির তালিকা থেকে বাংলাদেশের নাম বাদ গেছে। ফলে চার বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক শ্রম সম্মেলনে (আইএলসি) বাংলাদেশের শ্রম অধিকার নিয়ে কোনো শুনানি হবে না।
গতকাল মঙ্গলবার রাতে জেনেভায় বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি শামীম আহসান প্রথম আলোকে
এ তথ্য জানান।
গত সোমবার থেকে জেনেভায় শুরু হয়েছে আইএলওর বার্ষিক সম্মেলন। আগামী ৮ জুন এটি শেষ হবে।
শামীম আহসান জানান, বাংলাদেশ শ্রম অধিকার সুরক্ষায় বিভিন্ন সময় নেওয়া পদক্ষেপের কথা জানিয়ে যেসব প্রতিবেদন জমা দিয়েছে, তা পর্যালোচনা করে আইএলসির মানদণ্ড প্রয়োগবিষয়ক কমিটি (সিএএস) গতকালের বৈঠকে শুনানির তালিকায় বাংলাদেশকে না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
জেনেভা থেকে বাংলাদেশের একজন জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক গতকাল সন্ধ্যায় এই প্রতিবেদককে জানান, ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের ন্যূনতম হার ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে সরকার ২০ শতাংশে নামানোকে সিএসির বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি বলা হয়েছে। এ ছাড়া রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকায় (ইপিজেড) শ্রম আইনের অধীনে শ্রমিক সংগঠন ও স্থাপনা পরিদর্শনের দায়িত্ব কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরকে ন্যস্ত করার সিদ্ধান্ত শ্রমিক অধিকার সুরক্ষার পথে ইতিবাচক পদক্ষেপ মন্তব্য করা হয়েছে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় কমিটির পরের বৈঠকে বাংলাদেশের নেওয়া সিদ্ধান্তগুলো আইন ও বিধি আকারে পরিমার্জন বা সংযোজন করা হয়েছে কি না, সেটা পর্যালোচনা করা হবে।
প্রসঙ্গত, রানা প্লাজা ধসের পর থেকেই বাংলাদেশের শ্রম অধিকার সুরক্ষার বিষয়টি বড় পরিসরে আলোচনায় চলে আসে। এরপর থেকেই আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীগুলো শ্রমিক অধিকার সুরক্ষার স্বার্থে বাংলাদেশকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে বলেছে। আন্তর্জাতিক শ্রম সম্মেলন সামনে রেখে ট্রেড ইউনিয়ন গঠনে শ্রমিকদের অংশগ্রহণের ন্যূনতম হার কমানো এবং ইপিজেডে ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের বিষয়ে বেশ কয়েক মাস ধরে তাগিদ দিচ্ছিল আইএলও। কারণ, শ্রমিক অধিকার সুরক্ষার স্বার্থে সম্প্রতি নেওয়া পদক্ষেপগুলো সরকার গত নভেম্বরে পূরণের অঙ্গীকার করেছিল। কিন্তু সরকার তা পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় আইএলওসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পক্ষ এগুলো পূরণ করতে তাগিদ দেয়। এরপর সরকার আইন, পররাষ্ট্র, বাণিজ্য ও শ্রম মন্ত্রণালয়কে বিষয়গুলো দ্রুত সুরাহার তাগিদ দেয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ৭ মে সরকারের উচ্চপর্যায়ের একটি সভায় বিষয়গুলো সুরাহা করে তা কূটনীতিক ও উন্নয়ন সহযোগীদের অবহিত করার সিদ্ধান্ত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে সরকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বিদেশি কূটনীতিক ও উন্নয়ন সহযোগীদের ডেকে নতুন পদক্ষেপ সম্পর্কে অবহিত করে।

মধ্যযুগের মধ্যাহ্ন ভাস্কর
                                  

ডিটিভি বাংলা নিউজঃ
মধ্যযুগের বাংলায় তুর্কি-পাঠান-মোগলদের শাসনভূমি থেকে অনেক দূরে বঙ্গোপসাগরের কোলবেষ্টিত চিলতে রাজ্য রোসাঙ্গে বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতির যে একটি সক্রিয় কেন্দ্র গড়ে উঠেছিল, সে বৃত্তান্ত আমাদের জানা হলো আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদের পুঁথিসংগ্রহের কল্যাণে। সাহিত্যবিশারদ সে সময়ের তরুণ গবেষক ও পণ্ডিত ডক্টর মুহম্মদ এনামুল হক সহযোগে আরকান রাজসভায় বাঙ্গালা সাহিত্য নামের অমূল্য গবেষণাগ্রন্থটি প্রকাশ করেন (১ মার্চ ১৯৩৫)। ‘আরকান’ নামটি পরে ‘আরাকান’ নামে সুস্থিত হয়। ‘রোসাঙ্গ’ ‘রাখাইন’ নাম তখন মিডিয়ার সূত্রে আরও সুপরিচিত।
ওই রকম একটি দূরবর্তী প্রত্যন্ত অঞ্চলে বাংলা সাহিত্যচর্চার কেন্দ্র কেন হলো, তার ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক পটভূমি বর্ণিত হয়েছে গবেষণাগ্রন্থটিতে। স্বভাবতই, ওই বইয়ে আরাকান রাজসভার সব কবির পরিচিতি ও কৃতীর বৃত্তান্ত আছে। তাঁদের মধ্যে ‘আলাওল’ নামটিই বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে বিখ্যাত।
আলাওলের স্বরসংগতিমূলক বানান ‘আলাউল’ও দেখা যায় এবং ব্যাকরণমতে ‘আলাউল’ই যথাযথ। বানান যা-ই হোক, আলাওল যে মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শীর্ষ কবিদের একজন, সে কথাও সবার জানা। সাহিত্যবিশারদ ও এনামুল হক আলাওলকে আখ্যা দিয়েছেন মহাকবি। তাঁদের উক্তি—‘মধ্য-যুগীয় বঙ্গ সাহিত্যে তিনি মধ্যাহ্ন ভাস্করবৎ বিদ্যমান’।
এ প্রশংসা আলাওলের প্রাপ্য এবং তা অতিরঞ্জন নয়। আহমদ শরীফের কথায় সুর মিলিয়ে আমরাও বলব, মধ্যযুগের শ্রেষ্ঠ তিন কবি হলেন মুকুন্দরাম, আলাওল ও ভারতচন্দ্র। অবশ্য তাঁদের সঙ্গে যুক্ত হবেন কয়েকজন অসামান্য বৈষ্ণব পদকার—বিদ্যাপতি, চণ্ডীদাস, জ্ঞানদাস, গোবিন্দ দাস। চণ্ডীমঙ্গল রচয়িতা মুকুন্দরাম ও পদ্মাবতী রচয়িতা আলাওল সতেরো শতকের প্রথমার্ধের কবি, মুকুন্দরাম অন্তত ৫০ বছরের বড় হবেন আলাওলের, আর অন্নদামঙ্গল রচয়িতা ভারতচন্দ্র আঠারো শতকের প্রথমার্ধের কবি। মুকুন্দরাম ও ভারতচন্দ্র মৌলিক কবি এবং তাঁদের সৃষ্টি জ্বলজ্বলে। আলাওলকেও মৌলিক কবি বলা যাবে, যদি তাঁর অনুবাদভিত্তিক কাব্যগ্রন্থগুলোকে তাঁর স্বাধীন রচনা বলা যায়। সেটি আমরা সোৎসাহে বলতে পারি। আলাওলের নিজের মৌলিক রচনা অবশ্যই রয়েছে—পদাবলি আর গান। এগুলোর কথা লোকজন জানে না, যেগুলো জানে, সেগুলো সবই অনুবাদের ফসল। পদ্মাবতীসহ অন্য যেসব কাব্য তিনি লিখেছেন, যেমন সতীময়না ও লোর চন্দ্রাণীর শেষাংশ (প্রথমাংশ লিখেছেন দৌলত কাজী এবং তাঁর নামেই ওই মধ্যযুগীয় পুঁথিটি), সয়ফুলমুলক বদিউজ্জামাল, সপ্ত পয়কর, সিকান্দারনামা, তোহফা ইত্যাদির মূল উৎস হিন্দি-আওধি ভাষার প্রণয়কাব্য কিংবা ফারসি কাব্য। অন্য ভাষার রচনাকে বাংলা ভাষায় নিজ রচনা করার অপূর্ব কলাকৌশল আলাওলের আয়ত্তে ছিল। বাংলা ভাষার শব্দসম্ভার তাঁর সম্পদ।
সংস্কৃত ব্যাকরণ ও রসতত্ত্ব, অলংকারতত্ত্ব, তৎসম শব্দের পূর্ণ অধিকার এবং এর সঙ্গে যুক্ত আরবি-ফারসি ভাষার জ্ঞান, হিন্দি ও আওধি ভাষার রসতাত্ত্বিক শিক্ষণ, নানা রকম কলাবিদ্যা, সংগীতবিদ্যা—সব মিলিয়ে আলাওল অসাধারণ কাব্যস্রষ্টা—পদ্মাবতী যাঁর সেরা কীর্তি। এ কাব্যের উৎস ভারতের উত্তর প্রদেশে আমেথির হিন্দি কবি মালিক মুহম্মদ জায়সির কাব্যপদুমাবৎ, অর্থাৎ পদ্মাবতী উপাখ্যান। প্রণয়কাহিনির সঙ্গে ইতিহাসের ক্ষীণরেখা আছে, যদিও সেটি মিথ্যে বলে জানা গেছে। তুর্কিবংশীয় সম্রাট আলাউদ্দিন খিলজি রাজপুত রানি পদ্মিনীর রূপ-লাবণ্যে আকৃষ্ট হয়েছিলেন এবং রানিকে পাওয়ার জন্য অভিযান করলে রানি সহচরীদের নিয়ে জহরব্রত করেছিলেন। এই কল্পিত আখ্যানটি পদুমাবৎ কাব্যের মূল প্রসঙ্গ নয়, বরং রত্নসেন-পদ্মাবতীর প্রণয়কাহিনিই মুখ্য।জায়সির কাব্য আধ্যাত্মিক রূপক, সুফি-মরমি চেতনার উদ্বোধক। আলাওল এই কাহিনিকে মানবিক রসদৃষ্টিসম্পন্ন করেছেন। হিন্দি-আওধির আরও প্রণয়কাব্য আলাওলের সমকালীন কবিদের রচনা-উৎস হয়েছে। সেই ধারাতেই আলাওলের পদ্মাবতী কাব্যের সৃষ্টি। নায়িকার নামেই কাব্য, রোমান্স কাব্য, যেখানে আছে রূপবান অভিজাত নায়ক আর অনিন্দ্যসুন্দরী নায়িকা, যার রূপ বর্ণনায় আলাওল তাঁর বইয়ের বেশ কয়েক পৃষ্ঠাই খরচ করেছেন; তাতে উপমার ছড়াছড়ি বর্ণনাকে কত বর্ণাঢ্য করা যায়, তার তুলনাহীন কবিকৃতি। নায়িকার বর্ণনায় ভারতীয় ঐতিহ্যের সঙ্গে চমৎকারভাবে ফারসি রীতিরও মিল ঘটাতে পেরেছেন স্বচ্ছন্দে। তীব্র প্রণয়ের সঙ্গে অভিযান, যুদ্ধবিগ্রহ, সংঘর্ষ, হিংসা-বিদ্বেষ, ষড়যন্ত্র সবই আছে, উপভোগ্যভাবেই আছে। এই কথা কেবলপদ্মাবতী নয়, রূপকথাশ্রয়ী অনুবাদ রচনা সয়ফুলমুলক বদিউজ্জামাল এবং বীরকাহিনি সিকান্দারনামা সম্বন্ধেও প্রযোজ্য। মধ্যযুগের বাঙালি কবি আলাওলের কাব্যসামগ্রী বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চিরায়ত সম্পদ।

সাহিত্যবিশারদ ও মুহম্মদ এনামুল হক তাঁদের গবেষণাগ্রন্থে আলাওলকে চট্টগ্রামের সন্তান মনে করেছিলেন। আলাওল আত্মকথা লেখেননি, কিন্তু গ্রন্থগুলোতে তাঁর নিজের সম্বন্ধে এখানে-ওখানে কিছু খবর দিয়েছেন, যাতে এখন গবেষকেরা সম্পূর্ণ নিশ্চিত যে আলাওল বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্মগ্রহণ করেছেন। পিতার সঙ্গে নৌকায় করে যাওয়ার সময় ডাকাতদের আক্রমণে নিজে ক্ষতবিক্ষত হলেও আত্মরক্ষা করেন, কিন্তু পিতাকে হারান। তারপর তিনি কীভাবে রোসাঙ্গ রাজ্যে গেলেন, সে বৃত্তান্ত জানা যায় না।তখন তাঁর কত বয়স, সেটাও জানা যায়নি। রোসাঙ্গে গিয়ে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগ দিলেন।অনেকটা কাজী নজরুল ইসলামের মতো সৈনিক কবি।আশ্রয়দাতা মাগন ঠাকুর আলাওলের কবিত্ব ও সংগীতবিদ্যায় আকৃষ্ট হয়ে তাঁকে কাব্যসৃষ্টিতে কাজে লাগান। সেই থেকে আলাওল রোসাঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা, পিতৃভূমিতে তিনি আর ফিরে আসেননি।ওই রোসাঙ্গেই তাঁর ঘরসংসার, স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে সুখ-দুঃখের দিনগুলো।
আলাওল দীর্ঘজীবী ছিলেন বলে জানা যায়। ওই রোসাঙ্গেই রাজ অমাত্যদের পৃষ্ঠপোষকতায়, বদান্যতায়, শ্রদ্ধা ও সম্মান নিয়ে আলাওল বাংলা কাব্যের সাধনা করে গেছেন। সেই সাধনার পূর্ণ পরিচয় রয়েছে তাঁর লেখায়।
আলাওলের পদ্মাবতীর রচনাকাল ১৬৫১ খ্রিষ্টাব্দ। যদিও এটি তাঁর প্রথম রচনা। কিন্তু পরিণত কবিত্বকলার দৃষ্টান্ত এ অনুপম সৃষ্টি। জায়সির হিন্দি রচনার বাংলা ভাষ্য জায়সি থেকে অনেকটা দূরে। এতে রূপক, আধ্যাত্মিকতা কেউ খুঁজলে খুঁজতে পারেন; কিন্তু সেই মরমি বৈশিষ্ট্যের চেয়ে এ কাব্যে মানুষের কাহিনিই মুখ্য। জায়সির অনেক অংশই পরিত্যক্ত, আধ্যাত্মিক অংশগুলো তো বটেই। নিজের সংযোজনা আছে মাঝেমধ্যে। এতে বোঝা যায়, মূল কাব্যের সীমার মধ্যে নতুন কিছু করার প্রয়াস আলাওলের বরাবরই ছিল।আলাওলের অন্য কাব্যগুলো নিবিড়ভাবে পরীক্ষা করলেও এ সত্য ধরা পড়বে। মধ্যযুগের বাংলা রোমান্স-কাব্যের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত আলাওলের রচনা।

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান বসানোর কাজ শুরু
                                  

অনলাইন ডেস্ক: লৌহজং উপজেলার মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান ‘৭-ই’ নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি দুপুর সাড়ে ১২টায় জাজির প্রান্তের ৩৫ নম্বর খুঁটির সামনে রাখা হয়। পরবর্তীতে এটি নেয়া হবে ৪০ ও ৪১ নম্বর খুঁটির সামনে।
পদ্মা সেতু প্রকৌশলী সূত্রে জানা যায়, ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলার প্রস্তুত রয়েছে চতুর্থ স্প্যানের জন্য। আগামী ১৪/১৫মে এটি খুঁটির ওপর স্থাপন করার কথা রয়েছে। স্থাপন হলে পদ্মা সেতুর ৬০০ মিটার দৃশ্যমান হবে। ইতিমধ্যে ১৫০ মিটারের তিনটি স্প্যান যুক্ত হওয়ায় পদ্মা সেতুর ৪৫০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে জাজিরা প্রান্তে।
স্টিল স্ট্রাকচারের দ্বিতল পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার। সেতুর ভিতর দিয়ে চলবে ট্রেন আর ওপরে হবে সড়কপথ। সেতু নির্মাণ শেষ হলে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার সাথে সড়ক ও রেলপথে সরাসরি যুক্ত হবে রাজধানী।
২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর বসে প্রথম স্প্যানটি। এরপর ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্প্যানটি বসে। ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর ১১ মার্চ বসে তৃতীয় স্প্যানটি।

এ যেন আরেক ‘শাহবাগ’
                                  

রাজপথে আন্দোলনরত হাজার হাজার শিক্ষার্থী আর তাদের স্লোগানে কেঁপে উঠছে মহাসড়ক। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রধান ফটক সংলগ্ন ঢাকা-রাজাশাহী মহাসড়কে জনসমুদ্রের জোয়ার উঠেছে আজ। সবারই একটাই দাবি ‘কোটা ব্যবস্থার সংস্কার’। উত্তাল মহাসড়ক দেখে মনে হচ্ছে- এ যেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘শাহবাগ’।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আজ বুধবার আবারো ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে জড়ো হয়ে তারা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। এর আধা ঘণ্টা পরই পাঁচ হাজারের অধিক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে মহাসড়ক অবরোধ করে অবস্থান নেয়। সেখানে আন্দোলনকারীরা ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘পিতা তুমি ফিরে এসো, বৈষম্য দূর করো’, ‘মতিয়ার চামড়া, তুলে নিব আমরা’, ইনুর চামড়া, তুলে নিব আমরা’ ইত্যাদি স্লোগান দিচ্ছেন। প্রায় পাঁচ হাজারের অধিক শিক্ষার্থীর স্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশকিছু শিক্ষকও উপস্থিত রয়েছেন।

আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. আকতার বানু বলেন, ‘আমি এই আন্দোলন সম্পর্কে কয়েকটি কথা বলতে চাই। প্রথমত এ আন্দোলন সরকারবিরোধী নয়। দ্বিতীয়ত আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান করি, আমরা তাঁদের বিরুদ্ধেও নয়। কোটা সংস্কার আন্দোলন নায্য আন্দোলন। এটি সারাদেশের সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন।’ এসময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে ‘সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ রাবি শাখার আহ্বায়ক মাসুদ মুন্নাফ বলেছিলেন, কেন্দ্রীয় কমিটির কর্মসূচি অনুযায়ী আমরা রাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছি। তবে মাস্টার্স ও চতুর্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা এ কর্মসূচির বাইরে থাকবে। এছাড়া দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত আমাদের মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি চলবে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে প্রস্তাব দিয়েছিলাম, তারা যেনো ক্যাম্পাসের ভিতরে আন্দোলন করে। কিন্তু তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছে কোনভাবেই সহিংসতা ঘটাবে না। আন্দোলনটি অহিংস হবে। ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে সারাদেশের মতো এখানেও আন্দোলনটি চলছে।’ 

এদিকে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) সব বিভাগের ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। বেলা ১১টা থেকে তারা রুয়েটের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে।

 

ডিটিভি বাংলা/১১ এপ্রিল ২০১৮/ মেহেদী হাসান

সপ্তাহে ৭ দিনই ২৪ ঘণ্টা ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ
                                  

চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের সব বাণিজ্যিক ব্যাংক সার্বক্ষণিক খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এখন থেকে ওই অঞ্চলে সপ্তাহে ৭ দিনই  ২৪ ঘণ্টা ব্যাংক খোলা থাকবে।

বাংলাদেশে ব্যাংকের অফ সাইড সুপারভিশন বিভাগ থেকে এ বিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে। রোববার সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী বরাবর এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরে আমদানি রফতানি কার্যক্রম যাতে ব্যহত না হয় এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ নির্দেশ দেয়।

এর আগে ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এই সংক্রান্ত সমস্যার কথা জানানো হয়। এর প্রেক্ষিতে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা করে চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের সব বাণিজ্যিক ব্যাংক সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ দেয়া হয়।

আমদানি-রফতানির সুবিধার্থে এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম বন্দর ও কাস্টমস সপ্তাহের ৭দিন ২৪ঘন্টা চালু রাখার অনুশাসন জারি করেছিলেন। কিন্তু ব্যাংকগুলো সপ্তাহে ২দিন বন্ধ থাকায় সরকারি সিদ্ধান্তের পুরাপুরি সুফল পাচ্ছিলেন না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থপক মো. রফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত রোববার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পাঠানো নিদের্শনায় চট্টগ্রাম বন্দর- কাস্টসম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আগ্রবাদ এলাকায় অবস্থিত ব্যাংক শাখা পযাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিন্ত করে সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘন্টা খোলা রাখার নিদের্ দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো প্রয়োজনে চট্টগ্রাম বন্দর কাস্টসম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করে সংশ্লিষ্ট শাখা খোলা রাখার প্রয়োজনীয়তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে।

প্রসঙ্গত,  ব্যবসায়ীদের  ধারনা বাংলাদেশ ব্যাংকের এই নির্দেশনার ফলে বন্দরে পণ্য জট কিছুটা হলেও কমবে। আর ব্যাংকের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ৬ সমঝোতা স্মারক সই
                                  

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে ৬টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। সোমবার দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় দুই দেশের পররাষ্ট্র সচিব ও বিভিন্ন দপ্তরের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা এসব সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

এর আগে একই স্থানে বাংলাদেশ ও ভারতের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক হয়।  বৈঠকে তিস্তার পানি বন্টন চুক্তি ও রোহিঙ্গা ইস্যু প্রাধান্য পায়।

এ বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক। অন্যদিকে, ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিজয় কেশব গোখলে। এ ছাড়াও এ বৈঠকে দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিজয় কেশব গোখলে।

প্রসঙ্গত, গতকাল রোববার বিকেল ৪টা ২০মিনিটে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে পরিচিতমূলক সফরে আসনে ভারতের নতুন পররাষ্ট্র সচিবের দায়িত্বে আসা বিজয় কেশব গোখলে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা তাকে বিমানবন্দরে স্বাগতম জানান।


   Page 1 of 9
     বিশেষ খবর
নাটোরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ জন নিহতের ঘটনায় মামলা
.............................................................................................
ডাকাতি রোধে মহাসড়কের জঙ্গল পরিষ্কার করলো এলাকাবাসী
.............................................................................................
এইচএসসির ফল জানা যাবে যেভাবে
.............................................................................................
মেক্সিকোর নতুন প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন বামপন্থী লোপেজ অবরাদোর
.............................................................................................
মুসলিম দেশের ওপর ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সুপ্রিম কোর্টে বহাল
.............................................................................................
জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাহার
.............................................................................................
বিহারে বজ্রপাতে ২৭ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
‘বঙ্গবন্ধু-২’-এর প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার
.............................................................................................
রায়গঞ্জে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান সংঘর্ষে নিহত ৩
.............................................................................................
ট্রেনের টিকিট কাটতে কমলাপুরের যুদ্ধ
.............................................................................................
আইএলওর শুনানির তালিকা থেকে বাংলাদেশ বাদ
.............................................................................................
মধ্যযুগের মধ্যাহ্ন ভাস্কর
.............................................................................................
স্বপ্নের পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান বসানোর কাজ শুরু
.............................................................................................
এ যেন আরেক ‘শাহবাগ’
.............................................................................................
সপ্তাহে ৭ দিনই ২৪ ঘণ্টা ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ
.............................................................................................
বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ৬ সমঝোতা স্মারক সই
.............................................................................................
ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের বিকাশ সরকারের অন্যতম লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
উন্নয়নের নামে নদী খাল ভরাট করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ইউএস বাংলার জরুরি অবতরণ
.............................................................................................
আজ আনন্দ শোভাযাত্রা, বন্ধ থাকবে যেসব সড়ক
.............................................................................................
বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা জানানো হবে
.............................................................................................
বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল : তারানা
.............................................................................................
বিএনপিকে কোনঠাসা করলেও আওয়ামী লীগের ঘরে বিরোধের চিত্র
.............................................................................................
উচ্চ আদালতের সবক্ষেত্রে ‘বাংলা’ ব্যবহারের উদ্যোগ নেবো: প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
আত্মসমর্পণ করলেন হামলাকারীর বাবা-মা
.............................................................................................
‘তোমরা উত্তেজিত হইয়ো না, জাফর ইকবাল সুস্থ আছেন’
.............................................................................................
ডিইউজে’র সভাপতি সূর্য, সাধারণ সম্পাদক সোহেল
.............................................................................................
খালেদা জিয়া ও প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
0 ডিসেম্বরেই অবসরে যাবেন অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২১তম বৈঠক অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পাথর আমদানি শুরু
.............................................................................................
তারেক রহমানসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলে রেড নোটিশ হতে পারে
.............................................................................................
রাজপথে সরব আওয়ামী লীগ
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রী যা চান তা রায় হয়ে বেরিয়ে অাসে কিনা দেখার বিষয়: রিজভী
.............................................................................................
সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
সম্পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো হবে
.............................................................................................
চট্টগ্রামের সঙ্গে ঢাকা-সিলেট ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
.............................................................................................
নতুন দফতরে তারানা হালিম
.............................................................................................
মঙ্গলবার পর্যন্ত কনকনে ঠাণ্ডা, আসছে একাধিক শৈত্যপ্রবাহ
.............................................................................................
মাসব্যাপী আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন বিদেশে নতুন বাজার বের করুন :প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
‘আমরা কর্মবিমুখ জাতি গড়তে চাই না’
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব হলেন নজিবুর রহমান
.............................................................................................
মাথা উঁচু করে চলতে চাই কারো কাছে হাত পেতে নয়: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
যুদ্ধজাহাজ রফতানি করবে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জনগণের সঙ্গে মিশে কাজ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন : ৩০ সদস্যের ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন
.............................................................................................
বাংলাদেশ ভ্রমণে অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যের সতর্কতা জারি
.............................................................................................
রোহিঙ্গা সংকটে বন ও পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
প্যারিসে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
সম্পাদক : জাকির এইচ. তালুকদার ,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এস এইচ শিবলী ,
    [সম্পাদক মন্ডলী ]
সম্পাদক কর্তৃক ২ আরকে মিশন রোড থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ০১৫৫৮০১১২৭৫, ই-মেইল:dailybortomandin@gmail.com
   All Right Reserved By www.dtvbangla.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]