| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
   * অভিনন্দন নবনির্বাচিত দুই মেয়র --- যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক   * বন্ধের আশঙ্কায় দেশের অর্ধেক ফ্রেইট ফরওয়ার্ডিং কোম্পানি   * দুর্যোগে মানুষের পাশে কাউন্সিলর মোঃ জাবেদ আলী   * অসহায়দের পাশে এমপি ইকবাল হোসেন সবুজের কর্মী নূরে আলম   * করোনা মোকাবেলায় মাঠে রয়েছেন গোলাম কিবরিয়া খান রাজা   * ব্রেইন স্ট্রোকে জবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু   * জীবপ্রযুক্তিবিদ সম্মেলনে ১ম পুরস্কারে ভূুষিত হলেন চৌদ্দগ্রামের ড. মো. আমিরুল ইসলাম   * ঠিকাদার শামীম জেলে ॥ থমকে রয়েছে শতশত কোটি টাকার উন্নয়ন কর্ম   * সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার   * মিশরে মসজিদ, গির্জা বন্ধ  

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
অভিনন্দন নবনির্বাচিত দুই মেয়র --- যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক

নিজস্ব প্রতিনিধি:

শনিবার (১৬ মে) দুপুরে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তিনি এ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। অন্যদিকে গত বুধবার (১৩ মে) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন আতিকুল ইসলাম। এর মধ্য দিয়ে শুরু হলো আওয়ামী লীগ মনোনীত দুই নতুন মেয়রের চ্যালেঞ্জিং অধ্যায়। দুজনরে সামনেই রয়েছে বড় চ্যালেঞ্জ। মহামারি করোনা ছাড়াও রাজধানীতে ডেঙ্গু, জলাবদ্ধতাসহ নানা বিষয়ে সফলতা অর্জনই তাদের বড় লক্ষ্য হবে।
নবনির্বাচিত এই দুই মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক। বাংলাদেশের উন্নয়নের রুপকার, মানবতার জননী, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দুই সিটি কর্পোরেশন এর নবনির্বাচিতএমন চৌকস এবং যোগ্য নেতৃবৃন্দের হাতে দায়িত্বভার প্রদান করার জন্য তাঁর প্রতিও আব্দুল মালেক ও তার সমর্থকরা দোওয়া ও আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
উলে­খ্য সেবার ব্রত নিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করা নিবেদিত প্রাণ কর্মী আব্দুল মালেক নিজ এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় যুবলীগ নেতা। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে নিজের মেধা, দক্ষতা, কর্ম প্রচেষ্টা নিয়ে জনগণের সেবা করে যাচ্ছেন। আব্দুল মালেক জানান, অপরের কল্যাণ করতে আমি নিজের জীবন উৎসর্গ করতে রাজী আছি। এজন্যই পরোপকারী ব্যাক্তি হিসেবে তিনি এলাকায় সব শ্রেণী, পেশার মানুষের কাছে প্রাণ-প্রিয় ব্যাক্তিত্ব। দলীয় অঙ্গনেও আব্দুল মালেক সমধীক জনপ্রিয় বলে প্রমাণ রয়েছে। যে কোনো মিছিল মিটিং সভা সমাবেশে তার নেতৃত্বে ঝাঁকে ঝাঁকে লোকজন জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু শ্লোগানে বের হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দুঃসময় থেকে এখন পর্যন্ত ২০ বছরে বহু হামলা, মামলা ও কারাবরণ করেছেন তিনি। তার মতে, আমাদের প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী হাসিনাও দেশ ও জনগণের জন্য বারবার নির্যাতিত হয়েছেন। জেলে গিয়েছেন এমনকি তাকে হত্যা করার জন্য সরাসরি বহুবার চেষ্টা চালানো হয়েছে। কিন্তু তিনি হিংসাপরায়ণ হয়ে প্রতিশোধ মূলক কোন কাজ করেন নি। তিনি বলেন, তাই আমিও তাঁর আদর্শ, নেতৃত্বকে অনুসরণ করে এলাকার জনগণের উন্নয়নে আতœনিয়োগ করেছি এবং যতদিন বাচবো এভাবে কাজ করে যাবো। তিনি দুই নবনির্বাচিত দুই মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণে অভিনন্দন জানান এবং আগের মতো সব সময় তাদের পাশে, তাদের সাথে, তাদের হুকুমে একনিষ্ঠ যুবলীগ কর্মী হিসেবে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

অভিনন্দন নবনির্বাচিত দুই মেয়র --- যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি:

শনিবার (১৬ মে) দুপুরে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তিনি এ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। অন্যদিকে গত বুধবার (১৩ মে) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন আতিকুল ইসলাম। এর মধ্য দিয়ে শুরু হলো আওয়ামী লীগ মনোনীত দুই নতুন মেয়রের চ্যালেঞ্জিং অধ্যায়। দুজনরে সামনেই রয়েছে বড় চ্যালেঞ্জ। মহামারি করোনা ছাড়াও রাজধানীতে ডেঙ্গু, জলাবদ্ধতাসহ নানা বিষয়ে সফলতা অর্জনই তাদের বড় লক্ষ্য হবে।
নবনির্বাচিত এই দুই মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক। বাংলাদেশের উন্নয়নের রুপকার, মানবতার জননী, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দুই সিটি কর্পোরেশন এর নবনির্বাচিতএমন চৌকস এবং যোগ্য নেতৃবৃন্দের হাতে দায়িত্বভার প্রদান করার জন্য তাঁর প্রতিও আব্দুল মালেক ও তার সমর্থকরা দোওয়া ও আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
উলে­খ্য সেবার ব্রত নিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করা নিবেদিত প্রাণ কর্মী আব্দুল মালেক নিজ এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় যুবলীগ নেতা। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে নিজের মেধা, দক্ষতা, কর্ম প্রচেষ্টা নিয়ে জনগণের সেবা করে যাচ্ছেন। আব্দুল মালেক জানান, অপরের কল্যাণ করতে আমি নিজের জীবন উৎসর্গ করতে রাজী আছি। এজন্যই পরোপকারী ব্যাক্তি হিসেবে তিনি এলাকায় সব শ্রেণী, পেশার মানুষের কাছে প্রাণ-প্রিয় ব্যাক্তিত্ব। দলীয় অঙ্গনেও আব্দুল মালেক সমধীক জনপ্রিয় বলে প্রমাণ রয়েছে। যে কোনো মিছিল মিটিং সভা সমাবেশে তার নেতৃত্বে ঝাঁকে ঝাঁকে লোকজন জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু শ্লোগানে বের হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দুঃসময় থেকে এখন পর্যন্ত ২০ বছরে বহু হামলা, মামলা ও কারাবরণ করেছেন তিনি। তার মতে, আমাদের প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী হাসিনাও দেশ ও জনগণের জন্য বারবার নির্যাতিত হয়েছেন। জেলে গিয়েছেন এমনকি তাকে হত্যা করার জন্য সরাসরি বহুবার চেষ্টা চালানো হয়েছে। কিন্তু তিনি হিংসাপরায়ণ হয়ে প্রতিশোধ মূলক কোন কাজ করেন নি। তিনি বলেন, তাই আমিও তাঁর আদর্শ, নেতৃত্বকে অনুসরণ করে এলাকার জনগণের উন্নয়নে আতœনিয়োগ করেছি এবং যতদিন বাচবো এভাবে কাজ করে যাবো। তিনি দুই নবনির্বাচিত দুই মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণে অভিনন্দন জানান এবং আগের মতো সব সময় তাদের পাশে, তাদের সাথে, তাদের হুকুমে একনিষ্ঠ যুবলীগ কর্মী হিসেবে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য কামাল হোসেন মিয়ার গাড়িতে হামলা
                                  

মেহেদী হাসান:

নগরকান্দা উপজেলার তালমা ইউনিয়নের শাকপালদিয়া গ্রামের কলম ফকিরের বাড়ির বিচার গান থেকে ফেরার পথে ত্রিমহুনী নামক স্থানে পৌছালে কামাল মিয়ার গাড়িতে হামলা করা হয় বলে জানা যায়।

জানা যায়, কিছু দুষ্ক্রিতিকারক কামাল হোসেন মিয়ার বাড়ী ফেরার খবর পেয়ে ত্রিমহুনীতে অবস্থান নেয়।রাত ১০:৩০ কামাল হসেন মিয়া ত্রিমহুনীতে পৌছালে চলন্ত গাড়িতে হামলা করা হয়।হামলায় কামাল হোসেন মিয়া সহ ৫ জনের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক। তাদের কে তৎখনিক ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  ভর্তি করা হয়।

বিএনপি কার্যালয় ঘিরে রেখেছে পুলিশ
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

সর্বোচ্চ আদালতে দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত কারাবন্দী খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন শুনানি সামনে রেখে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঘিরে রেখেছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকেই রাজধানীর নয়া পল্টনে দলটির কার্যালয়ের সামনে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে ব্যাপকসংখ্যক পুলিশ, যাদের সঙ্গে সাদা পোশাকের পুলিশও রয়েছেন।অন্যদিন এই সময়ে অফিসে নেতা-কর্মীদের ভিড় থাকলে এদিন পুলিশের বেষ্টনী ভেদ করে নেতা-কর্মীদের কাউকে কার্যালয়ে ঢুকতে দেখা যাচ্ছে না। তবে সকাল ১০টার দিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢুকে নিজের চেম্বারে অবস্থান করছেন। দলের স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদসহ মহিলা দলের ২০/২২ জন সদস্য ও অফিস কর্মীরা কার্যালয়ে রয়েছেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি চলছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে। গত কয়েকদিন ধরে বিএনপি অফিসের সামনে অতিরিক্ত পুলিশের অবস্থান দেখা গেছে। কার্যালয়ের নেতারা জানান, তারা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের দিকে নজর রাখছেন। তারা আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে মহাসচিবকে শুনানির সর্বশেষ অবস্থা জানাচ্ছেন। বেলা সাড়ে ১১টায় মহিলা দলের একদল নেতা-কর্মী ফটকের ভেতরে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে। এসময়ে পুলিশ ও গোয়েন্দা কর্মীরা গেইটের কাছে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

যুবলীগের নবনির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের নতুন কমিটির নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক। এছাড়া বাংলাদেশের উন্নয়নের রুপকার, মানবতার জননী, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে যুবলীগের নতুন কমিটিতে এমন চৌকস এবং যোগ্য নেতৃবৃন্দকে যুক্ত করার জন্য তার প্রতি দোওয়া ও বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সেবার ব্রত নিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করা নিবেদিত প্রাণ কর্মী আব্দুল মালেক নিজ এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় যুবলীগ নেতা। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে নিজের মেধা, দক্ষতা, কর্ম প্রচেষ্টা নিয়ে জনগণের সেবা করে যাচ্ছেন। আব্দুল মালেক জানান, অপরের কল্যাণ করতে আমি নিজের জীবন উৎসর্গ করতে রাজী আছি। এজন্যই পরোপকারী ব্যাক্তি হিসেবে তিনি এলাকায় সব শ্রেণী, পেশার মানুষের কাছে প্রাণ-প্রিয় ব্যাক্তিত্ব। দলীয় অঙ্গনেও আব্দুল মালেক সমধীক জনপ্রিয় বলে প্রমাণ রয়েছে। যে কোনো মিছিল মিটিং সভা সমাবেশে তার নেতৃত্বে ঝাঁকে ঝাঁকে লোকজন জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু শ্লোগানে বের হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দুঃসময় থেকে এখন পর্যন্ত ২০ বছরে বহু হামলা, মামলা ও কারাবরণ করেছেন তিনি। তার মতে, আমাদের প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী হাসিনাও দেশ ও জনগণের জন্য বারবার নির্যাতিত হয়েছেন। জেলে গিয়েছেন এমনকি তাকে হত্যা করার জন্য সরাসরি বহুবার চেষ্টা চালানো হয়েছে। কিন্তু তিনি হিংসাপরায়ণ হয়ে প্রতিশোধ মূলক কোন কাজ করেন নি। তিনি বলেন, তাই আমিও তাঁর আদর্শ, নেতৃত্বকে অনুসরণ করে এলাকার জনগণের উন্নয়নে আতœনিয়োগ করেছি এবং যতদিন বাচবো এভাবে কাজ করে যাবো। তিনি যুবলীগ এর কেন্দ্রীয় কমিটির নবনির্বচিত সভাপতি সাধারণ সম্পাদক সহ অন্যান্য সবাইকেও অভিনন্দন জানান এবং আগের মতো সব সময় তাদের পাশে, তাদের সাথে, তাদের হুকুমে একনিষ্ঠ যুবলীগ কর্মী হিসেবে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

 

খালেদার রিটের শুনানি নিয়মিত বেঞ্চে
                                  

অনলাইন েডস্ক:

খালেদার আদালত স্থানান্তরের বৈধতা নিয়ে শুনানি হয়নি নথির জন্য;খালেদা ভালো আছেন, বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের অবকাশকালীন হাই কোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এই আদেশ দেয়। এ সময় খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে ছিলেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ও মওদুদ আহমদ; রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা। নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদার বিচারের জন্য বিশেষ আদালত পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কারাগার থেকে সরিয়ে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়ার সরকারি আদেশের বিরুদ্ধে গত ২৬ মে হাই কোর্টে এই রিট আবেদন করা হয়। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের অবকাশকালীন হাই কোর্ট বেঞ্চ ওই রিট আবেদনের শুনানিতে নাইকো মামলা আমলে নেওয়ার আদেশ এবং আদালত স্থানান্তরের গেজেটের কপি হলফনামা আকারে জমা দিতে বলেছিল খালেদার আইনজীবীদের। এর ধারাবাহিকতায় এ জে মোহাম্মদ আলী মঙ্গলবার নাইকো মামলা আমলে নেওয়ার আদেশের কপি হলফনামা আকারে জমা দেন। কিন্তু আদালত স্থানান্তরের গেজেটের কপি পাননি জানিয়ে বলেন, এ বিষয়ে বিশদ শুনানি প্রয়োজন। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব এ সময় বলেন, “আজ এই ভ্যাকেশন বেঞ্চের শেষ কার্যদিবস। আপনাদের অবস্থান স্পষ্ট করুন।” মওদুদ আহমদ এ সময় বলেন, “চাইলে আপনারা রুল দিতে পারেন।” পরে আদালত এই রিট মামলা শুনানির জন্য হাই কোর্টের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠানোর আদেশ দেয়। নিয়ম অনুযায়ী এই বেঞ্চের আদেশসহ মামলার নথি এখন হাই কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় যাবে। আদালতের নিয়মিত বেঞ্চের কার্যক্রম শুরু হলে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা কোনো একটি বেঞ্চে তা শুনানির জন্য উপস্থাপন করবেন। আদেশের পর বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী মওদুদ সাংবাদিকদের বলেন, “এটা (আদালত স্থানান্তর) এখন বিচারাধীন বিষয়। সুতরাং এর নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিচারিক আদালতে মামলার কার্যব্ক্রম চলতে পারে না। অন্যদিকে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটা সাবজুডিস মেটার কীভাবে, রুলও তো হয়নি। বিচারিক কার্যক্রম স্থগিত না হলে কোনো মামলার বিচারই বন্ধ থাকে না। আমি মনে করি বিচারিক কার্যক্রম চলতে কোনো বাধা নেই।”তিনি বলেন, “খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা ইতোমধ্যে আগের আদালতে দুই দিন শুনানি করেছেন। অথচ তারা এটা তারা উচ্চতর আদালতে গোপন করেছেন।”দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছিল পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কের পরিত্যক্ত কারাগারে। তার বিরুদ্ধে নাইকোসহ অন্য কয়েকটি মামলার বিচারও সেখানেই চলছিল। চিকিৎসার জন্য তাকে গত ১ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়, সুস্থ হলে খালেদাকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হবে। এরপর খালেদার বিচারে আদালত স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত জানিয়ে মে মাসের মাঝামাঝি গেজেট জারি হলে প্রথমে উকিল নোটিস পাঠিয়ে পরে হাই কোর্টে আসেন খালেদার আইনজীবীরা। ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোর হাতে তুলে দিয়ে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার ক্ষতি করার অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় নাইকো দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। খালেদা জিয়া ছাড়া মামলার অন্য আসামিরা হলেন- সাবেক মন্ত্রী মওদুদ আহমদ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ। ২০০৮ সালের ৫ মে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় দুদক। মামলাটি বর্তমানে অভিযোগ গঠনের শুনানি পর্যায়ে আটকে আছে।

নগরকান্দায় আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড জামাল হোসেন মিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন
                                  
মেহেদী হাসান:  দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ফরিদপুরে নগরকান্দায় উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের পক্ষে কাজ করায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জামাল হোসেন মিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।
 
এর প্রতিবাদে শনিবার বিকেলে ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা ও সালথা) আসনের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে নগরকান্দার ব্যস্ততম তালমার মোড়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে।
 
বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্যকালে রামনগর ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস ফকির বলেন, গত ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর পুত্র শাহদাব আকবর লাবু চৌধুরী নৌকার বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। এরপর তারা নির্বাচনে পরাজিত হয়ে আমরা যারা নৌকার পক্ষে কাজ করেছি তাদের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার চালাচ্ছেন। 
 
সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে নগরকান্দা উপজেলার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মনিরুজ্জামান সরদার বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী শাহ জামান বাবুলের পক্ষে পরাজিতরা এখন আওয়ামী লীগ নেতা জামাল হোসেন মিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা শান্তিপূর্ণ জনপদকে অশান্ত করার পায়তারায় লিপ্ত রয়েছে। আমরা এর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
 
সমাবেশ অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগ নেতা ও ফরিদপুর জেলা পরিষদের সদস্য কামাল হোসেন মিয়া, তালমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ তৈয়বুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সিরাজ খলিফা প্রমুখ বক্তব্য দেন। 
বক্তাগণ অভিযোগ করেন, কতিপয় দুর্বৃত্ত দলের মধ্যে ঘাপটি মেরে থেকে আওয়ামী লীগ ও নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করছেন। তাদের কারণে দল নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

নগরকান্দা উপজেলা নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোটের মাঠে সাবেক এমপি জুয়েল চৌধুরী
                                  
নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আসন্ন নগরকান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মনিরুজ্জামান সরদারের পক্ষে মাঠে নেমে প্রচারনা চালাচ্ছেন জেলা শ্রমিকলীগের সহসভাপতি,  সাবেক সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান জুয়েল চৌধুরী । গত দুই দিন ধরে তিনি ফরিদপুররে নগরকান্দা পৌর সদর, সহ নগরকান্দা  উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে প্রচার-প্রচারনা চালাচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তিনি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করছেন। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে পথসভায় তিনি বক্তৃতা করেন। নির্বাচনী প্রচারনার অংশ হিসাবে বুধবার ও বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত  সাইফুজ্জামান জুয়েল চৌধুরী নৌকা প্রতিকে ভোট প্রার্থনা করেন , রামনগর, দেবীনগর, কুন্জনগর, তালমা, লস্করদিয়া, উনিয়নের বিভিন্ন স্থানে পথসভা করেন। 
 
 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের পরিচালক, বসুন্ধরা গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক এ্যাড. জামাল হোসেন মিয়া জেলা দুর্যোগ ও ত্রান বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোঃ কামাল হোসেন মিয়া, তালমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তৈয়াবুর রহমান, সহসভাপতি জাকারিয়া খান খোকা, মীর সাহিদুজ্জামান রিফাত, সাধারণ সম্পাদক সিরাজ খলিফা, তালমা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আঃ কুদ্দুছ মোল্যা, আওয়ামী লীগ নেতা মজিবুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম.এম নাহিদুজ্জামান নাহিদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক এস.এম রফিকুল ইসলাম মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাকির হোসেন, যুবলীগ নেতা এস.এম হুমায়ন কবির প্রমূখ।
 
সাবেক এমপি সাইফুজ্জামান চৌধুরী জুয়েল বলেন, নৌকা প্রতিক হচ্ছে স্বাধীনতার প্রতিক, উন্নয়নের প্রতিক, গনতন্ত্রের প্রতিক। নৌকা প্রতিকে ভোট দিলেই কেবল দেশের উন্নয়ন হয়। তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করাতে হবে।
ফরিদপুরে নগরকান্দা উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে নৌকার প্রচার-প্রচারনায় সাবেক সংসদ সদস্য
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি:

আসন্ন ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ফরিদপুরে নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়্যারম্যান পদপ্রাথী মনিরুজ্জামান সরদারের নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য নির্বাচনী প্রচার- প্রচারনা চালাচ্ছেন ফরিদপুর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, ফরিদপুর জেলা শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি সাইফুজ্জামান জুয়েল চৌধুরী ও শেখ রাসেল ক্রীয়া চক্রের পরিচালক জামাল হোসেন মিয়া। এ সময় তার প্রধান মন্ত্রীর নৌকাকে বিপুল ভোটে জয়ী করার আহব্বান জানান।

বিশ্বনেতাদের শুভেচ্ছা পাচ্ছেন শেখ হাসিনা
                                  

অনলাইনডেস্ক: একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বড় জয়ে বিশ্বনেতাদের শুভেচ্ছা পাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা, যিনি টানা তৃতীয় মেয়াদে বাংলাদেশের সরকারপ্রধানের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। চীনের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, ভুটানের রাজা, প্রধানমন্ত্রী এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করায় শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে জানানো হয়েছে। এর আগে সোমবার সকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টেলিফোন করেন শেখ হাসিনাকে। তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও তার দলকে ভোটের জয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে দুই দেশের পুরনো ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আরও জোরদার করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। এছাড়া দেশেও রাজনীতিক ও সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, বিদেশি কূটনীতিকরা গণভবনে গিয়ে শুভেচ্ছা জানান শেখ হাসিনাকে।  রোববার অনুষ্ঠিত ভোটের ফলাফলে নৌকার এই অভাবনীয় জয়ের বিপরীতে ভরাডুবি হয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও নির্বাচনে আসা বিএনপির। ভোট হওয়া ২৯৯ আসনের মধ্যে ২৫৯টি আসনে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সবমিলিয়ে মাত্র ৭টি আসনে জয় পেয়েছে ধানের শীষের প্রার্থীরা, তাদের চেয়ে বেশি আসন পেয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অন্যতম অংশীদার জাতীয় পার্টি ২০টি।

থার্টি ফার্স্ট নাইট উপলক্ষে ডিএমপি নির্দেশনা দিয়েছে
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এরই অংশ হিসেবে ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টার পর থেকে হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে দেয়া হবে না বলে নির্দেশনা রয়েছে ডিএমপির। এক প্রেস বার্তায় বিষয়টি জানিয়েছে ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেসন্স বিভাগ। ডিএমডির ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টেও নির্দেশনাসমূহ উল্লেখ করা হয়েছে। প্রেস বার্তায় ডিএমপি উল্লেখ করেছে, ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনের নামে কিছু উচ্ছৃঙ্খল ব্যক্তি নিজস্ব সংস্কৃতি, মূল্যবোধ ঐতিহ্যবিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকে। কতিপয় ব্যক্তি আনন্দের আতিশয্যে পটকাবাজি, আতশবাজি, অশোভন আচরণ, বেপরোয়া গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালানোর মাধ্যমে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা/দুর্ঘটনা ঘটিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির উদ্ভব ঘটায়। ক্ষেত্র বিশেষে প্রকাশ্যে অভদ্রজনোচিত আপত্তিকর আচরণ করে। এসব নৈতিক মূল্যবোধপরিপন্থী কর্মকাণ্ড যেন না ঘটে ও ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনকালে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির যেকোনো ধরনের আশঙ্কা রোধ কল্পে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দেয়া নিম্নোক্ত নির্দেশনাসমূহ মেনে চলার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করা হলো।১. ঢাকা মহানগরের সার্বিক নিরাপত্তা ও আইন-শৃঙ্খলার স্বার্থে রাস্তার মোড়, ফ্লাইওভার, রাস্তায়, ভবনের ছাদে এবং প্রকাশ্য স্থানে কোনো ধরনের জমায়েত/সমাবেশ/উৎসব করা যাবে না। ২. উন্মুক্ত স্থানে নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে কোনো ধরনের অনুষ্ঠান বা সমবেত হওয়া যাবে না বা নাচ, গান ও কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা যাবে না। ৩. কোথাও কোনো ধরনের আতশবাজি/পটকা ফোটানো যাবে না। ৪. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সন্ধ্যা ৬টার পর বহিরাগত কোনো ব্যক্তি বা যানবাহন প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। ৫. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের গাড়ি নির্ধারিত সময়ের পর পরিচয় প্রদান সাপেক্ষে নীলক্ষেত এবং শাহবাগ ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে। ৬. গুলশান এলাকায় প্রবেশের জন্য কাকলী ক্রসিং এবং আমতলী ক্রসিং ব্যবহার করা যাবে। তবে নির্ধারিত সময়ের পর পরিচয় প্রদান সাপেক্ষে এ দুটি ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। ৭. একইভাবে উপযুক্ত সময়ে সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে গুলশান, বনানী, বারিধারা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় যেসব নাগরিক বসবাস করেন না, তাদের বর্ণিত এলাকায় গমনের ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করা হলো। ৮. সন্ধ্যা ৬টার পর হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে দেয়া হবে না। ৯. গুলশান, বনানী ও বারিধারা এলাকায় বসবাসরত নাগরিকদের ৩১ ডিসেম্বর রাত ৮টার মধ্যে স্ব-স্ব এলাকায় প্রত্যাবর্তনের জন্য অনুরোধ করা হলো। ১০. মাদকদ্রব্যেব অপব্যবহার নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টার পর ঢাকা মহানগরীর কোনো বার খোলা রাখা যাবে না। ১১. ইংরেজি নববর্ষের প্রাক্কালে ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে ১ জানুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্তোরাঁ, জনসমাবেশ ও উৎসবস্থলে সকল প্রকার লাইসেন্সকৃত আগ্নেয়াস্ত্র বহন না করার জন্য সংশ্লিষ্ট সম্মানিত নগরবাসীর প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ উপর্যুক্ত নির্দেশনা পালনে ব্যর্থ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সবার মতামত নিয়েই গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ব্যবস্থা :প্রধানমন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সবার মতামত নিয়েই গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে গণভবনে ইসলামী দলগুলোর সঙ্গে আলোচনায় সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। ধর্মীয় শিক্ষা ব্যবস্থাসহ সার্বিক উন্নয়নে সরকারের টানা দুই মেয়াদের কর্মকাণ্ডের মূল্যায়ন দিয়েই আলোচনা শুরু করে তিনি বলেন, টানা দুই মেয়াদে ধর্মীয় শিক্ষা ব্যবস্থাসহ দেশের সার্বিক উন্নয়নে কাজ করেছে সরকার।
আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারের সঙ্গে চলমান আলোচনার অংশ হিসেবে বেলা পৌনে ৩টার দিকে গণভবনে শুরু হয় ইসলামী ১২টি দল ও জোটের ৫২ নেতার সঙ্গে সংলাপ। প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠকে প্রত্যেক দলের নেতারা নিজ নিজ কথা এবং কিছু দাবি উপস্থাপন করেছেন। সংলাপে ক্ষমতাসীনদের ২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলে নেতৃত্বে দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংলাপ অংশ নেওয়া দলগুলো হলো— ইসলামী ঐক্যজোট (আইওজে), বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, বাংলাদেশ জালালি পার্টি, আশিক্কীনে আউলিয়া ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশ, জাকের পার্টি, বাংলাদেশ জাতীয় ইসলামী জোট-বি.এন.আই.এ, বাংলাদেশ সম্মিলিত ইসলামী জোট, ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ)।
সংলাপে ইসলামী ঐক্যজোটের একাংশের নেতারা শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। সংলাপ শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, গত ১০ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ইসলামী দলগুলোর নেতারা। আগামীতে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় ফিরে আসবেন, এ ব্যাপারে তাদের সার্বিক সহযোগিতা থাকবে, একথা তারা অকপটে বলে গেছেন।
মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও স্বাধীনতার আদর্শ সমুন্নত রাখার ব্যাপারে উভয়পক্ষই সংলাপে একমত হয়েছে বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সংবিধানসম্মত উপায়ে নির্বাচনে যেতে ইসলামী দলগুলোর কোনো দ্বিমত নেই জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, ইসলামী দলগুলো সংবিধানসম্মতভাবে নির্বাচন সমর্থন করে এবং এ ব্যাপারে তারা অংশী হিসেবে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও ক্ষমতায় ফিরে আসবেন বলে তারা আশাবাদী।
নির্বাচন সংক্রান্ত নানা বিষয়ে মতবিরোধের মধ্যে কামাল হোসেনের উদ্যোগে বিএনপিকে নিয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ডাকে সাড়া দিয়ে প্রথমে তাদের আলোচনায় ডাকেন শেখ হাসিনা। এরপর অন্য দলগুলোকেও সংলাপে আমন্ত্রণ জানান তিনি। গত বৃহস্পতিবার শুরু হয়ে বুধবার পর্যন্ত সংলাপ করবেন শেখ হাসিনা। এরপর বৃহস্পতিবার সংলাপের ফলাফল জানাবেন সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে।
সংলাপ শেষে ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী সাংবাদিকদের বলেন, ‘সব দলের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে নির্বাচন ব্যবস্থা করার জন্য আমরা প্রস্তাব দিয়েছি। সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সবার অংশগ্রহণ প্রয়োজন।’
ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের কো-চেয়ারম্যান এম এ আউয়াল বলেন, আমরা বলেছি এ সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকুক। একই সঙ্গে এই সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে আমাদের আপত্তি নেই-সেটিও জানিয়েছি।
বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের চেয়ারম্যান মাওলানা আতাউল্লাহ বলেন, ‘আমরা এককভাবে নির্বাচনে অংশ নেব। কোনো জোটে যাব না। অবাধ-নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আমরা প্রস্তাব করেছি। প্রধানমন্ত্রী আমাদের কথা শুনেছেন।’ আর জাকের পার্টি দাবি করে, তারা মহাজোটে আছে।
ইসলামী ১২টি দল ও জোটের ৫২ নেতারা হলেন ইসলামি ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ নেজামীসহ ১২ জন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা সুজাসহ তিন জন, বাংলাদেশ জালালি পার্টির চেয়ারম্যান আহমদ চৌধুরী জালালিসহ তিন জন, বাংলাদেশ সম্মিলিত ইসলামী জোটের সভাপতি মাওলানা জিয়াউল হাসানসহ চার জন, বাংলাদেশ জাতীয় ইসলামী জোটের চেয়ারম্যান গোলাম মোর্শেদ হাওলাদারসহ চার জন, জাকের পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফা আমীর ফয়সলসহ তিন জন, আশিক্কীনে আউলিয়া ঐক্যপরিষদ বাংলাদেশের সভাপতি সাইয়েদ আলম নূরীসহ তিন জন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের চেয়ারম্যান মাওলানা আতাউল্লাহসহ চার জন, আঞ্জুমানে রাহমানিয়া মাইনিয়া মাইজভাণ্ডারীর প্রেসিডেন্ট সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমেদ, ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের কো-চেয়ারম্যান এম এ আউয়াল প্রমুখ।

শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব ---ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
বাংলাদেশ জাতীয় জোট (বিএনএ) ও বাংলাদেশ তৃণমূল বিএনপি’র চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা বলেছেন , ঐক্যফ্রন্টের দাবীর কোন যুক্তি নেই । শেখ হাসিনার অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব। গত মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাগো বাঙ্গালী (বিজেবি)’র উদ্যোগে “বর্তমান জাতীয় সংলাপ ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ”- শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, দেশ এগিয়ে চলেছে । বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর শাসনামলে দেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। অন্যকোন দল ক্ষমতায় আসলে এই উন্নয়ন বাধাঁগ্রস্থ হবে। আগমী দুই বছর পরে আমাদের দেশের জনগন স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উদযাপন করবে। একটি সুন্দর, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন বর্তমান সরকারের অধীনে সম্বব। সভায় সভাপতিত্ব করেন , বিএনএ জোটের মহাসচিব , বিজেবির চেয়ারম্যান , মুক্তিযোদ্ধা দিবসের প্রস্তাবক , সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর ডা: হাবিবুর রহমান । তিনি বলেন, পদ্মা সেতু , পায়রা বন্দর, ও ঢাকায় মেট্রোরেল চলাচলসহ তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে যে উন্নয়ন হয়েছে তা ধরে রাখতে শেখ হাসিনার সরকারের বিকল্প নেই। তিনি আশা করেন, এ সরকারের অধীনেই সবকটি রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মানবাধিকার পার্টির সভাপতি হ্যাপি হাবিব, বাংলাদেশ গণআজাদী লীগের সভাপতি আতাউল্লাহ খান। অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন বিজেবির মহাসচিব এস. এইচ শিবলী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কবি মায়ারাজ।

আমার সংসার টিকে আছে এইতো বেশি
                                  

 

নিজস্ব সংবাদদাতা:
আসন্ন জাতীয় নির্বাচন কে সামনে রেখে এক মতবিনিময় সভায় তার নিজের অফিসে এভাবেই মনের কষ্ট প্রকাশ করলেন ভাংগা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব শরীফুজ্জামান শরীফ। তিনি এলাকার মানুষের বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনছিলেন। একজন কর্মি অভিযোগ করে বলেন, আপনাকে সব সময় ফোনে পাওয়া যায়না । প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রাজনীতি করতে গিয়ে কোনদিন পরিবারের লোকজনকে সময় দিতে পারিনি, আমার স্ত্রী, সন্তানরা আমাকে ছাড় দেয় বলে এখনো আমার সংসার টিকে আছে। যত রাতই হোক আপনাদের বিপদে ছুটে গিয়েছি। জীবনের অনেকগুলো বছর আপনাদের সেবায় কাটিয়ে দিলাম। এখন এ ধরনের কথায় খুব কষ্ট পাই। পরিশেষে সবাইকে একজোট হয়ে নৌকার পক্ষে ও কাজী জাফরউল্লাহ কে বিজয়ী করার লক্ষ্যে কাজ করার জন্য আহব্বান জানান।

যারা হামলা চালাচ্ছে তারাই বিচার চাইছে: মোশাররফ
                                  

কুষ্টিয়ায় আদালত চত্বরে মাহমুদুর রহমানের ওপর ‘হামলাকারীই’ সংবাদ সম্মেলন করে হামলার ঘটনার বিচার চাইছেন দাবি করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা স্বাধীন থাকলে এই মামলাটি গ্রহণযোগ্যই হতো না। অথচ সেই মিথ্যা মামলার বাদী আদালতে উপস্থিত থেকে দলবলসহ লাঠিসোটা নিয়ে মাহমুদুর রহমানের ওপর ঘৃণ্য ও নিন্দনীয় হামলা চালিয়েছে। যারা হামলা চালাচ্ছে তারাই বিচার দাবি করছে। হামলাকারীরাই বিচারপ্রার্থী হয়ে উঠেছে।

তিনি বলেন, যার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে তিনিই কুষ্টিয়ায় সাংবাদিক সম্মেলন করে হামলার নিন্দা জানিয়ে বিচার দাবি করেছেন। তিনিও নাকি বিচার চান। জনগণ জানতে চায়- তিনি আসলে কার বিচার চান? হামলাকারীদের উদ্দেশে ড. মোশাররফ বলেন, আপনারা যারা এ সব করছেন, যাদের হুকুমে করছেন তারা কিন্তু বাতাস বদল হয়ে গেলে এ দেশে থাকবে না। তারা বিদেশে চলে যাবে। এই পুলিশই তখন ছবি দেখে দেখে আপনাদের খুঁজে খুঁজে বের করবে।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (একাংশ) আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি এ সব কথা বলেন।

ড. মোশাররফ বলেন, মাহমুদুর রহমানের আক্রমণ শুধু তার একার ওপর আক্রমণ নয়। তিনি আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক, এটা সব সংবাদপত্রের সম্পাদকের ওপর আক্রমণ। এ আক্রমণ মানবিক অধিকারের বিরুদ্ধে। সংবাদপত্রের ওপর সরকার যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করছে সেই নিয়ন্ত্রণ বাড়ানোর জন্যই এ আক্রমণ। এদেশের প্রত্যেকটি মানুষ স্যোশাল মিডিয়া ও টেলিভিশনের মাধ্যমে এ ঘটনা দেখেছে। সবাই দেখতে পেলেও পুলিশ দেখছে না, হামলাকারীদের এখনো খুঁজে পাচ্ছে না। এ দেশে ব্যাংকের রিজার্ভ লুট হয়, কারা সেই রিজার্ভ লুট করে তা চিহ্নিত করা যায় না। কি কারণে? কারণ, লুট তো তাদের লোকেরাই করে। ভোল্ট থেকে স্বর্ণ চুরি হয়, অর্থমন্ত্রী বলছেন ‘এটা কিছু না’। কেন বলেছেন? কারণ, অর্থমন্ত্রীও জানেন, সরকারের কর্তাব্যক্তিরা এগুলো করেছে। শেয়ার মার্কেটে যারা লুট করেছে তাদের তারা দেখতে পান না। মাহমুদুর রহমানের ওপর যারা হামলা করেছে তাদেরও খুঁজে পাবেন না। কারণ হামলাকারীরা আওয়ামী লীগের দুর্বৃত্ত।

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার গোয়েবলসের মতো মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করছে। বাংলাদেশে যারা ফ্যাসিবাদের দোসর তাদের রেহাই হবে না। তিনি বলেন, এই সরকারের কবল থেকে জনগণ মুক্তি চায়। সরকার জনগণকে ভয় পায়। আর বেগম খালেদা জিয়াকেও সরকার ভয় পায়। এ জন্যই তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। কিন্তু দেশের মানুষ বার বার প্রতারিত হতে চায় না। সময় আসছে জনগণই বর্তমান সরকারের পতন ঘটাবে।

অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন বিএফইউজের (একাংশের) সভাপতি রুহুল আমীন গাজী। বক্তব্য দেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের মহাসচিব ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, জামায়াতের নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের নেতা প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু, দিগন্ত টিভির ডেপুটি নির্বাহী পরিচালক মজিবুর রহমান মঞ্জু, সাংবাদিক নেতা এম আবদুল্লাহ, কাদের গনি চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম, সৈয়দ আবদাল আহমদ, শাহিন হাসনাত প্রমুখ।

আগামী দুই মাসের মধ্যে আমরা মাঠে নামবো: মওদুদ
                                  

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, বর্তমান সরকার কৌশলে সংবাদ মাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। যদি তাদের বিরুদ্ধে কেউ লিখে তারা ব্যবস্থা নেয়। কারণ এটা একটি জনবিচ্ছিন্ন সরকার। আমি আশা করি, আগামী দুই মাসের মধ্যে দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট পরিবর্তন ঘটবে। আমরা মাঠে নামবো। মাহমুদুর রহমানের রক্ত বৃথা যেতে দেবে না এ দেশের মানুষ। একদিন এর বিচার হবেই। আন্দোলনের মাধ্যমে আমরা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও হামলার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ, বিএসপিপি আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

মওদুদ বলেন, মাহমুদুর রহমানের ওপর যে আক্রমণ হয়েছে, তাতে সারা জাতি স্তম্ভিত, ক্ষুব্ধ। এটা জাতির জন্য কলঙ্কজনক অধ্যায়। তাকে যে রাজনৈতিক কারণে হত্যার উদ্দেশ্যে আদালতে আক্রমণ করা হয়েছে তার প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার দাবি জানাই।

অবিলম্বে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করে তিনি বলেন, মাহমুদুর রহমান আইনে বিশ্বাস করেন বলেই কুষ্টিয়ায় একটি ভিত্তিহীন মামলায় জামিন নিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তার ওপর যেভাবে পরিকল্পিত আক্রমণ হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক। পুলিশের সামনে আক্রমণ হয়েছে। কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নিতে সক্ষম হয়নি। সুতরাং আইন ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত। তাদের মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকার কোনো নৈতিক অধিকার নাই।

বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ডা. ফরহাদ হালীম ডোনার, বিএনপির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া, সাংবাদিক নেতা রুহুল আমিন গাজী,কাদের গনি চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

খালেদাকে নিয়ে ভয়ঙ্কর মাস্টারপ্ল্যানের দিকে কারা কর্তৃপক্ষ: রিজভী
                                  

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে কতটুকু গুরুতর অসুস্থ সে খবর জানতেও দিচ্ছে না কারা কর্তৃপক্ষ। গত পরশু দিন পরিবারের সদস্যরা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গেলে কারা কর্তৃপক্ষ বাধা দেয়। অসুস্থতার খবর জানতে পারার পরও তাঁর পরিবারের সদস্যদের কারা ভবনের দ্বিতীয় তলায় গিয়ে দেখা করার অনুমতি দেয়া হয়নি। কারা কর্তৃপক্ষ তার চিকিত্সা নিয়ে শুধু উদাসীনই নয়, সরকারের নির্দেশে কোনো ভয়ঙ্কর মাস্টারপ্ল্যানের দিকে এগুচ্ছে কী না তা নিয়ে জনমনে এক বড় প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। রিজভী বলেন, শুধু তাই নয় খালেদা জিয়ার সুচিকিত্সার বিষয়টি শুধু এড়িয়েই যাচ্ছে না বরং জাতীয় সংসদে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য রেখেছেন। বলেছেন, ‘‘বেগম জিয়ার অসুস্থতা না কি বাহানা! ৭৩ বছর বয়স্ক একজন অসুস্থ নারীর প্রতি নারী প্রধানমন্ত্রীর এ ধরনের ব্যঙ্গোক্তি সত্যি দুঃখজনক। আমি দলের পক্ষ থেকে সরকারের এই নিষ্ঠুর আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে ইউনাইটেড হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করে সুচিকিত্সার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণসহ নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।

রিজভী চিকিত্সকদের বরাত দিয়ে বলেন, ‘বেগম জিয়া ট্রানজিয়েন্ট স্কিমিং অ্যাটাকে (টিআইএ) ভুগছেন। প্রায়ই তার জ্বর হচ্ছে। আর পায়ের ব্যথায় হাঁটতে পর্যন্ত পারছেন না।

তিন সিটি নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের বলেছেন, খুলনা ও গাজীপুরের মতো তিন সিটিতেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। মূলত একথার মাধ্যমে ভোট কারচুপির সুষ্পষ্ট আভাস দিলেন তিনি। তিন সিটিতেই নৌকা মার্কার পক্ষে নির্বাচনী অনাচার আর ক্ষমতাসীনদের অবৈধ দাপট চলছে। বাস্তবতা হলো তিন সিটিতেই সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ বিদ্যমান নেই, নিরাপদে ভোট দিতে পারবে কিনা সেটি নিয়ে ভোটারদের মধ্যে এখনও শঙ্কা কাটেনি।

এসব নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে বারবার অভিযোগ করা হলেও তা আমলে নেয়া হচ্ছে না। নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানানো মানে অরণ্যে রোদন বলেও মন্তব্য করেন রিজভী। রিজভী বলেন, ‘শাসকের বিরোধীতা করার অর্থ রাষ্ট্রের বিরোধীতা করা নয়। আর এই বিরোধীতার জন্য নিরপরাধ ব্যক্তিদেরকে পুলিশ ও দলীয় ক্যাডারদের দিয়ে রক্তাক্ত করা ঘোরতর অন্যায় ও পাপ। রবিবার শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের তাণ্ডব পুলিশের উপস্থিতিতেই ঘটেছে। তুমুল ছাত্র আন্দোলনের মুখে কোটা আন্দোলনের দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দিয়ে সেদিন সরকার যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন সেটিতে ব্যর্থ হয়ে এখন তিনি আন্দোলনকারীদের দমাতে ছাত্রলীগকে লেলিয়ে দিয়েছে।

কর্মসূচি:
রিজভী জানান, খালেদা জিয়ার সুচিকিত্সা ও নিঃশর্ত মুক্তি এবং সকল রাজবন্দির মুক্তির দাবিতে আগামী শুক্রবার বেলা তিনটায় নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয় অথবা প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি সমাবেশ করবে। এছাড়া একই দাবিতে ওইদিন দেশব্যাপী সকল জেলা, মহানগর ও উপজেলা সদরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান তিনি। বিএনপি, এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সমাবেশ সফল করার জন্য অনুরোধ জানান রিজভী।


   Page 1 of 29
     রাজনীতি
অভিনন্দন নবনির্বাচিত দুই মেয়র --- যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক
.............................................................................................
ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য কামাল হোসেন মিয়ার গাড়িতে হামলা
.............................................................................................
বিএনপি কার্যালয় ঘিরে রেখেছে পুলিশ
.............................................................................................
যুবলীগের নবনির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা আব্দুল মালেক
.............................................................................................
খালেদার রিটের শুনানি নিয়মিত বেঞ্চে
.............................................................................................
নগরকান্দায় আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড জামাল হোসেন মিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন
.............................................................................................
নগরকান্দা উপজেলা নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোটের মাঠে সাবেক এমপি জুয়েল চৌধুরী
.............................................................................................
ফরিদপুরে নগরকান্দা উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে নৌকার প্রচার-প্রচারনায় সাবেক সংসদ সদস্য
.............................................................................................
বিশ্বনেতাদের শুভেচ্ছা পাচ্ছেন শেখ হাসিনা
.............................................................................................
থার্টি ফার্স্ট নাইট উপলক্ষে ডিএমপি নির্দেশনা দিয়েছে
.............................................................................................
সবার মতামত নিয়েই গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ব্যবস্থা :প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব ---ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা
.............................................................................................
আমার সংসার টিকে আছে এইতো বেশি
.............................................................................................
যারা হামলা চালাচ্ছে তারাই বিচার চাইছে: মোশাররফ
.............................................................................................
আগামী দুই মাসের মধ্যে আমরা মাঠে নামবো: মওদুদ
.............................................................................................
খালেদাকে নিয়ে ভয়ঙ্কর মাস্টারপ্ল্যানের দিকে কারা কর্তৃপক্ষ: রিজভী
.............................................................................................
দিল্লি বিমানবন্দর থেকে ফিরিয়ে দেয়া হলো খালেদার ব্রিটিশ আইনজীবীকে
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির অনশন চলছে
.............................................................................................
২০২০ ও ২০২১ সাল ‘মুজিব বর্ষ’ পালনের ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশীদের সঙ্গে আজ কথা বলবেন শেখ হাসিনা
.............................................................................................
স্বজনরা দেখা করেছেন খালেদা জিয়ার সঙ্গে
.............................................................................................
আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা শনিবার
.............................................................................................
বিপুল ভোটে মেয়র হলেন জাহাঙ্গীর
.............................................................................................
ভোট নিয়ে উদ্বেগ-আশঙ্কা গভীরতর হচ্ছে: রিজভী
.............................................................................................
গাজীপুরে মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে ভোট প্রচারণা
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে কুড়িগ্রামে বিএনপির বিক্ষোভ
.............................................................................................
তিন সিটি নির্বাচনে যাবে বিএনপি
.............................................................................................
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির থানা-ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যার সঙ্গে সোনার বাংলা গড়তে কাজ করবো: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
মাদকবিরোধী অভিযানে হত্যাযজ্ঞ চলছে: মওদুদ
.............................................................................................
বিএনপিতে থাকা মাদক সম্রাটদের খুঁজে বের করা হবে: কাদের
.............................................................................................
আন্দোলনই শেষ ভরসা বিএনপির
.............................................................................................
আমার নাম বিকৃত করে ‘অমুক কাকা’ বলা সমীচীন হয়নি : বি. চৌধুরী
.............................................................................................
কারাগারে খালেদার সঙ্গে অমানবিকতার তুলনা নেই: ফখরুল
.............................................................................................
কেসিসির স্থগিত ৩ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে
.............................................................................................
১০ বছর ধরে শুনছি তিস্তার সমাধান হয়ে যাবে কিন্তু হয়নি: ফখরুল
.............................................................................................
ক্ষমতা হস্তান্তরে নির্বাচন ছাড়া বিকল্প নাই : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
.............................................................................................
বিরোধী দল নির্মূল করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবহার করছে সরকার: মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
সরকারের চরিত্র তুলে ধরতে পারছে না দেশের গণমাধ্যম: খসরু
.............................................................................................
তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনা হবে : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর কথায় আস্থা রাখুন : কাদের
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে জলকামান ফেলে পালাল পুলিশ
.............................................................................................
ছাত্রলীগ যেন কোন ভুল না করে: জাফর ইকবাল
.............................................................................................
সরকারের নামে একাউন্ট খোলা হচ্ছে: ড. মোশাররফ
.............................................................................................
খালেদা জিয়াসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১৩ মে
.............................................................................................
`UNHCR’কে যুক্ত করতে রাজি মিয়ানমার
.............................................................................................
খালেদা ও তারেক ছাড়া নির্বাচন নয় : দুলু
.............................................................................................
‘দেশের অগ্রগতির বিষয়ে কাউকে কোন ছাড় দেয়া যাবে না’
.............................................................................................
নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে ক্ষমতায় আসবে জাতীয় পার্টি : এরশাদ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
চেয়ারম্যানঃ মনিরুজ্জামান অপূর্ব, সম্পাদকঃ জাকির এইচ. তালুকদার।
হেড অফিসঃ ২ আরকে মিশন রোড ঢাকা ১২০৩। সম্পাদকীয় কার্যালয়ঃ ১৯ নিউ ইস্কাটন রোড ঢাকা ১০০০; ফোনঃ ০১৭১৩৫৯২৬৯৬, ০১৬৭৫৯৬৬৬১৩,
ই-মেইলঃ dtvbanglahr@gmail.com
   All Right Reserved By www.dtvbangla.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD