বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
   * রমজানে বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর   * বাঙালির সব অর্জনই এসেছে ত্যাগের মাধ্যমে: প্রধানমন্ত্রী   * যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সাম্রাজ্য   * মৌলভীবাজারে ২৫ কোটি টাকার দরপত্র দাখিলে অনিয়মের অভিযোগ   * জিএম কাদের-চুন্নুকে বহিষ্কার করলেন রওশন এরশাদ   * সমসাময়িক বিষয় নিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে আছি: ওবায়দুল কাদের   * বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্ব অব্যাহত থাকবে: ডা. রাজীব রঞ্জন   * বিএনপি নেতাদের সঙ্গে ইইউ ইলেকশন এক্সপার্টদের বৈঠক   * ভবনের পাইলিং-ছাদ ঢালাইয়ে থাকতে হবে রাজউক কর্মকর্তাকে   * আওয়ামী লীগের যৌথসভা আজ  

   অপরাধ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সাম্রাজ্য


অনলাইন ডেস্ক:
প্রায় ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড বা বাংলাদেশি ২ হাজার ৭৬৯ কোটি টাকা মূল্যের ৩৫০টিরও বেশি সম্পত্তি নিয়ে যুক্তরাজ্যে রিয়েল এস্টেট সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন বাংলাদেশের সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। গত রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে। যুক্তরাজ্যে কোম্পানি হাউসের করপোরেট অ্যাকাউন্ট, বন্ধকি চার্জ এবং এইচএম ল্যান্ড রেজিস্ট্রি লেনদেনের ওপর ভিত্তি করে ব্লুমবার্গের বিশ্লেষণে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, লন্ডনের উত্তর-পশ্চিম এলাকায় একটি প্রপার্টি ২০২২ সালে ১১ মিলিয়ন পাউন্ডে বিক্রি হয়। রিজেন্টস পার্ক ও লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড থেকে একদমই কাছে অবস্থিত ওই প্রোপার্টিটি বৃটেনের রাজধানী লন্ডনের সবথেকে ধনী এলাকায় অবস্থিত। এই প্রপার্টির মালিক বাংলাদেশের রাজনীতিবিদ ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

ব্লুমবার্গের এক রিপোর্টে বলা হয়, বর্তমানে ওই প্রোপার্টির দাম ১৩ মিলিয়ন পাউন্ডের বেশি। এর মালিক বাংলাদেশের একজন রাজনীতিবিদ। বাংলাদেশে যে মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা রয়েছে, তার অধীনে কোনো নাগরিক, বাসিন্দা এবং সরকারি কর্মচারী বছরে ১২ হাজার ডলারের বেশি দেশের বাইরে পাঠাতে পারেন না। নির্দিষ্ট শর্ত পূরণ ও অনুমোদন ছাড়া কোনো করপোরেশনও বিদেশে অর্থ স্থানান্তর করতে পারে না।

এই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০১৬ সাল থেকে তার মালিকানাধীন কোম্পানিগুলো বৃটেনে প্রায় ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের ৩৫০টিরও বেশি প্রোপার্টির রিয়েল এস্টেট সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছে। এসব প্রোপার্টির মধ্যে রয়েছে লন্ডনের একদম কেন্দ্রে থাকা বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট থেকে শুরু করে টাওয়ার হ্যামলেটস এলাকার কয়েকটি অ্যাপার্টমেন্টও। ইংল্যান্ডের সবথেকে বড় বাংলাদেশি কমিউনিটির বাস এই টাওয়ার হ্যামলেটসেই। লিভারপুলে কিছু ছাত্রাবাসও রয়েছে তার।

নিউইয়র্কে সদর দপ্তর থাকা আন্তর্জাতিক এই সংবাদ সংস্থা যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় আড়াইশ প্রপার্টির তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখেছে ব্লুমবার্গ। যখন এই প্রপার্টিগুলো কেনা হয়, তখন যুক্তরাজ্যজুড়ে তীব্র আবাসন সংকট চলছিল এবং এর ৯০ ভাগই ছিল সদ্য তৈরি নতুন বাড়ি। এই লেনদেনগুলি এমন একটি সময়ের মধ্যে ঘটেছিল যখন বৃটিশ সরকার বিদেশি সম্পত্তির মালিকানাকে আরও স্বচ্ছ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

এদিকে গত নির্বাচনী হলফনামায় মোট ২.৪ মিলিয়ন ডলার সম্পদের কথা উল্লেখ করেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী। তার স্ত্রী রুখমিলা জামানের সম্পদ বলা হয় ৯ লাখ ৯৩ হাজার ডলার। কিন্তু এতে তিনি বৃটেনে থাকা তার সম্পদের পরিমাণ ঘোষণা করেননি।

বাংলাদেশের মুদ্রা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব কেন্দ্রীয় ব্যাংকের থাকায় এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক সাইফুজ্জামান চৌধুরী সম্পর্কে বিশেষ কোনো মন্তব্য না করেই বলেন, বাংলাদেশে বসবাস করার সময় কারো বিদেশে সম্পদ জমা করার বিধান নেই। এটা একটা সাধারণ নিয়ম যে, আমরা নাগরিকদের এটি করার অনুমতি দিই না।

এ বিষয়ে মন্তব্য করার অনুরোধ জানালে সাইফুজ্জামান চৌধুরী বা তার স্ত্রী কেউই কোনো জবাব দেননি। বৃটেনে তিনি ‘পলিটিক্যালি এক্সপোজড পার্সন’-এর তালিকায় পড়েছেন। দেশটির ২০১৭ সালের অর্থ পাচার আইনে এ বিষয়টিকে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে।

ব্লুমবার্গ তাদের প্রতিবেদনে উল্লিখিত কোম্পানিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে, যাদের মধ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর মালিকানাধীন কোম্পানিগুলোর জন্য সম্পত্তি কেনার সঙ্গে জড়িত আর্থিক সেবা ও আইনি প্রতিষ্ঠানগুলো রয়েছে। এদের মধ্যে কিছু সংগস্থা জানায়, এক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। তবে বাণিজ্যিক গোপনীয়তা নিয়ে উদ্বেগের কারণে বিস্তারিত মন্তব্য দেয়নি তারা।

এদিকে, সাইফুজ্জামান চৌধুরীর মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ক্ষেত্রে তাদের ব্যাকগ্রাউন্ড চেক আরও শক্তিশালী হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বৃটেনের প্রোপার্টি ব্যবসার সঙ্গে যুক্তরা। তবে ক্রেতাদের শনাক্ত করা বেশ কঠিন। প্রোপার্টিমার্কের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাথান এমারসন বলেন, যদি কেউ এরইমধ্যে ‘পলিটিক্যালি এক্সপোজড’ হন, তাহলে তাদের বিষয়ে আমাদের সতর্ক হতে হবে। কিন্তু ক্রেতাদের ব্যাকগ্রাউন্ড সম্পর্কে সবসময় তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট হওয়া যায় না। কেউ আমাদের অফিসে এলে আমরা কীভাবে বুঝবো যে তিনি কোনো দেশের মন্ত্রী কিনা।

যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সাম্রাজ্য
                                  


অনলাইন ডেস্ক:
প্রায় ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড বা বাংলাদেশি ২ হাজার ৭৬৯ কোটি টাকা মূল্যের ৩৫০টিরও বেশি সম্পত্তি নিয়ে যুক্তরাজ্যে রিয়েল এস্টেট সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন বাংলাদেশের সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। গত রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে। যুক্তরাজ্যে কোম্পানি হাউসের করপোরেট অ্যাকাউন্ট, বন্ধকি চার্জ এবং এইচএম ল্যান্ড রেজিস্ট্রি লেনদেনের ওপর ভিত্তি করে ব্লুমবার্গের বিশ্লেষণে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, লন্ডনের উত্তর-পশ্চিম এলাকায় একটি প্রপার্টি ২০২২ সালে ১১ মিলিয়ন পাউন্ডে বিক্রি হয়। রিজেন্টস পার্ক ও লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড থেকে একদমই কাছে অবস্থিত ওই প্রোপার্টিটি বৃটেনের রাজধানী লন্ডনের সবথেকে ধনী এলাকায় অবস্থিত। এই প্রপার্টির মালিক বাংলাদেশের রাজনীতিবিদ ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

ব্লুমবার্গের এক রিপোর্টে বলা হয়, বর্তমানে ওই প্রোপার্টির দাম ১৩ মিলিয়ন পাউন্ডের বেশি। এর মালিক বাংলাদেশের একজন রাজনীতিবিদ। বাংলাদেশে যে মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা রয়েছে, তার অধীনে কোনো নাগরিক, বাসিন্দা এবং সরকারি কর্মচারী বছরে ১২ হাজার ডলারের বেশি দেশের বাইরে পাঠাতে পারেন না। নির্দিষ্ট শর্ত পূরণ ও অনুমোদন ছাড়া কোনো করপোরেশনও বিদেশে অর্থ স্থানান্তর করতে পারে না।

এই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০১৬ সাল থেকে তার মালিকানাধীন কোম্পানিগুলো বৃটেনে প্রায় ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের ৩৫০টিরও বেশি প্রোপার্টির রিয়েল এস্টেট সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছে। এসব প্রোপার্টির মধ্যে রয়েছে লন্ডনের একদম কেন্দ্রে থাকা বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট থেকে শুরু করে টাওয়ার হ্যামলেটস এলাকার কয়েকটি অ্যাপার্টমেন্টও। ইংল্যান্ডের সবথেকে বড় বাংলাদেশি কমিউনিটির বাস এই টাওয়ার হ্যামলেটসেই। লিভারপুলে কিছু ছাত্রাবাসও রয়েছে তার।

নিউইয়র্কে সদর দপ্তর থাকা আন্তর্জাতিক এই সংবাদ সংস্থা যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় আড়াইশ প্রপার্টির তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখেছে ব্লুমবার্গ। যখন এই প্রপার্টিগুলো কেনা হয়, তখন যুক্তরাজ্যজুড়ে তীব্র আবাসন সংকট চলছিল এবং এর ৯০ ভাগই ছিল সদ্য তৈরি নতুন বাড়ি। এই লেনদেনগুলি এমন একটি সময়ের মধ্যে ঘটেছিল যখন বৃটিশ সরকার বিদেশি সম্পত্তির মালিকানাকে আরও স্বচ্ছ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

এদিকে গত নির্বাচনী হলফনামায় মোট ২.৪ মিলিয়ন ডলার সম্পদের কথা উল্লেখ করেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী। তার স্ত্রী রুখমিলা জামানের সম্পদ বলা হয় ৯ লাখ ৯৩ হাজার ডলার। কিন্তু এতে তিনি বৃটেনে থাকা তার সম্পদের পরিমাণ ঘোষণা করেননি।

বাংলাদেশের মুদ্রা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব কেন্দ্রীয় ব্যাংকের থাকায় এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক সাইফুজ্জামান চৌধুরী সম্পর্কে বিশেষ কোনো মন্তব্য না করেই বলেন, বাংলাদেশে বসবাস করার সময় কারো বিদেশে সম্পদ জমা করার বিধান নেই। এটা একটা সাধারণ নিয়ম যে, আমরা নাগরিকদের এটি করার অনুমতি দিই না।

এ বিষয়ে মন্তব্য করার অনুরোধ জানালে সাইফুজ্জামান চৌধুরী বা তার স্ত্রী কেউই কোনো জবাব দেননি। বৃটেনে তিনি ‘পলিটিক্যালি এক্সপোজড পার্সন’-এর তালিকায় পড়েছেন। দেশটির ২০১৭ সালের অর্থ পাচার আইনে এ বিষয়টিকে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে।

ব্লুমবার্গ তাদের প্রতিবেদনে উল্লিখিত কোম্পানিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে, যাদের মধ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর মালিকানাধীন কোম্পানিগুলোর জন্য সম্পত্তি কেনার সঙ্গে জড়িত আর্থিক সেবা ও আইনি প্রতিষ্ঠানগুলো রয়েছে। এদের মধ্যে কিছু সংগস্থা জানায়, এক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। তবে বাণিজ্যিক গোপনীয়তা নিয়ে উদ্বেগের কারণে বিস্তারিত মন্তব্য দেয়নি তারা।

এদিকে, সাইফুজ্জামান চৌধুরীর মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ক্ষেত্রে তাদের ব্যাকগ্রাউন্ড চেক আরও শক্তিশালী হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বৃটেনের প্রোপার্টি ব্যবসার সঙ্গে যুক্তরা। তবে ক্রেতাদের শনাক্ত করা বেশ কঠিন। প্রোপার্টিমার্কের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাথান এমারসন বলেন, যদি কেউ এরইমধ্যে ‘পলিটিক্যালি এক্সপোজড’ হন, তাহলে তাদের বিষয়ে আমাদের সতর্ক হতে হবে। কিন্তু ক্রেতাদের ব্যাকগ্রাউন্ড সম্পর্কে সবসময় তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট হওয়া যায় না। কেউ আমাদের অফিসে এলে আমরা কীভাবে বুঝবো যে তিনি কোনো দেশের মন্ত্রী কিনা।

মৌলভীবাজারে ২৫ কোটি টাকার দরপত্র দাখিলে অনিয়মের অভিযোগ
                                  

মৌলভীবাজার সংবাদদাতা:

গত ১০ জানুয়ারী তারিখে বিজ্ঞপ্তির নম্বর E-TENDER/PEDP4 / MOU / SAD / 2022-23/W1.05732 গত ১০/০১/২০২৪ ইং মৌলবীবাজার সদরউপজেলার ১৭টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিল্ডিং-টেন্ডার ছিল।যাহার প্রকল্পিত ব্যয় ছিলো প্রায় ২৫ কোটি টাকা উপজেলা প্রকৌশলীআলমঙ্গীর চৌধুরী নেতৃত্বে দলিয় নেতাদেরকে নিয়ে গোপন মিটিং করেপ্রত্যেকে .৯০ পার্সেন্ট অতিরিক্ত দরে দরপত্র দাখিলের সিদ্ধান্ত হয় আর পার্সেন্ট করে টাকা আলমগীর চৌধুরীর হাতে দেয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়।অতিরীক্ত দরপাশ করানোর জন্য প্রধান প্রকৌশলীকে  প্রজেক্টের পিডি কেদেয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়। পড়ে নিরীহ পেশাদার ঠিকাদারগনকে দরপত্রদাখিল করতে নিষেধ করা হয়। সমজোতার বিত্তিতে ১৭টি টেন্ডার ১৭ জনদাখিল করার সিদ্ধান্ত গৃহিত করা হয়। যে কারণে অনেক পেশাদার ঠিকাদারদরপত্র ক্রয়ের পরেও দাখিল করতে পারে নাই। উপজেলা প্রকৌশলীসবাইকে দরপত্র দাখিল করতে নিষেধ করেন। উপজেলা প্রকৌশলী একটিসিনডিকেটকে ১৭টি স্কুলের কাজ দিয়ে দেয়।  বিষয়ে স্থানীয় পাতাকুড়ি সহবিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় নিউজ হলেও কোন কাজ হয়নি। কারণ তিনিসাবেক ছাত্রদলের পলিটেকনিক্যাল এর এজিএস ছিলেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইজিপি সিস্টেম চালু করার পরে সকল বঞ্চিত ঠিকাদারগণ কাজপাইতেন টেন্ডার সিনডিকেট বন্ধ হয়ে মারা-মারি খুনা-খুনি হাত থেকেদেশকে রক্ষা করেন। বর্তমানে আলমগীর চৌধুরী উপজেলা প্রকৌশলীসরকারের ভাবমুর্তি নষ্ঠ করার জন্য নতুন করে সিনডিকেট গঠন করেদেশের ক্ষতি  সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার কাজে লিপ্ত আছেন। দরপত্র খানা বাতিল করে পুনঃরায় আহ্বান করলে মৌলভীবাজারের নিরিহঠিকাদারগণ অংশগ্রহন করিতে পারিবে। এবং উন্মুক্তভাবে সবাই দরপত্রদাখিল করিলে সরকারের প্রায় ১০ কোটি টাকা সাশ্রয় হবে। ইতিমধ্যে ইনিতরিগরি করে ইবালেশন করে অনুমোধনের জন্য টাকা প্রায় ৫০ লক্ষউঠিয়ে হাতে নিয়েছেন। তাছাড়া টেন্ডার আইডি নং-৯২৭৫৯৩ এপিপিতেপ্রাক্কলিত ব্যয় দরা হয়েছে  কোটি ৬১ লক্ষ আর প্রকৃত প্রাক্কলিত ব্যয় হচ্ছে কোটি ৫৪ লক্ষ টাকা। যে কাজ পেয়েছে তার সাথে যোগসাজেসে সেই জানেপ্রকৃত প্রাক্কলিত ব্যয় অন্য কাউকে প্রক্কলিত ব্যয়ের হিসাব দেওয়া হয়নি। তাঅনিয়মের আওতায় পরে বলে সকলের ধারণা।এই দরপত্রখানা পুনঃআহবান করা সকল ঠিকাদারদের দাবি।

মহাক্ষমতাধর বিআরটিএ’র সিন্ডিকেট; সদর নড়বড়ে, তবু ইকুরিয়ার ঘস্টিং-ঘুষিং বেপরোয়া ঘুষবাজ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক:
অবশেষে বিআরটিএ সদরের কার্যালয়ের সেই অদম্য মহাক্ষমতাধর এডি এডমিন (সহকারী পরিচালক প্রশাসন) রেজাউর ওরফে রিয়াজুর রহমান শাহিনের শক্ত খুটি নড়ে গেল। দীর্ঘ সময় পরে হলেও উপর্যুপরি পত্রিকার প্রতিবেদনের জের ও আলোচনার-সমালোচনার তোপে প্রায় সপ্তাহ দুই আগে তাকে (শাহিন) প্রশিক্ষন শাখায় বদলি করা হয়েছে। আর ওমর ফারুক নামের একজন রাজস্ব কর্মকর্তাকে অতিরিক্তি হিসেবে বসানো হয়েছে বলে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সাবেক চেয়ারম্যানের মশিউর রহমানের আমল থেকে শাহিন ওই সৃজিত এডি এডমিন পদে বসে নিয়োগ বাণিজ্য,সার্কেলে ঘুষ সিন্ডিকেট লালন করে উৎকোচ আদায়, নানা কায়দায় সরকারি টাকা লোপাট সহ নানা অনিয়ম-দূর্নীতিতে বেপরোয়া ছিলেন। আর এসব নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার এক পর্যায়ে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষ তা আমলে নেয়।

এতে ওই এডি এডমিন এক ধরনের ধরাশায়ী হন। কিন্তু তার সহযোগী ও কোটা জালিয়াতির নিয়োগপ্রাপ্ত তাহের, ফোরকান, কবির ও তাদের হোতা সেক্রেটারি আলমগীর তোপের মুখেই রয়েছেন। তবে এসব নিয়ে এতদিনের ঘেটাঘেটির পথেই সদরের চক্র অর্থাৎ ওই এডি এডমিন শাহিনের গড়া সার্কেলেরও (জোনে) নানা অনিয়মের নিরাপদ আস্তানাসহ কারচুপির চাকরি ও লোমহর্ষক সব অনিয়ম যেন সেই কর্মকর্তা আক্ষেপের কথাটি“সর্বাঙ্গে ব্যথায়,মলম দিবে কোথায়”বিষয়টিকে প্রমান করে দিচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার মিলেছে-ইকুরিয়ার ডিডি সানাউল্লাহ,এডি মুসা ও ইন্সপেক্টর জমিরের ওই পাশ-ফেল ‘ঘুষ গেড়াকলে”র ধুরন্ধর আরেক কুশিলবের সন্ধান। মোঃ আরিফ (৪৫) নামের ওই উচ্চমান সহকারীর বিরুদ্ধে রয়েছে-ফাইল আটকে ঘুষ আদায়ের বিস্তর অভিযোগ। এ যাবৎ তিনি ঘুষ আদায়ে বেপরোয়া হয়েও ধরাছোয়ার বাইরে থেকেই ফাইল আটকে ঘুষ হাতিয়ে ঢেকে ফেলেছেন পেছনের সব তকমা। মালিক হয়েছেন অভাবনীয় সম্পদের । তবে সদ্য ভুক্তভোগীদের ওই তিক্ততা প্রতিরোধের পর্যায়ে গড়িয়েছে।

ফলে তার বিরুদ্ধে জিম্মি করে ঘুষ আদায়সহ অবৈধ সুবিধা আদায়ে অভিযোগ সংশ্লিস্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ মন্ত্রণালয় পর্যন্ত গড়িয়েছে বলে জানা গেছে। রয়েছে-প্রায় ২৫বছর আগে ঘুষিং ও ঘস্টিং’র (ঘুষের বিনিময়ে ঘষেমেজে নাম বসানো) মাধ্যমে অন্যের ঝাড়ুদার মতান্তরে পিয়ন পদের চাকরিটি হাতিয়ে নেয়ার ধামাচাপা পড়া অভিযোগ। তবে এতদিনে তিনি যেমন-পিয়ন বা ঝাড়দার থেকে নির্বিঘ্ন কাচা টাকা হাতানোর মক্ষম জায়গা “উচ্চমান সহকারী”র পদ বাগিয়ে নিয়েছেন,তেমনি ঘুষের টাকায় পেছনের সব তকমা ধুয়ে-মুছে পূতপবিত্র সেজে বহাল তবিয়্যতেও রয়েছেন। কিন্তু এতকাল পরে হলেও এরই মধ্যে ঘস্টিং-ঘুষিং’র চাকরি বাগানোর অভিযোগ তার একটা বাগড়া হয়ে দাড়ানোর সম্ভবনার কানাঘুষা শুরু হয়েছে। ব্যাপারটা খানিকটা অপ্রত্যাশিত ও অবাঞ্চিত মনে হলেও এ চাকরিটির অন্য দাবিদার নিজাম উদ্দিনের (৪৫) প্রায় বছর দশেক আগে জজ কোর্টে ‘ল’ চেম্বারে ফাইলিং করা অভিযোগটি দাড় করানোর চেস্টাকালে সদরের ওই ঘুষবাজ চক্রের (এডি এডমিন) চক্রান্তে থমকে দাড়ান। সদ্য কাকতালীয় ভাবে তা নড়েচড়ে উঠেছে। (সূত্র-চাকরি বঞ্চিত বা দাবিদার)। অভিযোগে জানা গেছে, ওই সময় ঝাড়ুদার পদে অভিযোগকারীর নাম রেজাল্ট সিটে থাকলেও সদরের ওই হোতার মাধ্যমে তার ভাই মনোয়ার ও পিয়ন শফিক টাকার বিনিময়ে ওই অষ্পষ্ঠ নামটি ঘষেমেজে আরিফের বসায়। আর এতে নিজাম চাকরি বঞ্চিত হন।

বরাবরই ইকুরিয়ার ড্রাইভিং লাইসেন্স’র নবায়নের “পাশ-ফেল” ঘুষ গেড়াকলের একজন ঘুষবাজ ওই চাকরি ওয়ালা উচ্চমান সহকারী আরিফ। সদ্য ফের তার সাথে নতুনের কর্তৃত্বও লুফে নিয়েছেন। কারণ এর আগে অনেক দিন ধরেই ইকুরিয়ার ঘুষ বাণিজ্যের পাশ-ফেলের গেড়াকলের চালকদের ঘিরে একটার পর একটা প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে বেশ তোলপাড় হয়। তবে এসব তারা (সংশ্লিস্টরা) খুব একটা পাত্তা না দিলেও এতকাল ওই ঘুষের গেড়াকলের কাছে ভিড়তে বাধগ্রস্থ অনেকে শরীক হওয়ার সুযোগ পেয়েছে। উঃ মাঃ সঃ আরিফও এ সুযোগে নবায়নের সাথে নতুন লার্নানের গেড়াকলের চালক হয়ে আরো বেশামাল হয়ে উঠেছেন। এসব অভিযোগর বিষয়ে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষ নজরে রেখেছেন বলে জানান। তবে এ বিষয়ে তার বক্তব্য জানার জন্য মোবাইলে ফোন করলে তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান, অফিসে দেখা করতে বলেন। আরো আছে. . . .

নগরকান্দায় জমি জবরদখলে থানায় অভিযোগ
                                  

নজরুল শেখ, স্টাফ রিপোর্টার:

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার ডাঙ্গী ইউনিয়নের পাড়াদিয়া গ্রামের মৃত আমজাদ শেখ এর স্ত্রী আছিরন বেগম (৭০) এর তফসিল বর্নিত ১৭১ নং পাড়াদিয়া মৌজার ৩৯,৪৩ খতিয়ানের ২৫৬,২৫৮,৪০৩,২৬০,৪০৪,৪৯৮ নং দাগের মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১ একর ১১.০০ শতাংশ দাবীকৃত সম্পত্তির পরিমাণ ৩৭.০০ শতাংশ । ওয়ারিদ সূত্রে জমির মালিক আছিরন বেগম। জমির মালিক আছিরন বেগম বয়োবৃদ্ধ হওয়ায় তার ছেলে নজরুল শেখ (৪২) পিতা আমজাদ শেখ গ্রাম পাড়াদিয়া থানা নগরকান্দা জেলা ফরিদপুর বাদী হয়ে ৪ জুলাই মঙ্গলবার নগরকান্দা থানায় দখলদারিদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেন। দখলদারিরা হলেন ১। মোঃ রেজাউল মাতুব্বর (৪৫)পিতা মৃত শুকুর মাতুব্বর ২। মোঃ হাসমত মাতুব্বর (৬৫) পিতা মৃত রকন মাতুব্বর উভয় সাং পাড়াদিয়া থানা নগরকান্দা জেলা ফরিদপুর। ওয়ারিদ সূত্রে পালানের মালিক আছিরন বেগম। অভিযোগকারী নজরুল শেখ বলেন, জবর দখলকারীদের পলানের জায়গায় ছেড়ে দিতে বল্লে তারা আমাদের মারপিটের হুমকি দিয়ে মারতে আসে যে জায়গার কাছে তোরা কেউ আসলে জীবনে শেষ করে ফেলব, তাই জবর দখলকারীদের হাত থেকে জমি উদ্ধার করতে থানায় অভিযোগ করা হয়। এছাড়া এলাকায় অনেক সালিশ হয়েছে তারা কাউকে পরয়া করেনা। অনেক বছর ধরে তারা জমি দখল করে আছে। এবিষয় জবর দখলকারী রিজাউল মাতুব্বর ও হাসমত মাতুব্বর কে বাড়িতে না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য জানা যায়নি।

ইজিবাইক চালক হত্যা: দুই আসামি গ্রেফতার
                                  

Online desk (DTV BANGLA NEWS):মেহেরপুরে আবাসিক হোটেলে ইজিবাইক চালক আব্দুর রহমান (৫৫) হত্যা মামলায় দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১২ জুন) ভোরের দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক দল  ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থেকে তাদেরকে আটক করে। একই সময়ে উদ্ধার করা হয় ছিনতাইকৃত ইজিবাইক। আটককৃতরা হলেন- ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার দুবরাজপুর গ্রামের দিনবন্ধু বিশ্বাসের ছেলে পল্লব কুমার বিশ্বাস (৩০) ও একই উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মজিদ আলীর ছেলে রাজু শেখ (২৭)। মেহেরপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি সাইফুল আলম জানান, মোবাইল ট্রাকিং করে আসামিদের অবস্থান সনাক্ত করা হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) আজমল হোসেনের নেতৃত্বে জেলা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম অভিযান চালিয়ে প্রথমে পল্লব কুমার বিশ্বাসকে ও পরে তার স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী অনুযায়ি রাজু শেখকে গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনায় তদন্ত চলছে। আরও যারা জড়িত রয়েছে তাদেরকে খুব দ্রুত আটক করা হবে।প্রসঙ্গত, রবিবার (১১ জুন) বিকেলে মেহেরপুর শহরের হোটেল বাজার এলাকায় একটি আবাসিক হোটেল থেকে ইজিবাইক চালক আব্দুর রহমানের গলাকাটা অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

ফরিদপুরে ভূয়া স্ট্যাম্প বানিয়ে বাদীর নামে আদালতে মিথ্যা মামলা
                                  

নজরুল শেখ, স্টাফ রিপোর্টার:

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার লস্কারদিয়া ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার(কাজি মৌলভী) মনিরুল ইসলাম হেমায়েত পিতা- মৃত খলিলুর রহমান গ্রাম জুঙ্গুরদী থানা- নগরকান্দা জেলাঃ- ফরিদপুর ভূয়া স্টাম্প তৈরি করে মামলার বাদী মাওলানা আবুল হাসান পিতা- মৃত শামচুল হক তারা মাতুব্বর গ্রাম -জুঙ্গুরদী থানা- নগরকান্দা জেলা ঃ ফরিদপুর কে আসামী করে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৪ নং আমলী আদালত ফরিদপুর একটি মামলা করেন।মামলা নং নগরকান্দা সি আর ১১৫/২৩ তারিখ ১৬/৫/২৩ ইং মোকদ্দমা দঃবিঃ ৪০৬/৪২০ ধারা। এই মামলার আসামী মাওলানা আবুল হাসান এর নিকট থেকে প্রতিবেশী কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর নগদ টাকা প্রয়োজন হওয়ায় বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক লস্কারদিয়া বাজার শাখার ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার একটি চেক প্রদান করে যাহার সঞ্চয়ী হিসাব নং ৩৫৬৪ তারিখ ২০-০৬-২০২১। নগদ টাকা নিয়ে যায় বলে মাওলানা আবুল হাসান বলেন।


সময়মতো টাকা না দেওয়ায় কৃষি ব্যাংকে টাকা উত্তলন করতে গিয়ে জানতে পারে কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর একাউন্টে টাকা নেই। চেক ডিজাইনার করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর নামে চেক জালিয়াতি প্রতারনা মামলা করেন। মোকদ্দমা ঃ যুগ্ন জেলা ও দায়রা জজ মামলা নং ১০৬/২০২২।
তারিখ ১৬-০৬-২০২২। মামলা চলমান রয়েছে।মাওলানা আবুল হাসান এর মামলা চলমান থাকা কালিন সময় অতি পূর্বের তারিখ উল্লেখ করে ভূয়া একটি স্টাম্প তৈরি করে মাওলানা আবুল হাসান এর নামে ৬ লাখ টাকা পাবে দাবি করে আদালতে মামলা করেন।মামলা নগরকান্দা সি আর ১১৫/২৩ তারিখ ১৬-০৫-২৩।০২/০৪/২০১৫ ইং তারিখ টাকা নেওয়ার কথা উল্লেখ করে ০৫/০৫/২০২৩ তারিখ অশ্বীকারের তারিখ উল্লেখ করে মোকদ্দমাঃ দঃ বিঃ ৪০৬/৪২০ ধারা আদালতে মামলা করেন।স্ট্যাম্প গত ০১/০১/২০১৮ তারিখ হারানো দেখিয়ে ২১/০৩/২০২৩ তারিখে নগরকান্দা থানায় একটি জিডি করেন জিডি নং ৯৩৯।


কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর বানানো স্ট্যাম্প রেজি নং ১২১ তারিখ ০২/০৪/২০১৫। মাওলানা আবুল হাসান বলেন, আমাকে কৃষি ব্যাংক লস্কারদিয়া বাজার শাখার একটা চেক দিয়ে নগদ টাকা নেয় কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত, সময়মতো টাকা ফেরত না দিলে চেক ডিজাইনার করে তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করি মামলা চলমান রয়েছে,অপরদিকে ভূয়া স্ট্যাম্প বানিয়ে তার নিকট থেকে টাকা নিয়েছি বলে স্ট্যাম্পে উল্লেখ করে আদালতে মামলা করে ১৬/০৫/২০২৩ তারিখে।মামলার ৩ নং স্বাক্ষী মীর মাসুদ বলেন এই স্ট্যাম্পের মামলায় আমাকে স্বাক্ষী করা হয়েছে তা আমি এর কিছুই জানিনা,একদিন কাজী মৌলভী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত আমার দোকানে এসে বলে যে আমার মামলায় আপনাকে স্বাক্ষী করা হয়েছে আপনাকে স্বাক্ষী দিতে হবে তখন আমি তাকে বল্লাম কিসের স্বাক্ষী দিব এর কিছুই আমি জানিনা, এছাড়া আপনার কাছে মাওলানা আবুল হাসান দুই লাখ টাকা পায় আমি সেইটা জানি ও তার সেজ ভাই গ্রীল মাসুদের কাছে আপনি বাড়ি বিক্রি করছেন তাও জানি,আমি মিথ্যা স্বাক্ষী দিতে পারবনা বলে কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত কে বলে দিয়েছি বলে জানান।

কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এলাকার অনেক লোকজনদের নিকট থেকে স্ট্যাম্প,ব্ল্যাংক চেক দিয়ে টাকা নিয়ে টাকা ফেরত না দেওয়ায় হাজী আব্দুস সোবহান মোল্লা পিতা মৃত হাজী দানেশ মোল্লা গ্রাম জুঙ্গুরদী থানা নগরকান্দা সহ অনেকে মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর নামে মামলা করেন এবং সেই মামলা গুলো চলমান রয়েছে। এলাকার অনেকে তার কাছে টাকা পায় বলে এলাকায় সালিশ দরবার প্রতিনিয়ত হয় বলে স্থানীয় লোকজন জানান। এবিষয় কাজী মনিরুল ইসলাম হেমায়েত এর কাছে জানতে চাইলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে সরে পড়েন।

মৌলভীবাজারে উদয়ন এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনসহ ৩ বগি লাইনচ্যুত, রেল যোগাযোগ বন্ধ
                                  

Online Desk (DTV BANGLA NEWS ):মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সীমানায় চট্টগ্রাম থেকে আসা সিলেটগামী আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস (৭২৩) ট্রেনের ৩টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে গেছে। এর ফলে সিলেট-চট্টগ্রাম এবং সিলেট-ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। শনিবার (২০ মে) ভোর ৪টা ৪৫ মিনিটের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়ন গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেছেন শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনে মাস্টার সাখাওয়াত হোসেন। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, লাউয়াছড়ায় অংশে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৩টি বগি উল্টে যায়। কবে নাগাদ সারাদেশের সঙ্গে রেলযোগাযোগ চালু হবে এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা বলা যাচ্ছে না। আপাতত সিলেটের সঙ্গে চট্টগ্রাম এবং সিলেটের সঙ্গে ঢাকার রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ জানান মৌলভীবাজার বন্যপ্রাণী রেঞ্জের রেঞ্জকর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, রাতে ঝড়ের সময় লাউয়াছড়ায় বড় একটি গাছ লাইনের উপর আছড়ে পড়ে যায়। এই গাছের সঙ্গে থাক্কা লেগে উদয়ন ট্রেনের বগিগুলো লাইনচ্যুত হয়েছে। তবে কেউ আহত হয়নি।

 

কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ায় শ্বাসরোধে হত্যা করলেন মা!
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):   বরিশালের আগৈলঝাড়ায় কন্যা সন্তানের জন্ম হওয়ায় মায়ের বিরুদ্ধে ওই নবজাতককে গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) আগৈলঝাাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন মিলন বখতিয়ার নামে মৃত নবজাতকের বাবা। মামলার প্রেক্ষিতে রুমা খানম নামে ওই সদ্য প্রসূতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) ভোররাতে আগৈলঝাড়া উপজেলার বাকার ইউনিয়নের পূর্বপয়সা গ্রামের মিলন বখতিয়ারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
আগৈলঝাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গোলাম ছরোয়ার জানান, পূর্বপয়সা গ্রামের বাসিন্দা মিলন বখতিয়ার ও রুমা খানম দম্পতির অর্ধযুগের দাম্পত্য জীবনে ৫ বছরের মারুফা ও দেড় বছরের সোহানা নামে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) ভোর রাতে মিলনের স্ত্রী রুমা খানম পুনঃরায় কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের দুই ঘণ্টা পর ওই নবজাতকের গলায় রশি পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করে ফেলে রাখেন মা রুমা খানম নিজেই। এসময় প্রতিবেশী সাদিয়া বেগম রুমার কন্যা সন্তানকে দেখতে আসেন। এসময় সদ্যজাতকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেলে ঘটনা প্রকাশ পায়। জানাজানির এক পর্যায়ে আগৈলঝাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম ঘটনাস্থলে পৌঁছে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে মা রুমা খানম নিজেই তার কন্যা সন্তানকে হত্যা করেছেন বলে স্বীকার করেন। পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেই শিশুটির মা রুমা খানম জানিয়েছেন, আগের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে তাদের। সদ্য ভূমিষ্ট হওয়া সন্তান কন্যা হওয়ায় ক্ষোভে-দুঃখে তাকে মেরে ফেলেছেন। এসময় পুলিশ মা রুমা খানমকে গ্রেপ্তার করে এবং সদ্যজাতের মরদেহ থানায় নিয়ে আসেন।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম আল বেরুনী ও থানার ওসি মো. গোলাম ছরোয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। রুমা খানমের স্বামী মিলন বক্তিয়ার জানান, ৭ বছর পূর্বে ভালোবেসে বিয়ে করেন খাজুরিয়া গ্রামের রুমা খানমকে। পরে পরিবার মেনে নিলে তাদের দাম্পত্য জীবনে দুটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। দেড় বছরের কন্যা শিশু থাকতে আবারও রুমা খানম তৃতীয় কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়। রুমা হয়তো পরপর তিনটি কন্যা সন্তানের জন্ম হওয়াতে সদ্য ভূমিষ্ট সন্তানকে নিজ হাতে হত্যা করেন। এ ঘটনায় রুমার স্বামী মিলন বক্তিয়ার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) সকালে স্ত্রী রুমা খানমকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে এদিন (২০ এপ্রিল) দুপুরে শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া আসামি রুমা খানমকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানিয়েছেন আগৈলঝাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম।

সূত্র: বাংলানিউজ

ঝালকাঠিতে স্কুলশিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাত, সাবেক স্বামী আটক
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS): ঝালকাঠিতে রুনা খানম (৩৪) নামে এক স্কুলশিক্ষিকার পেটে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার সাবেক স্বামী মো. আতিকুর রহমানকে (৩৮) আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) সকাল ১০টার দিকে শহরের সাধনার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। আহত রুনা ঝালকাঠি শহরের শাহী মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষিকা পদে কর্মরত। কয়েক মাস আগে আতিকের সঙ্গে রুনার বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে রোনাল্ডস রোডের বাসা থেকে শীতলা খোলা শাহী মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাচ্ছিলেন রুনা। পথে সাধনার মোড়ে তার পথ রোধ করে পেটে ও বুকে ছুরিকাঘাত করেন আতিক। এ অবস্থায় স্থানীয় লোকজন রুনাকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পাঠান। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এদিকে ঘটনার সময় সেখানে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের এটিএসআই শাখাওয়াত স্থানীয়দের সহযোগিতায় রক্তমাখা ছুরিসহ আতিককে আটক করেন। গ্রেফতারকৃত আতিক ঝালকাঠির রোনাল্ডস রোডের শিশু স্বর্গ নামে একটি আর্টস্কুল পরিচালনা করেন। আর আহত শিক্ষিকা শহরের রোনাল্ডস রোডে ভাড়া বাসায় থাকেন। তার গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার মুরাসাতা গ্রামে বলে জানিয়েছেন, আতিকের দাবি, রুনা তার স্ত্রী ছিলেন, গত ২০২১ সালের ১৮ জুলাই তাদের বিয়ে হয়। পারিবারিক কলহের কারণে পরের বছর ২০২২ সালের ১৫ জুন তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এদিকে শাহী মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নুরুনাহার বেগম বলেন, আমাদের স্কুলের শিক্ষিকা রুনা খানমকে কুপিয়ে জখম করার তীব্র নিন্দা জানাই। দোষী ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

 সূএ:বাংলা নিউজ

অনলাইন জুয়ায় সর্বস্বান্ত অনেকে, গ্রেফতার যুবক
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):  অনলাইনে জুয়ার একটি প্ল্যাটফর্মের সদস্য মো. হাফিজ আল আসাদ (২৩) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)। এই যুবক বিভিন্ন মানুষকে টাকা ও ডলারের মাধ্যমে অনলাইন জুয়া খেলার জন্য উৎসাহিত করে অংশগ্রহণ করাতেন। এতে অনেকে সর্বস্বান্ত হয়েছেন। গ্রেফতার হাফিজের কাছ থেকে অনলাইন জুয়া প্ল্যাটফর্ম পরিচালনার কাজে ব্যবহৃত একটি স্মার্টফোন ও একটি সিম কার্ড জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্যমতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আরও একটি সিম কার্ড উদ্ধার করা হয়। বাড়ছে অনলাইন জুয়ায় আসক্তি, খোয়া যাচ্ছে কোটি কোটি টাকা হাফিজ আল আসাদ বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা শেষ করেছেন। ২৭ জানুয়ারি বগুড়া সদর থানাধীন কলোনি বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওয়ানএক্সবেট অনলাইন জুয়ার প্লাটফর্মের সদস্য রানা মিয়া ও রেজা আহম্মেদকে গ্রেফতার করে এটিইউ। রানা ও রেজাকে গ্রেফতারের পর ওই মামলার পলাতক আসামি হাফিজ আল আসাদ অনলাইন জুয়া প্ল্যাটফর্মের কাজে ব্যবহৃত মোবাইল দুটি (আইফোন ১৩ ও টেকনো স্পার্ক ৭) বিক্রি করে দেন। অনলাইন জুয়ায় হাজার কোটি টাকা পাচার, গ্রেফতার ৯ আসাদ ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইনে অবৈধভাবে জুয়া পরিচালনা, মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিসে জুয়ার টাকা লেনদেন এবং বিভিন্ন মানুষকে টাকা ও ডলারের মাধ্যমে অনলাইন জুয়া খেলার জন্য উৎসাহিত করে অংশগ্রহণ করাতেন। এতে অনেক লোক সর্বস্বান্ত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 সূএ:জাগো নিউজ

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে বৃদ্ধ নিহত
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS): কক্সবাজারে উখিয়া শিবিরে আধিপত্য বিস্তারের জেরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক রোহিঙ্গা বৃদ্ধ নিহত এবং এক শিশু আহত হয়েছে। উখিয়ার থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, শুক্রবার রাত ২টার দিকে উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী ৮-ডব্লিউ নম্বর রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধ উখিয়ার বালুখালী ৮-ডব্লিউ নম্বর রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরের ই-ব্লকের বাসিন্দা মৃত মোহাম্মদ কাশিমের ছেলে ছৈয়দ আলম (৬১)। আহত শিশু উখিয়ার কুতুপালং ৫ নম্বর রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরের ডি-ব্লকের বাসিন্দা নুরুল আমিনের ছেলে তাইফুর (১২)। স্থানীয়দের বরাতে শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, শুক্রবার মধ্যরাতে উখিয়ার বালুখালী ৮-ডব্লিউ নম্বর আশ্রয় শিবিরে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের দুই দলের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গুলিতে ঘটনাস্থলে এক বৃদ্ধ নিহত এবং এক শিশু গুলিবিদ্ধ হয়। খবর পেয়ে এপিবিএন ও উখিয়া থানা পুলিশের পৃথক দুইটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে একজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ এবং এক শিশুকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। আহত শিশু উখিয়ার কুতুপালংস্থ এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান ওসি। ওসি বলেন, রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। বৃদ্ধের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সূএ:বাংলা নিউজ

প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):  প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় দশম শ্রেণির ছাত্রীকে (১৫) অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অপহৃতা স্কুল ছাত্রীর বাবা ইউসুফ তালুকদার বাদী হয়ে বুধবার (২৯ মার্চ) রাতে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনাটি বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর এলাকার। বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) সকালে স্কুল ছাত্রীর বাবা জানান, তার দশম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে প্রায়ই উত্যক্ত করে আসছিল পাশের দেওপাড়া গ্রামের আলমগীর ফকিরের বখাটে ছেলে মিরাজ ফকির। উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বুধবার সকালে বাটাজোর অশ্বিনী কুমার ইনস্টিটিউটে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় মিরাজ ও তার সহযোগীরা স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরনদী মডেল থানার এসআই নাসির হোসেন বলেন, অপহৃতা স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারীকে আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।  

সূএ: বাংলা নিউজ

ফরিদপুরে শ্রেণিকক্ষে আটকে বাবা-ছেলেকে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):   ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলায় দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে এক কিশোর (১৫) ও তার বাবাকে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।   গত শুক্রবার (১৭ মার্চ) একটি স্কুলের শ্রেণিকক্ষে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। পরে এ নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত অভিযোগে প্রধান অভিযুক্ত মো. কুতুবউদ্দিন (২৫) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (২৬ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে মধুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম প্রধান অভিযুক্ত ওই যুবককে গ্রেফতারের বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন। ওসি শহিদুল জানান, গত শুক্রবার (১৭ মার্চ) দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে স্থানীয় একটি স্কুলের শ্রেণিকক্ষে এক কিশোর ও তার বাবাকে আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগে সোমবার (২০ মার্চ) মধুখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরে এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক প্রধান অভিযুক্ত কুতুবউদ্দিন নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরের পরিবার উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের মাঝকান্দি নামক এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকে। তাদের গ্রামের বাড়ি মাগুরায়। ওই কিশোর ও তার বাবা পৃথক দুটি জুট মিলে শ্রমিকের কাজ করেন। কিশোরের মা প্রবাসে রয়েছেন। যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠা শিশু তার সৎ বোন। স্থানীয়দের অভিযোগ ওই কিশোরের দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া সৎ বোনকে যৌন নির্যাতন করে আসছে বাবা-ছেলে মিলে। এমন অভিযোগের সূত্র ধরেই তাদের স্থানীয় একটি স্কুলের শ্রেণিকক্ষে আটকে কয়েকজন যুবক ও তরুণী মিলে মারধর করে। পরে, নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। নির্যাতনকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি তোলা হয়। এ ব্যাপারে মধুখালী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. সিরাজুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, খুব শিগগিরই এ ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। এ ঘটনায় ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও শিক্ষকরা জড়িত আছে কি-না সেটাও খতিয়ে দেখা হবে।

এছাড়া এ ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বিষয়টি নিয়ে ফরিদপুরের পুলিশ সুপারের (এসপি) সঙ্গে কথা বলেছি।

সূত্র: বাংলানিউজ

বড় বোনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি: একা পেয়ে ছোট বোনকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):   শিশুর বয়স নয় বছর। ১৪ মার্চ সন্ধ্যায় বড় বোনের সঙ্গে ঘুরতে বের হয় সে। ঘুরতে ঘুরতে বোনের সঙ্গে রাত ৮টার দিকে মোহাম্মদপুরের টাউনহল এলাকায় যায়। কিন্তু সেখানে তার বড় বোনের সঙ্গে হয় কথা কাটাকাটি। এসময় বড় বোন রাগ করে শিশুটিকে ফেলে অন্য বান্ধবীদের সঙ্গে চলে যান। তখন শিশুটি একা একা হেটে মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডের দিকে যায়। আনুমানিক রাত সাড়ে ১১টার দিকে শিশুটিকে দেখেন সিএনজি অটোরিকশাচালক সেলিম। এসময় তিনি ও তার সহযোগী শিশুটিকে ফুসলিয়ে সিএনজিতে তোলেন। এরপর তাকে জোড় করে ঢাকা উদ্যানের একটি লেগুনাস্ট্যান্ডে নিয়ে যাওয়া হয়।
পুলিশ জানায়, শিশুটি এসময় চিৎকার করে। এরপর প্রথমে সেলিমের সহযোগী ধর্ষণ করেন শিশুটিকে। পরে ধর্ষণ করেন সেলিম। এরপর সেই সহযোগী পুনরায় শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। উপর্যুপরি ধর্ষণের ফলে শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয় ও তার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। বুধবার (২২ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর শ্যামলীতে নিজ কার্যালয়ে এসব তথ্য জানান ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এইচ এম আজিমুল হক। এদিকে এ ঘটনায় অভিযুক্ত সেলিমকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার মধ্যরাতে রাজধানীর বাড্ডা থানার খালপাড় হাজীপাড়া রোড এলাকার একটি গ্যারেজে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে তার সহযোগী পলাতক। পুলিশ তার নাম জানায়নি। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ধর্ষণের পর শিশুটিকে ছেড়ে দিলে সে হেটে হেটে শিয়া মসজিদ এলাকায় গেলে বড় বোনের সঙ্গে তার দেখা হয়। এসময় বোন তাকে দ্রুত শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটির অবস্থা গুরুতর দেখে তাকে পাঠান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে শিশুটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন। এদিকে ধর্ষণের ঘটনায় শিশুর বাবা বাদী হয়ে আদাবর থানায় একটি মামলা করেছেন। পুলিশ জানায়, মামলার পর ঘটনাস্থলের আশপাশে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে একটি সন্দেহজনক সিএনজিকে চিহ্নিত করা হয়। এছাড়া ভুক্তভোগীর দেওয়া তথ্যানুযায়ী ঢাকা উদ্যান, নবোদয় হাউজিং, শিয়া মসজিদ, তাজমহল রোড, ইকবাল রোড এলাকার ২৩টি সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সিএনজির নম্বর শনাক্ত করা হয়। পরবর্তীতে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় শনাক্ত করা হয় সিএনজিচালকের অবস্থান। এরপর অভিযান চালিয়ে সেলিমকে গ্রেফতার করা হয়। উপ-পুলিশ কমিশনার জানান, সেলিমের সহযোগী পলাতক রয়েছেন। তার বিস্তারিত নাম-পরিচয় পেয়েছি। তাকে ধরতে অভিযান চলছে।

সূত্র: জাগো নিউজ

ছিলেন ঢাবির মেধাবী ছাত্র, ইউটিউব থেকে শেখেন চুরির কৌশল
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):   রাজধানীর মিরপুর রাইনখোলা বড় মসজিদের সামনে থেকে মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (১৯ মার্চ) এই তথ্য নিশ্চিত করেন মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ মহসীন।
গ্রেফতাররা হলেন, রেজা মো. সাইমুন ওরফে তরুণ (৩৫) ও সাদমান সাকিব (২৯)। গ্রেফতার তরুণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৭ টি মামলা রয়েছে। ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, রেজা মো. সাইমুন ওরফে তরুণ ছিলেন মেধাবী শিক্ষার্থী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ২০১১-১২ সেশনের শিক্ষার্থী ছিলেন। কিন্তু স্নাতক শেষ করতে পারেননি। ২০১৫ সালে চতুর্থ বর্ষে থাকাকালে বহিষ্কার হওয়ার পর পড়ালেখা ছেড়ে দেন। এরপর কিছুদিন একটি গানের দলে ছিলেন, বিভিন্ন স্টেজ শো করতেন। তিনি জানান, তরুণ পরে মোটরসাইকেল চুরিতে জড়িয়ে পরেন। ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে মুন্সীগঞ্জে বিক্রি করেন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় সাতটি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে দুটি মামলায় তার সাজাও হয়। গ্রেফতার আরেক আসামি সাকিব আর্কিটেকচারাল ভিজুয়ালাইজেশন বিষয়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির অধীনে ডিআইপিটিআইয়ের ধানমন্ডি ৩২ ক্যাম্পাস থেকে ২০১৫ সালে ডিপ্লোমা করেন। ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, সাধারণত মোটরসাইকেল চুরি অন্য কোনো চোরের কাছ থেকে শিখলেও তরুণ শেখেন নিজে নিজে। আর এক্ষেত্রে তিনি সহযোগিতা নেন ইউটিউব থেকে। মোটরসাইকেলের তালা কীভাবে ভাঙে, তা শিখে প্রথমে নিজের মোটরসাইকেলে প্রয়োগ করেন। এরপর শুরু করেন চুরি। প্রথম প্রথম ধরা না পরলেও পরে বেশ কয়েকবার পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন। সর্বশেষ ২০২১ সালে গ্রেফতার হয়ে ১৫ মাস জেল খেটে দুই মাস আগে জামিন পান। জামিনে বেরিয়ে গতকাল রাতে আবারও মোটরসাইকেল চুরি করতে গেলে জনতার হাতে ধরা পরেন। এরপর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। নতুন মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র: বাংলানিউজ

যৌতুকের বলি বিচারপতির ভাতিজি, স্বামী গ্রেফতার
                                  

Online Desk(DTV BANGLA NEWS):   রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় ফাতেমা নাসরিন (৪৫) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী বিসিএস ক্যাডার মির্জা সাখাওয়াত হোসেনকে (৪৯) করেছে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ। ফাতেমা নাসরিনের এইচএসসি পড়ুয়া এক মেয়ে রয়েছে। এছাড়া তিনি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের ভাতিজি বলে জানা গেছে। শুক্রবার (১৭ মার্চ) দিনগত রাত ১টার দিকে আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। শনিবার (১৮ মার্চ) দুপুরে এ তথ্য জানিয়েছেন ফাতেমার বড় বোন আরজিনা বেগম ও থানা পুলিশ। আরজিনা বেগম বলেন, বিয়ের পর থেকে সাখাওয়াত বিভিন্ন সময় ফাতেমার কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিল। আমাদের ঠাকুরগাঁওয়ে অবস্থিত পৈতৃক বাড়ি বিক্রি করে এক কোটি টাকা এনে দেওয়ার জন্য আমার ছোট বোনকে প্রায়ই চাপ দিতো সে। কিন্তু বাড়িটিতে আরও অংশীদার থাকায় বিক্রি করা যাবে না বলে জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে ফাতেমাকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন শুরু করে সাখাওয়াত। সন্তান ও সংসারের কথা চিন্তা করে মুখ বুজে সব সহ্য করে আসছিল ফাতেমা। তিনি আরও বলেন, দিন দিন সাখাওয়াতের নির্যাতন বেড়ে যাওয়া সহ্য না করতে পেরে গত জানুয়ারিতে পঞ্চগড় সদর থানায় নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেন ফাতেমা। ওই মামলায় সাখাওয়াত গ্রেফতারও হয়েছিল। পরে ঠিকভাবে সংসার করবে মর্মে জামিনে বেরিয়ে যৌতুকের টাকার জন্য ফের ফাতেমাকে চাপ দিতে থাকেন। সর্বশেষ নির্যাতনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, গত ৮ মার্চ যৌতুকের টাকার জন্য সাখাওয়াত তার মোহাম্মদপুরের বাসায় ফাতেমাকে চাপ দিতে থাকেন। এতে প্রতিবাদ করলে সাখাওয়াত ধারালো বঁটি দিয়ে হত্যাচেষ্টা করে এবং মসলা বাটার কাঠের বাটলা দিয়ে ফাতেমার মাথা থেঁতলে দেয়। এছাড়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। তাৎক্ষণিকভাবে ফাতেমাকে উদ্ধার করে আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শনিবার দুপুরে মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) তোফাজ্জল হোসেন বলেন, শুক্রবার রাতে ফাতেমা নামে এক নারী চিকিৎসাধীন মারা গেছেন। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে স্বামীর নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় মোহাম্মদপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। ফাতেমার স্বামীকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করেছি। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।

সূত্র: জাগো নিউজ


   Page 1 of 24
     অপরাধ
যুক্তরাজ্যে সাইফুজ্জামান চৌধুরীর প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সাম্রাজ্য
.............................................................................................
মৌলভীবাজারে ২৫ কোটি টাকার দরপত্র দাখিলে অনিয়মের অভিযোগ
.............................................................................................
মহাক্ষমতাধর বিআরটিএ’র সিন্ডিকেট; সদর নড়বড়ে, তবু ইকুরিয়ার ঘস্টিং-ঘুষিং বেপরোয়া ঘুষবাজ
.............................................................................................
নগরকান্দায় জমি জবরদখলে থানায় অভিযোগ
.............................................................................................
ইজিবাইক চালক হত্যা: দুই আসামি গ্রেফতার
.............................................................................................
ফরিদপুরে ভূয়া স্ট্যাম্প বানিয়ে বাদীর নামে আদালতে মিথ্যা মামলা
.............................................................................................
মৌলভীবাজারে উদয়ন এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনসহ ৩ বগি লাইনচ্যুত, রেল যোগাযোগ বন্ধ
.............................................................................................
কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ায় শ্বাসরোধে হত্যা করলেন মা!
.............................................................................................
ঝালকাঠিতে স্কুলশিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাত, সাবেক স্বামী আটক
.............................................................................................
অনলাইন জুয়ায় সর্বস্বান্ত অনেকে, গ্রেফতার যুবক
.............................................................................................
কক্সবাজারে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে বৃদ্ধ নিহত
.............................................................................................
প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ
.............................................................................................
ফরিদপুরে শ্রেণিকক্ষে আটকে বাবা-ছেলেকে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল
.............................................................................................
বড় বোনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি: একা পেয়ে ছোট বোনকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
.............................................................................................
ছিলেন ঢাবির মেধাবী ছাত্র, ইউটিউব থেকে শেখেন চুরির কৌশল
.............................................................................................
যৌতুকের বলি বিচারপতির ভাতিজি, স্বামী গ্রেফতার
.............................................................................................
দশ লিটারে এক লিটারের বেশি তেল চুরি, মতিঝিলের করিম পাম্প সিলগালা
.............................................................................................
ট্রাফিক পুলিশকে মারপিট, টিকটকে ভিডিও ভাইরাল
.............................................................................................
ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৩৬
.............................................................................................
নেশার টাকা জন্য শিকলে বেঁধে স্ত্রীকে নির্যাতন
.............................................................................................
মোবাইলফোন ব্যবহার করায় ছাত্রকে বেধড়ক পেটালেন শিক্ষক
.............................................................................................
স্ত্রীর মরদেহ ওয়ারড্রোবে রেখে থানায় আত্মসমর্পণ স্বামীর!
.............................................................................................
বিস্কুট-কলা-ডাব খাইয়ে যাত্রীদের সর্বস্ব লুটে নিতেন তারা
.............................................................................................
শুধু আকাশ না, আমরা পাতালেও যাচ্ছি: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর কারণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ঢাকায় ছোঁ-মারা পার্টির ১০০ সদস্য, দিনে টার্গেট ৩০০ মোবাইল চুরি
.............................................................................................
নানিকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে নাতির যাবজ্জীবন
.............................................................................................
ঢাকায় পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ৭৩
.............................................................................................
নকল পণ্য-ভেজাল খাদ্য, ১২ প্রতিষ্ঠানকে ২৩ লাখ টাকা জরিমানা
.............................................................................................
মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৬০
.............................................................................................
অষ্টম শ্রেণি পাস সার্জন, করেন অপারেশন!
.............................................................................................
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪২
.............................................................................................
পেটের ভেতরে ইয়াবা নিয়ে পাচারের চেষ্টা, অসুস্থ হয়ে ঢামেকে যুবক
.............................................................................................
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪১
.............................................................................................
গোপালগঞ্জে শিশুপুত্রকে আছড়ে হত্যার অভিযোগে বাবা গ্রেফতার
.............................................................................................
কাজে দেরি হলেই মারধর-গায়ে গরম পানি ঢেলে দেন গৃহকর্তী
.............................................................................................
দেখা করার কথা বলে ডেকে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ
.............................................................................................
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৩১
.............................................................................................
শান্তিনগরে ছাত্রের আত্মহত্যা!
.............................................................................................
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৪
.............................................................................................
কোচিংয়ে যাওয়ার পথে ছাত্রীকে অপহরণ
.............................................................................................
ফতুল্লায় স্কুলছাত্রী অপহরণের ঘটনায় যুবক গ্রেফতার
.............................................................................................
কোমল পানীয় পরিবহনের আড়ালে গাঁজার কারবার, আটক ২
.............................................................................................
ফেসবুকে ভুয়া বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণা, গ্রেফতার ৭
.............................................................................................
খেজুরের রসে চিনি-চুন মিশিয়ে বানানো হচ্ছে ভেজাল গুড়
.............................................................................................
পুলিশের অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার ২৩
.............................................................................................
দিয়াশলাই জ্বালাতেই বিকট বিস্ফোরণ, শিশুসহ দগ্ধ ৪
.............................................................................................
বাবাকে ৩২ টুকরা করে কূপে ফেললেন ছেলে
.............................................................................................
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৩৯
.............................................................................................
ফেসবুক লাইভে আত্মহত্যাচেষ্টা, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে গ্রিল কেটে উদ্ধার
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
চেয়ারম্যান: এস.এইচ. শিবলী ।
সম্পাদক, প্রকাশক: জাকির এইচ. তালুকদার ।
হেড অফিস: ২ আরকে মিশন রোড, ঢাকা ১২০৩ ।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বাড়ি নং ২, রোড নং ৩, সাদেক হোসেন খোকা রোড, মতিঝিল বা/এ, ঢাকা ১০০০ ।
ফোন: 01558011275, 02-৪৭১২২৮২৯, ই-মেইল: dtvbanglahr@gmail.com
   All Right Reserved By www.dtvbangla.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop    
Dynamic SOlution IT Dynamic POS | Super Shop | Dealer Ship | Show Room Software | Trading Software | Inventory Management Software Computer | Mobile | Electronics Item Software Accounts,HR & Payroll Software Hospital | Clinic Management Software Dynamic Scale BD Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale Digital Load Cell Digital Indicator Digital Score Board Junction Box | Chequer Plate | Girder Digital Scale | Digital Floor Scale